চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ২২ ডিসেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

egsa জীবননগর ধোপাখালী ডাকঘরের বেহাল দশা অচিরেই সংস্কার করার জন্য কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা

সমীকরণ প্রতিবেদন
ডিসেম্বর ২২, ২০১৬ ২:৫৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

egsa
জাহিদ বাবু/মিথুন মাহমুদ জীবননগর থেকে: জীবননগর উপজেলার নব-গঠিত মনোহারপুর ইউনিয়নের ধোপাখালী গ্রামের ডাকঘরের বেহাল দশার কারনে এর সেবা থেকে স্থানীয়রা বঞ্চিত হচ্ছেন। যদিও এখন ডাকঘরের কোন কার্যক্রম নেই তার পরেও প্রাচীন এবং ঐতিহ্য ডাকব্যবস্থার এমন বেহাল দশায় এলাকাবাসী ভবনটি সংস্কারের দাবি তুলেছে। ধোপাখালী ডাকঘরটি সাবেক পাকিস্তান আমলে প্রতিষ্ঠিত। তারপর থেকে আর কোন কোন সংস্কার করা না হবার কারনে বিল্ডিংটি এখন মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। এক সময় এই পোষ্ট অফিসের মাধ্যমে এলাকার বাইরে অবস্থানরত চাকুরীজীবি পরিবারের খবরাখবর এবং টাকা পয়সা লেনদেন সম্পন্ন করতেন। সব দিক বিবেচনা করে ধোপাখালী গ্রাম্য পোষ্ট অফিসটি প্রতিষ্ঠিত করা হয়। তাছাড়া গ্রামের পাশে মাধবখালী গ্রামে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে শাহাদত বরণ কারী ছয়বীর সৈনিকের সমাধী রয়েছে, আবার  গ্রামটি সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়ার ফলে এই গ্রামে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড বিজিবির ক্যাম্প প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এলাকাবাসী থেকে জানা গেছে, তৎকালীন সময়ে সাধারন মানুষের কাছে চিঠি পত্র আদান প্রদান হত ডাক ঘরের মাধ্যমে। সে সময়ে এলাকার সাধারন মানুষের যাতায়াতের কথা চিন্তা করে এই গ্রামে ১৯৬৪ সালে একটি শাখা ডাকঘর প্রতিষ্ঠিত হয়। এই ডাকঘরটি বেশ কয়েকটি গ্রাম নিয়ে প্রতিষ্ঠিত। খাতা কলমে এটির নাম উল্লেখ্য থাকলেও নেই কোন এর গুরুত্ব। অথচ এখনও যদি কোন সরকারী চাকুরি বা অন্য কোন বিষয়ের জন্য আবেদন করা হয়, তা হলে এই ধোপাখালী ডাকঘরের মাধ্যমেই এ সমস্থ কাগজ পত্র এসে থাকে। কিন্তু এটি সংস্কার বা এটির উপরে তেমন কোন গুরুত্ব না দেওয়ায় এটি আজ জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। এই ভবনটি যে কোন সময় ভেঙ্গে পড়তে পারে, হতে পারে একটি বড় ধরনের দুর্ঘটনা। তাই এলাকাবাসীসহ সুশিল সমাজের সকলে ধোপাখলী গ্রামের এই ডাকঘরটি অচিরেই সংস্কার করার জন্য কতৃপক্ষের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।