চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ১৮ আগস্ট ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ঝিনাইদহের যুবককে মালয়েশিয়ায় আটকে হাত পা ভেঙ্গে মুক্তিপণ আদায়!

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ১৮, ২০১৬ ১:০৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ঝিনাইদহ অফিস: ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মহামায়া গ্রামের তুহিন রেজা (২৩) নামে এক যুবককে মালয়েশিয়ায় আটকে রেখে দফায় দফায় তার পরিবারের কাছ থেকে মুক্তিপণ আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ পর্যন্ত তুহিনের পরিবার দেড় লাখ টাকা মুক্তিপণ দিয়েছেন। তারপরও ভিনদেশে নির্যাতন থেমে নেই। বিপুল পরিমান দাবীকৃত অর্থ না পেয়ে তুহিন রেজার দুই পা ভেঙে তিন তলা বাড়ির ছাদ থেকে ফেলে হত্যার চেষ্টাও করা হয়েছে। এ বিষয়ে ঝিনাইদহ সদর একটি অভিযোগ করা হয়েছে। এদিকে থানা পুলিশের দারস্থ হওয়ার পর দালাল চক্রটি স্ব-পরিবারে গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে। প্রাপ্ত অভিযোগে জানা গেছে, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মধুহাটি ইউনিয়নের মহামায়া গ্রামের ব্রীজ পাড়ার ইসলাম উদ্দীনের ছেলে তুহিন রেজা বিদেশ যাওয়ার জন্য এলাকার একাধিক দালাল চক্রের খপ্পরে পড়েন। ২০১১ সালে লিবিয়া যাওয়ার জন্য মহামায়া ও বেজিমারা গ্রামের দালালদের সাথে কথা বলেন। একই বছরের মার্চ মাসে ২ লাখ ৮০ হাজার টাকা পরিশোধ করে তুহিন। দুই বছর ধরে ঘোরানোর পর দালালরা জানান, লিবিয়ার আবস্থা ভাল নয়। সাড়ে ৪ লাখ টাকা হলে ইরাক বা কাতারে পাঠানো হবে। এরপর ফ্লাইটের নামে তুহিনকে দফায় দফায় ১৬ বার ঢাকায় নিয়ে রাখা হয়। সর্বশেষ একই খরচে তুহিনকে গত ১৪ জুলাই মালয়েশিয়ায় পাঠিয়ে দেয়। মালয়েশিয়ায় পৌছানোর পর দালালচক্র তুহিনকে আটকিয়ে পরিবারের কাছে দেড় লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। দাবিকৃত টাকা না পেয়ে ভিনদেশে তুহিনকে দফায় দফায় নির্যাতন করা হচ্ছে। কোন উপায়ন্ত না পেয়ে তুহিনের দরিদ্র বাবা গরু ও মাঠের জমি বিক্রি করে দেড় লাখ টাকা পরিশোধ করেন। ততক্ষনে টাকা আদায়ে জন্য নির্যাতন করে তুহিনের দুই পা ভেঙে দেয়া হয়েছে। এরপর তুহিনের নিকট আরো দশ হাজার টাকা দাবি করা হয়। টাকা দিতে না পারাই তিন তলা বাড়ির ছাদ থেকে ফেলে হত্যার চেষ্টাও করা হয়েছে। এই ঘটনায় তুহিনের পিতা ইসলাম উদ্দীন বাদি হয়ে মহামায়া গ্রামের মধু, আসাদ, বজিমারা গ্রামের মাহফুজুর রহমান ওরফে পল্টু ও তোরাব আলিকে আসামী করে ঝিনাইদহ সদর থানায় অভিযোগ করেছেন। তুহিনের মা রোকেয়া খাতুন জানান, তুহিন রেজাকে ভাল চাকরী দেওয়ার কথা বলে মহামায়া গ্রামের আসাদ, মধু, বেজিমারা গ্রামের তোরাব আলি, মাহফুজ ওরফে পল্টু তার ছেলের পিছু লাগে। ছেলের আগ্রহ আর দালালের কথা বিশ্বাস করে বিদেশ পাঠাতে রাজি হই। এখন টাকা দিতে দেরি হওয়ায় দুই পা আর বাম হাত ভেঙে দিয়েছে তারা। তিনি আরো জানান, ঢাকার দালাল ফরিদপুরের শহিদুল ইসলাম ও সদর উপজেলার কুঠিদূর্গাপুর গ্রামের মতিন ওরফে মতি দালাল তার ছেলেকে নির্যাতনের মাধ্যমে হত্যার চেষ্টা চালায়। দুই পা ভাঙ্গা তুহিন রেজা মালেয়েশিয়ায় তার আতœীয় চুয়াডাঙ্গার ঘোলদাড়ী গ্রামের দেলোয়ার হোসেন ওরফে দেলবারের আশ্রয়ে চিকিৎসাধিন রয়েছেন বলে রোকেয়া খাতুন জানান। এ বিষয়ে ঝিনাইদহ সদর থানার উপদরিদর্শক আশোক কুমার জানান, এই ঘটনায় মহামায়া গ্রামের মধু, আসাদ এবং বেজিমারা গ্রামের মাহফুজুর রহমান ওরফে পল্টু ও তোরাফ আলিকে অভিযুক্ত করে অভিযোগ দাখিল করেছেন। যা আমারা তদন্ত করে দেখছি। সত্যতা পেলে মামলা হিসাবে গ্রহণ করা হবে। মালেয়েশিয়ায় দেলোয়ার হোসেন ওরফে দেলবারের সাথে তার মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান তুহিন রেজা গুরুতর অসুস্থ। তার চিকিৎসার সমর্থ নেই। দেশে ফেরার মতো তার কাছে টাকাও নইে। এদিকে অভিযোগ পাওয়া গেছে, ঝিনাইদহে বিদেশে মানুষ পাঠানোর নামে গোটা জেলায় একাধিক দালাল চক্র গড়ে উঠেছে। চক্রটি গ্রামের সহজ সরল মানুষকে বিদেশে ভাল চাকরী দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে কোট কোটি টাকা আদায় করছে। অথচ বিদেশে গিয়ে তারা ভাল মানের চাকরী পাচ্ছে না। বিষয়টি জেলাব্যাপী ওপেন সিক্রেট হলেও প্রতারিত মানুষ কোন প্রতিকার মিলছে না। আদালতে, থানা পুলিশ ও এলাকার ইউপি চেয়ারম্যানদের কাছে বিদেশে চাকরী দেওয়ার নামে টাকা আত্মসাতের হাজারো অভিযোগ জমা পড়ছে। কিন্তু টাকা পাচ্ছে না প্রতারিত মানুষগুলো।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।