চুয়াডাঙ্গা সাদেক আলী মল্লিকপাড়ার পরিবহন শ্রমিকের লাশ ময়নাতদন্ত শেষে দাফন আত্মহত্যা নয়, পরকিয়ার বলি রাজা : মামলা : স্ত্রীসহ তিনজন আটক

498

IMG_20170219_121126 নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার সাদেক আলী মল্লিকপাড়ার রাসেলে কবির রাজার লাশের ময়নাতদন্ত শেষে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। আত্মহত্যা নয়, তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা হয়েছে। স্ত্রীর পরকিয়ার কারণে সে হত্যার শিকার হয়। এমন অভিযোগে গতকাল চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে, হত্যাকা-ে জড়িতদের শাস্তির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী। এঘটনায় এজাহারনামীয় আসামী স্ত্রী জেসমিনসহ তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের আটক করেছে পুলিশ। জানা গেছে, গত পরশু শনিবার সন্ধ্যায় নিজ ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় রাসেল কবির রাজাকে উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাজাকে মৃত ঘোষণা করেন। রাজা ছিলেন বাসের হেলপার। গতকাল রোববার বিকেলে রাজার লাশের ময়নাতদন্ত শেষে দাফন করা হয়েছে। এর আগে, রাজা হত্যার প্রতিবাদ ও IMG_20170219_121437জড়িতদের ফাঁসির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। তারা মিছিলটি নিয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার সামনে সমবেত হয়। স্থানীয়রা জানিয়েছে, রাসেল কবির রাজাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে নিহত রাজার স্ত্রী জেসমিন ও তার বোনের দেবর বাবুর বিরুদ্ধে। দীর্ঘদিন ধরে বাবুর সাথে জেসমিনের পরকিয়া প্রেম চলছিলো। এরই সুত্র ধরে রাসেল কবির রাজাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর ঝুলিয়ে রাখা হয় বলে অভিযোগ করে নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসী। এদিকে, চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার সাদেক আলী মল্লিকপাড়ার মোজাম্মেল হকের ছেলে রাসেল কবির রাজার মৃত্যুর ঘটনায় চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় মামলা করা হয়েছে। নিহতের স্ত্রী জেসমিনসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন রাসেল কবির রাজার ভাই রাশেদ। এঘটনায় এজাহারনামীয় আসামী রাজার স্ত্রী জেসমিনসহ তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।