চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ২৫ নভেম্বর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জীবননগরে কিশোর গ্যাংয়ের দু’সদস্য আটক

জীবননগর অফিস
নভেম্বর ২৫, ২০২১ ৭:৪১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

জীবননগরে কিশোর গ্যাং গ্রুপের দুই সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার দুপুরে জীবননগর পৌর এলাকার লক্ষীপুর মিলপাড়া থেকে তাঁদের আটক করে জীবননগর থানা পুলিশ। তবে গ্যাং গ্রুপের প্রধান সাইফুল ইসলাম পালিয়ে গেছেন। এ ঘটনায় সাইফুল ইসলামকে প্রধান আসামি করে তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৩-৪ জনের নামে জীবননগর থানায় চাঁদাবাজির মামলা করা হয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, জীবননগর পৌর শহরের লক্ষীপুর মিলপাড়ার রবিউল ইসলামের ছেলে মাদক ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলামের (৩১) নের্তৃতে মুজিবুর রহমানের ছেলে শহিদুল ইসলাম (২৬) ও আব্দুল হকের ছেলে আব্দুর রহমান (২৭) এলাকায় একটি কিশোর গ্যাং গড়ে তোলে। এ গ্রুপটি এলাকায় দুর্দান্ত প্রকৃতির হওয়ায় এলাকার সাধারণ মানুষ তাদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলতে সাহস পায় না। সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে গ্যাংয়ের সদসরা এলাকায় চুরি-ছিনতাইসহ নানা অপর্কম করে আসলেও ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী নেতার ছত্রছায়ায় থাকায় এবং তারা ভয়ঙ্কর হওয়ায় এলাকাবাসী তাদের সব অত্যাচার নীরবে মুখ বুঝে সহ্য করে আসছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার বেশ কিছু ব্যক্তি অভিযোগ করে বলেন, ‘সাইফুল ও তার সদস্যরা মারাত্মক ভয়ঙ্কর। তারা যেকোনো ব্যক্তির হত্যা করতে পারে, তারা সবসময় হাসুয়া ও চাকু নিয়ে ঘোরাঘুরি করে। তারা যেটা ইচ্ছা এলাকায় সেটাই করে। তাদের বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করতে গেলে তাকে হত্যা করার হুমকি প্রদান করে, যার কারণে এলাকার মানুষ তাদের অত্যাচার নীরবে সহ্য করে আসছে।’

দেশ বাংলা অটো রাইস মিল ইন্ডাস্ট্রিজ প্রা. লি.-এর সত্ত্বাধিকারী ইমাম হোসেন দুলাল বলেন, ‘আমরা বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত থাকার সুযোগে সাইফুল ইসলাম তার সহযোগীদের নিয়ে প্রায়ই আমার মিল থেকে মোটা অংকের চাঁদা নিয়ে যেত। এ পর্যন্ত তারা আমার নিকট থেকে দেড় লক্ষাধিক টাকারও বেশি চাঁদা নিয়েছে। অন্যদিকে আমার মিলের বাউন্ডারিতে পালন করা ২২টি বড় সাইজের খাসি ও ধাড়ী ছাগল জোর করে নিয়ে গেছে। যার দাম আড়াই লাখ টাকা হবে। সাইফুল ইসলাম সর্বশেষ ২২ নভেম্বর বিকেলে আমার নিকট আবারও চাঁদা দাবি করে। কিন্তু তাৎক্ষণিকভাবে তাকে টাকা দিতে না পারায় সাইফুল ইসলাম তার লোকজন নিয়ে আমার রাইস মিল থেকে একটি বড় ধাড়ী ছাগল জোর করে নিয়ে বিক্রি করে দেয়। আমরা সাইফুলের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছি। এক সময় বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত থাকলেও বর্তমানে ক্ষমতাসীন দলে নাম লিখিয়ে এলাকায় নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়ে। এই ঘটনায় সাইফুলকে প্রধান আসামি করে তিনজনসহ অজ্ঞাত ৩-৪ জনের নামে একটি মামলা করা হয়েছে।’

তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, এক মাস আগে লক্ষীপুর গ্রামে বেদেদের একটি দল বসবাস করতে থাকে, সেখানে যেয়ে সাইফুলসহ তার বাহিনীর সদস্যরা ১০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না দিলে তাদের ঘরে আগুন ধরিয়ে দিবে এই হুমকি দেওয়ায় বেদেরা নিজেদের প্রাণ বাঁচাতে ৫ হাজার টাকা দিয়ে সেখান থেকে চলে যায়। তবে এই বাহিনীর সদস্য লক্ষীপুর ব্র্যাক অফিসের পিছনে পরিত্যাক্ত একটি বরিং ঘরে বসেই মাদক সেবনসহ বাকি সময় কাটান। এলাকাবাসীর দাবি, এই গ্রুপরে সদস্যদের বিরুদ্ধে যদি সঠিক ব্যবস্থা না নেওয়া হয়, তাহলে এলাকার যুব সমাজ ধ্বংস হয়ে যাবে।

জীবননগর পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর জামাল হোসেন খোকন বলেন, সাইফুল ইসলাম কিশোর গ্যাংয়ের প্রধান হিসেবে এলাকায় পরিচিত। সে এলাকার ত্রাস, তার বিরুদ্ধে এলাকায় চুরি, চাঁদাবাজিসহ নানা অপকর্মের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। এই গ্যাংয়ের সদস্যরা চরম ভয়ঙ্কার, তাদের বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করতে সাহস পায় না।

জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আব্দুল খালেক বলেন, সাইফুলসহ তিনজনের নামে জীবননগর থানায় মামলা হয়েছে। তাদের মধ্যে শহিদুল ও আব্দুর রহমানকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।