চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ৬ অক্টোবর ২০১৬

জীবননগর কমিউনিটি পুলিশিং মহাসমাবেশ অনুষ্ঠানে বললেন এমপি টগর সন্ত্রাস দূর করতে পুলিশ ও জনগণের এক সাথে কাজ করতে হবে

সমীকরণ প্রতিবেদন
অক্টোবর ৬, ২০১৬ ১১:০২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

IMG_2576

জাহিদ বাবু/মিঠুন মাহমুদ জীবননগর থেকে:  জীবননগর কমিউনিটি পুলিশিংয়ের মহাসমাবেশ ২০১৬অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকাল সাড়ে ৪টার সময় জীবননগর থানার অফিসার ইনচাজ লিয়াকত হোসেনের আয়োজনে জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু.মো. আ. লতিফ অমলের সভাপতিত্বে জীবননগর থানায় কমিউনিটি পুলিশিং মহাসমাবেশ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা ২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য হাজী আলী আজগার টগর এ সময় প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্য বলেন বাংলাদেশ থেকে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ দূর করতে হলে পুলিশের পাশাপাশি দেশের সকল জনগনকে এক সাথে কাজ করতে হবে। বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন বাংলাদেশকে একটি মধ্যে আয়ের দেশ হিসাবে গড়ে তোলার জন্য দিন রাত যে ভাবে অক্লান্ত ভাবে পরিশ্রম করছেন তা দেশের সকল মানুষের অজনা নয় কিন্তু দেশে এক শ্রেনীর মানুষ অশান্তি সৃষ্টি করার জন্য  দেশ যাতে মধ্যে আয়ের দেশ হিসাবে  গড়ে না ওঠে সে কারনে এক শ্রেনীর দেশদ্রহী জঙ্গিবাদ নামের একটি সংগঠনের মাধ্যমে তা থামিয়ে দেওয়ার চেষ্ঠা করেছিল। কিন্তু তারা সে কাজ সফল করতে পারেনি বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা থাকতে এমন কোন অপশক্তি নেই যে বাংলাদেশের উন্নয়ন থামিয়ে রাখবে। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে দেশে শিক্ষার মান, চিকিৎসার মান অনেক উন্নয়ন হয়েছে। শুধু তাই নয় জনগন ও পুলিশের মধ্যে একটি সুসম্পর্ক গড়ে উঠেছে ।এ সময় তিনি পুলিশ ও জনগনকে উদ্দেশ্য করে বলেন যে কোন আসামী ধরতে হলে সে আসলে প্রকৃতি পক্ষে দোষী কিনা তা যাচাই বাচাই করে ধরবেন। কারও কথায় কিংবা টাকার লোভে সাধারন মানুষকে হয়রানি করবেন না, অনেক সময় দেখা যায় এক শ্রেনীর লোক থানায় দালালী করতে আসে এখনও  গ্রামের সাধারন মানুষ থানা পুলিশের সাথে কথা বলতে এবং থানার ভিতরে প্রবেশ করতে ভয় পাই আর সেই সুযোগটা ওই সমস্থ দালালরা কাজে লাগাই এবং তাদের কাছে পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে টাকা নিয়ে নিজের পকেট ভরায়। সে সমস্থ দালালদের  চিহ্নিত করতে হবে এবং তাদের থানায় প্রবেশ করা নিষেধ করতে হবে। যদি কোন এলাকায় আসামী ধরতে হয় তা হলে সে এলাকায় কমিউনিটি পুলিশিং সদস্য অথবা জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে সত্য মিথ্যা যাচাই করে আসামী ধরতে হবে। এ সময় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বেলায়েত হোসেন, জীবননগর পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, জীবননগর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম মোর্তুজা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাজী হাফিজুর রহমান হাফিজ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েসা সুলতানা লাকী, উথুলী ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আ.হান্নান, রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান তাহাজ্জদ মির্জা, আন্দুলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মোক্তার, বাঁকা ইউপি চেয়ারম্যান বাবলুর রহমান, হাসাদহ ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, দর্শনা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম, জীবননগর থানা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক প্রভাষক নজরুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা সরকারী কলেজের প্রভাষক মুন্সী আবু সাইফ মুকু, সীমান্ত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আ.মালেক মোল¬াসহ জীবননগর উপজেলার সকল ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বারগন ,পৌর সভার  কাউন্সিলরগন  ও কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সকল সদস্যবৃন্দ সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উক্ত অনুষ্ঠানটি সার্বিক পরিচালনা করেন জীবননগর থানা যুবলীগ নেতা আঃ সালাম ঈশা ।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।