চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ১৬ এপ্রিল ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ছাত্রদলে নয়া নেতৃত্বের খোঁজে বিএনপি

বর্তমান কমিটির ওপর ক্ষুব্ধ দলের হাইকমান্ড
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
এপ্রিল ১৬, ২০২২ ৯:১৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

দীর্ঘ ২৭ বছর পর কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে গঠিত হয়েছিল বিএনপির অন্যতম সহযোগী সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের বর্তমান কমিটি। দায়িত্ব পাওয়ার পর নানামুখী কর্মকা-ে ছাত্রদলকে সক্রিয় করার প্রয়াস চালালেও মাঝপথে শীর্ষ কিছু নেতার অনিয়মের কারণে সংগঠনের সুপার ফাইভের প্রতি ক্ষুব্ধ বিএনপির শীর্ষ নেতারা। এমতাবস্থায় ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠনের কাজ শুরু করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। পদপ্রত্যাশীদের সাংগঠনিক আমলনামা যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। সেই লক্ষ্যে গত মঙ্গলবার বিকেল ৪টা থেকে রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাদের সাথে ব্যক্তিগতভাবে বৈঠক করেছেন তিনি। একজন একজন নেতার সাথে কথা বলে নতুন কমিটি গঠনের বিষয়ে মতামত নেন তারেক রহমান। ওই বৈঠকের পর ছাত্রদলের বর্তমান কমিটি ভেঙে দিয়ে নতুন কমিটি হচ্ছে মর্মে পদপ্রত্যাশীরা প্রচারণা শুরু করেছেন। তবে কাউন্সিল ছাড়াই এবার সরাসরি ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হতে পারে।
জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাতে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ছাত্রদলের কমিটি গঠনের বিষয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের মতামত নেন তারেক রহমান। দীর্ঘ সাড়ে ৮ ঘণ্টায় ৪৩ জন কেন্দ্রীয় নেতার মতামত নেন তিনি। মতামত নেয়ার সময় ছাত্রদলের ৬০ সদস্যের কেন্দ্রীয় আংশিক কমিটির মধ্যে ঢাকার বাইরে থাকায় ও অসুস্থতাজনিত কারণে ১২ জন অনুপস্থিত ছিলেন। সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সিনিয়র সহ-সভাপতি, যুগ্ম সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক উপস্থিত থাকলেও তাদের মতামত নেয়া হয়নি। পৃথকভাবে নেয়া ছাত্রদল নেতাদের মতামতের মধ্যে অধিকাংশই নতুন কমিটির পক্ষে মত দিয়েছেন। বর্তমান কমিটির বিষয়ে কী করা উচিত, নতুন কমিটি করলে কী ধরনের নেতা নির্বাচন করা উচিত এবং জেলা কমিটির বিষয়ে কী করা যায় ইত্যাদি নানা বিষয়ে মতামত নেন তারেক রহমান। এ বিষয়ে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতারা তাদের সাংগঠনিক অভিভাবক তারেক রহমানকেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়ার মত দেন।
ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বিভিন্ন কর্মকা-ের মূল্যায়ন করে বলেন, সংগঠনকে গতিশীল রাখতে যে কোনো সংগঠনেরই নিয়মিত কমিটি হওয়া দরকার। আমাদের সাংগঠনিক অভিভাবক তারেক রহমান নতুন কমিটির বিষয় সিদ্ধান্ত নেবেন। তিনি যে সিদ্ধান্ত নেবেন আমরা সেই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাব। ২০১৯ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর রাতে ছাত্রদলের ষষ্ঠ কাউন্সিলে ফজলুর রহমান খোকন সভাপতি এবং ইকবাল হোসেন শ্যামল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ওই বছরের ২১ ডিসেম্বর ৬০ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা হলেও তা পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি বর্তমান নেতৃত্ব। গত বছরের সেপ্টেম্বরে কেন্দ্রীয় কমিটির দুই বছরের মেয়াদ শেষ হয়েছে। এরপর থেকে কমিটি পূর্ণাঙ্গ বা নতুন কমিটি গঠনের দাবি জানিয়ে আসছে সংগঠনের পদবঞ্চিতদের একটি বিরাট অংশ।
তারেক রহমানের কাছে মতামত দেয়া ছাত্রদলের একাধিক নেতা আলাপকালে জানান, তারা বলেছেন, বিগত আড়াই বছরে বর্তমান শীর্ষ নেতৃত্ব কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি। এ ছাড়া কেন্দ্রীয় কমিটির অধীনে ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কমিটিও গঠন করতে পারেনি। এর মধ্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা কলেজ, তিতুমীর কলেজ, কবি নজরুল কলেজ, মিরপুর বাংলা কলেজ, তেজগাঁও কলেজসহ অন্যান্য ইউনিট রয়েছে। কবে নাগাদ এসব কমিটি গঠন করা হবে তা অনিশ্চিত। ফলে পদপ্রত্যাশী অনেক নেতাকর্মী তাদের রাজনৈতিক পরিচয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। সেজন্য মূলত কেন্দ্রের শীর্ষ পাঁচ নেতা বা সুপার ফাইভ দায়ী। তাদের অভিযোগ- কেন্দ্রীয় শীর্ষ নেতারা কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার অজুহাতে কমিটির মেয়াদ বাড়াতে কালক্ষেপন করছেন। শুধু তাই নয়, কেন্দ্রীয় শীর্ষ কয়েকজন নেতা বিভিন্ন কমিটিতে তাদের অনুগতদের রাখার জন্য ঢাকা মহানগরীর দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করায় তা হয়নি। কমিটি পূর্ণাঙ্গ না হওয়ায় সংগঠন ক্ষতিগ্রস্ত হয়। নতুন নেতৃত্ব তৈরির পথ বাধাগ্রস্ত হয়। সেজন্যই তারা নতুন কমিটি গঠনে তারেক রহমানের কাছে মত দিয়েছেন। তবে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মতে- কাউন্সিলের মাধ্যমে খোকন-শ্যামল কমিটি হওয়ায় সারা দেশে তৃণমূল পর্যায়ে ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠন হয়েছে, নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরেছে। সারা দেশে জেলা ও সমমান পূর্ণাঙ্গ ও আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। উপজেলা ও সমমান পর্যায়ে, এমনকি ইউনিয়ন পর্যায়েও কমিটি হয়েছে। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে কিছু অনিয়মও হয়েছে। এসব বিষয় অস্বীকার করা যাবে না। বিএনপির শীর্ষ কয়েকজন নেতা আলাপকালে জানান, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ছাত্রদলের সাংগঠনিক অভিভাবক। তিনি নিজেই যোগ্য ও পরীক্ষিত নেতাদের বিষয়ে খোঁজ নিয়েছেন। দ্রুত সময়ের মধ্যেই কমিটি ঘোষণা করা হবে।
নতুন কমিটির আলোচনায় যারা
ছাত্রদলের নতুন কমিটির শীর্ষ পদের জন্য আলোচনায় আছেন সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিন, সহ-সভাপতি জাকিরুল ইসলাম জাকির, যুগ্ম সম্পাদক তানজিল হাসান, শাহনাওয়াজ, মহিনউদ্দিন রাজু, রিয়াদ মো: ইকবাল, মারুফ এলাহী রনি, মাহবুব মিয়া, রনি প্রধান, ছাত্রদল নেতা মুতাসিম বিল্লাহ, সহ-সাধারণ সম্পাদক রাশেদ ইকবাল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব, সদস্য সচিব আমানউল্লাহ আমান, নাছির উদ্দিন নাসির প্রমুখ।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।