চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নতুন কর্মি নিয়োগ; দক্ষ না হওয়ায় বিপাকে রোগীরা

1383

১৫ সেচ্ছাসেবকের সেবা স্থগিত: ব্যহত চিকিৎসা সেবা
নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের নতুন কর্মি নিয়োগ হওয়ায় জরুরী বিভাগে তিন শিফটে কর্মরত ১৫ জন সেচ্ছাসেবকদের কাজ স্থগিত করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মি দক্ষ না হওয়ায় ব্যহত হচ্ছে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের সেবার মান। দীর্ঘদিন যাবত দক্ষতার সাথে স্বেচ্ছায় যারা সেবা প্রদান করেছেন তাদের বাদে কিভাবে অন্য কর্মি নিয়োগ পায় এ নিয়ে অলোচনা ঝড় উঠেছে।
জানা গেছে, দীর্ঘদিন যাবত চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে জরুরী বিভাগে কর্মি নিয়োগ না থাকায় হাসপাতাল বাস্তবায়ন কমিটি ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ’র দেয়া ১৫ জন স্বেচ্ছাসেবক জরুরী বিভাগে সেবা প্রদান করে আসছিল। হঠাৎ গত বুধবার হাসপাতালের শূন্য পদে ৫ জন নিয়োগ দেয়। জরুরী বিভাগে ৩ জন, রান্নার জন্য ১ জন মহিলা ও একজন মহিলা পরিছন্ন কর্মিকে নিয়োগ দেয় সরকারিভাবে। গতকাল ১৫ জন সেচ্ছাসেবকদের সেবা দেয়া স্থগিত করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। গতকাল তাদেরকে ডেকে এ আদেশ জারি করেন হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) শামীম কবির।
এদিকে সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত অদক্ষ্য কর্মির দ্বারা জরুরী বিভাগে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা চরম দূর্ভোগের শিকার হচ্ছে। পাচ্ছেনা পর্যাপ্ত চিকিৎসা। জরুরী বিভাগে বেড়ে যাচ্ছে রোগীদের ভীড়। গতকাল রাতে জরুরী বিভাগে কোন কর্মিকে দেখা মেলেনি। যদি কোন বড় ধরনের রোগী আসে তাহলে তার দায়ভার কে নিবে এমন কথা বলতে শোনা যায় অনেকের মুখে। এ ঘটনা জানার পর দুপুরে সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের সেচ্ছাসেবকরা একত্র হয়ে আরএমও’র কাছে গেলে আরএমও তাদেরকে বলেন, বর্তমান সদর হাসপাতালে ঠিকাদারের মাধ্যমে কয়েকজনকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। সেচ্ছাসেবিদের সদর হাসাতালের জরুরী বিভাগের অভিজ্ঞ কর্মিদেরকে বাদ রেখে নতুন অদক্ষ্য কয়েকজনকে নিয়োগের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নতুন যাদেরকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে এদেরকে ঢাকা থেকে নিয়োগ দিয়ে এখানে পাঠানো হয়েছে। এই নিয়োগের ব্যাপারে তিনি আগে থেকে কিছুই জানেন না।