চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ২১ নভেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গা শহরে ডিবি পরিচয়ে নতুন প্রতারণার ফাঁদে সাধারণ জনতা বিপত্তিতে প্রকাশ্যে পথচারী মহিলার সোনার চেইন ছিনতাই : আতঙ্কে শহরবাসী!

সমীকরণ প্রতিবেদন
নভেম্বর ২১, ২০১৬ ২:৪২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

dsfa

শহর প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা শহরে সদর হাসপাতাল রোডে প্রকাশ্যে দিবালোকে ঝর্ণা নামের এক মহিলার কাছে থেকে ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে সোনার চেইন ছিনতাই এর ঘটনা ঘটেছে। গতকাল রবিবার ভোর সাড়ে ৬টার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল রোডে এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, গতকাল ভোর সাড়ে ৬টার দিকে প্রতিদিনের ন্যায় চুয়াডাঙ্গা শহরের গুলশান পাড়ার বাসিন্দা এ্যাড. শাহাজাহানের স্ত্রী ঝর্ণা খাতুন ফজরের নামাজ পড়ে বাড়ি থেকে মনিং ওয়ার্ক করতে বের হন। হাটতে হাটতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল রোডে সাংবাদিক আফজালের বাড়ির নিকট পৌছালে চারজন ডিবি পুলিশ পরিচয় দেয় এবং বলে আমরা তথ্য পেয়েছি আপনি জেএমবির মহিলা সদস্য বলে পাশের গলিতে নিয়ে যায় তল্লাশী করার কথা বলে। এরপর মধ্যবয়সী ঝর্ণা খাতুনের গলাই থাকা স্বর্ণের চেইন চিনিয়ে ছিনতাইকারীরা প্রাইভেটকার যোগে সটকে পড়ে। ঝর্ণা খাতুন সাংবাদিকদের জানান, ছিনতাইকারীরা আমাকে বলে আপনার কাছে যা কিছু আছে আমাদের দেখান, পরে আমার গলাই থাকা একটি সোনার চেইন দেখালে তারা কৌশলে কিছু না বোঝার আগেই চেইনটি ছিনিয়ে নিয়ে একটি সাদা প্রাইভেট করে সটকে পড়ে। এনিয়ে ওই এলাকায় চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। এলাকায় কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী নাম না বলার শর্তে জানান ভোর সাড়ে ৬টায় একটি প্রাইভেট কারে ৩জন মধ্যবয়স্ক ও একটি বাচ্চা ছেলে একজন মহিলার সাথে কথা বলতে দেখেছি পরে শুনলাম ওরা ছিনতাইকারী। আমরা মনে করেছি ওই মহিলার চেনাজানা কেউ হবে। যখন সাদা প্রাইভেট কারে সবাই চলে গেল তখন ঝর্ণা খাতুন সবাইকে ঘটনাটি বলেন এবং ঘটনাটি শুনে সবাই হতভম্ব হয়ে যায়। এদিকে ২দিন আগে চুয়াডাঙ্গা সিএন্ডবি পাড়ার একই প্রাইভেট কার সাথে এই ৪জন এই কৌশলে একই সময়ে হাটতে যাওয়া এক মহিলার নিকট থেকে সোনার চেইন, কানের দুল ছিনিয়ে নিয়ে সটকে পড়ে। এনিয়ে চুয়াডাঙ্গা শহরে ছিনতাই আতঙ্ক বিরাজ করছে। এলাকার কিছু ব্যক্তি বলেন, পুলিশ রাতে ডিউটি শেষ হবার আগেই চলে যায়। তাই এরই সুযোগ কাজে লাগিয়ে এই প্রতারক চক্র মনিং ওয়ার্ক কার মানুষজনের নিকট এই অভিনব কায়দায় ছিনতাই করছে। এবিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে। এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা ডিবির অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি এ ঘটনা এখনও শুনিনাই। আপনার কাছ থেকে শুনলাম। তবে এ ধরনের কোন কর্মকান্ডের সম্মুখিন হলেই প্রথমে ডিবি কিনা যাছাই করে নিতে হবে এবং ডিবি ওসি এসএম কামরুজ্জামান (০১৭১৩-৩৭৪২৪০) নাম্বারে ফোন করে জেনে নিবেন আসলেই ডিবি কিনা!

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।