চুয়াডাঙ্গা শিশু-কিশোর সাঁতার প্রশিক্ষন কেন্দ্র পরিদর্শনকালে জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস

392

অনাকাঙ্খিত দুর্ঘটনা রোধে সাঁতার প্রশিক্ষণ গ্রহনের কোন বিকল্প নেই
নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা শিশু-কিশোর সাঁতার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস। এসময় সাঁতার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসককে ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। গতকাল রোববার বিকেল ৪টায় চুয়াডাঙ্গা শিশু-কিশোর সাঁতার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটি পরিদর্শন করেন।
সাঁতার প্রশিক্ষন কেন্দ্রটি পরিদর্শনকালে প্রতিষ্ঠানের সভাপতি ও জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস প্রশিক্ষন কেন্দ্রটি আধুনিকানয়নে বেশ কয়েকটি উদ্যোগ গ্রহনের আশ্বাস প্রদান করেন। যার মধ্যে ছিল সুইমিং পুলের তলদেশের সাদা টাইল্স পরিবর্তন করে নীল টাইল্স বসানো, পানি পরিশোধন (আইরন মুক্ত করণ), সুইমিং পুল এরিয়া রংকরণ, সুইমিং পুল এরিয়ার ঝোপ-ঝাঁড়, ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কারকরণ প্রভৃতি। উক্ত কাজগুলো সম্পন্ন করার জন্য জেলা প্রশাসক তাৎক্ষনিকভাবে চুয়াডাঙ্গা শিশু-কিশোর সাঁতার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াশীমুল বারীর প্রতি নির্দেশ দেন। একই সাথে জেলা প্রশাসক বলেন, প্রশিক্ষণ, নিরাপত্তা ও দক্ষতা অর্জনে এবং পানিজনিত যে কোন অনাকাঙ্খিত দূর্ঘটনা রোধে সাঁতার প্রশিক্ষণ গ্রহন করার কোন বিকল্প নেই। তাই আপনাদের সন্তানকে সাঁতার শেখান ও অপরকে সাঁতার শেখাতে উৎসাহিত করুন।
সাঁতার প্রশিক্ষন কেন্দ্র পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন অতিরক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ই্য়াহ্ ইয়া খান, প্রতিষ্ঠানের পরিচালক ও সম্পাদক সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াশীমুল বারী, পরিচালনা পরিষদ সদস্য চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার প্যানেল মেয়র একরামুল হক মুক্তা, সদর থানা অফিসার্স ইনচার্জের প্রতিনিধি এসআই মিজান, হুমায়ুন কবীর, চুয়াডাঙ্গা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের আহবায়ক মজিবুল হক মালিক মজু, কেন্দ্র ইনচার্জ নাসির আহাদ জোর্য়াদ্দার, সাঁতার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের প্রধান প্রশিক্ষক ইসলাম রকিব, সহকারি প্রশিক্ষক আজিজুল হক প্রমূখ। নবাগত জেলা প্রশাসক ক্ষুদে সাঁতারু সাদিকুল ইসলাম নীরব, রাকিমুল ইসলাম রাকিম ও সানজিদ ইসলাম রাজের সাঁতার কাটার দৃশ্য উপভোগ করেন।