চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ১৫ অক্টোবর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জাতিসংঘের মহাসচিব হলেন গুতেরেস

সমীকরণ প্রতিবেদন
অক্টোবর ১৫, ২০১৬ ১:০৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

image_1691_259705সমীকরণ ডেস্ক: জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অনুমোদনের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এই বিশ্ব সংস্থাটির নেতৃত্বে এলেন পর্তুগালের সাবেক প্রধানমন্ত্রী আন্তোনিও গুতেরেস। গত বৃহস্পতিবার গুতেরেসকে পাঁচ বছরের জন্য জাতিসংঘের পরবর্তী মহাসচিব হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। বর্তমান মহাসচিব বান কি মুনের দ্বিতীয় দফায় পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষে ১ জানুয়ারি গুতেরেস দায়িত্ব গ্রহণ করবেন। জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সাবেক এই কমিশনার হবেন এই বিশ্ব সংস্থাটির নবম মহাসচিব। গত সপ্তাহে জাতিসংঘের পরবর্তী মহাসচিব হিসেবে ১৩ জন প্রার্থীর মধ্য থেকে তাকে মনোনীত করে নিরাপত্তা পরিষদ। বৃহস্পতিবার ১৯৩ সদস্যের সাধারণ পরিষদে তা সর্বসম্মত অনুমোদন পায় বলে রয়টার্সের খবর। ৬৭ বছর বয়সী গুতেরেস বিবিসিকে বলেন, বিশ্ব এখন একটি বিপজ্জনক সময় অতিবাহিত করছে। তিনি দেখতে চানম নিরাপদ ভবিষ্যৎ অর্জনের লক্ষ্যে বিশ্বের মানুষ একসঙ্গে কাজ করছে। তবে সিরিয়ার গৃহযুদ্ধের অবসান ঘটানো হবে বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ। তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয়, এই সংঘাতের অবসান ঘটানোর প্রচেষ্টাই হবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের অগ্রাধিকারমূলক উদ্যোগ। আর একে ব্যবহার করেই অন?্যসব সংঘাতের ওপর নজর দিতে হবে, এক সূত্রে গাঁথতে হবে।’ ৬৭ বছর বয়সী গুতেরেসের মনোয়ন চূড়ান্ত করতে গত ৭ অক্টোবর নিরাপত্তা পরিষদে আনুষ্ঠানিক ভোটাভুটি হয়। এরপর নিরাপত্তা পরিষদ তাদের মনোনীত নয়া মহাসচিব হিসেবে ১৩ অক্টোবর গুতেরেসের নাম তোলে ১৯৩ সদস্যের সাধারণ পরিষদে। সেখানেই আসে চূড়ান্ত অনুমোদন। পেশায় প্রকৌশলী গুতেরেস রাজনীতিতে আসেন ১৯৭৬ সালে। পাঁচ দশকের স্বৈরশাসনের অবসান ঘটানো ‘কার্নেশন বিপ্লবের’ পর ওই বছরই দেশটিতে প্রথম গণতান্ত্রিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১৯৯২ সালে তিনি দেশটির সোশ্যালিস্ট পার্টির নেতা নির্বাচিত হন। তিন বছর পর হন প্রধানমন্ত্রী। ২০০৫ সালে গুতেরেস জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক কমিশনের দায়িত্ব নেন। এরপর এক দশক ব্যস্ত ছিলেন সিরিয়া, আফগানিস্তান ও ইরাকের মতো দেশগুলোর শরণার্থী সংকট মোকাবেলায়। যুদ্ধবিধ্বস্ত শরণার্থীদের আরো বেশি সহায়তা দিতে পশ্চিমা সমাজকে বার বার অনুরোধ করেছেন তিনি। পর্তুগালের সাবেক প্রেসিডেন্ট অ্যানিবাল কাভাবো সিলভা এ বছরের শুরুতে বলেছিলেন, গুতেরেস শরণার্থী বিষয়ক কমিশনে ‘কিংবদন্তিতুল্য’ কাজ করেছেন। জাতিসংঘের মহাসচিব পদে একজন দুই মেয়াদে সর্বোচ্চ ১০ বছর দায়িত্ব পালন করতে পারেন।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।