চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ৫ আগস্ট ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ঝিনাইদহে গাছ চাপায় শ্রমিক নিহত

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
আগস্ট ৫, ২০২২ ৮:২৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ঝিনাইদহ অফিস: ঝিনাইদহে গাছ চাপায় আকুল মণ্ডল (৪৫) নামে এক শ্রমিক নিহত হয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে শৈলকুপা উপজেলার কুলচারা নতুন পাড়া এস-৬ এ ক্যানালে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শ্রমিক সদর উপজেলার পোড়াহাটি ইউনিয়নের বাসুদেবপুর গ্রামের মোহাম্মদ আলী মণ্ডলের ছেলে। জানা গেছে, পানি উন্নয়ন বোর্ডের কয়েকজন অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীর সাথে যোগসাজস করে কুলচারা নতুন পাড়ার সাইফুল ইসলাম ঝণ্টু দীর্ঘদিন ধরে ক্যানালে গাছ বিক্রি করে আসছেন।

নিহত শ্রমিকের ভাই পিকুল মণ্ডল জানান, সকাল ৮টার দিকে আকুল মণ্ডল, একই গ্রামের মোকাদ্দেস মণ্ডল ও বড় কুলচারা গ্রামের নজরুল ইসলামকে একদিন ৬ শ টাকা করে হাজিরা ঠিক করে নিয়ে আসেন আমতলা মকিমপুরের রব্বানী মোল্লার ছেলে কাঠ ব্যবসায়ী নান্নু মোল্লা। এরপর ঘটনাস্থলে গিয়ে তারা গাছ কাটতে শুরু করে। গাছ কাটা শেষ পর্যায়ে আকুল গাছে উঠে দড়ি বাঁধতে যায়। সে সময় কাটা গাছ ভেঙে নিচে চাপা পড়ে মারাত্মকভাবে আহত হন আকুল। সাথে থাকা শ্রমিকেরা উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ভাই অভিযোগ করে বলেন, উচ্চমহলের তদবির ও বেশ কয়েকজন প্রভাশালী ব্যক্তি বিভিন্ন রকম ভয়-ভীতি দেখায় এবং লাশ ময়নাতদন্ত পর্যন্ত করা হয়নি। তাই বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। শ্রমিক ঠিক করে আনার কথা স্বীকার করে কাঠ ব্যবসায়ী নান্নু মোল্লা জানান, ‘এই ক্যানালের গাছটি কুলচারা নতুনপাড়া গ্রামের আসালত মণ্ডলের ছেলে সাইফুল ইসলাম ঝণ্টু দেখাশুনা করে। ৩ হাজার টাকায় আমি তার কাছ থেকে গাছটি ক্রয় করেছি।’

গাছ বিক্রেতা সাইফুল ইসলাম ঝণ্টু জানান, ‘এস-৬ এ ক্যানালটি পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে আমি লিজ নিয়ে গাছগুলি রোপণ করেছি এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে মৌখিক অনুমতি নিয়ে এই গাছ বিক্রি করে আসছি। তবে এই গাছটি আমি নান্নুর কাছে বিক্রি করেছি। সে হয়ত চুরি করে গাছটি কেটে নিচ্ছিল।’

এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রাশিদুর রহমান জানান, ‘আমরা গাছ কাটার জন্য কাউকে অনুমতি দিইনি। কেউ যদি চুরি করে বিক্রি করে গাছ কাটে, সেখানে আমাদের কিছুই করার থাকে না। তবে আপনার মাধ্যমে বিষয়টি অবগত হলাম। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান, কেউ যদি অভিযোগ দেয়, তাহলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।