চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর মহাসড়কের দু’ধারের ঝোপ-ঝাড় পরিষ্কার কার্যক্রমে অংশ নিলেন জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন

593

চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর মহাসড়কের দু’ধারের ঝোপ-ঝাড় পরিষ্কার কার্যক্রমে অংশ নিলেন জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন
সকলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ঝোপ-ঝাড় পরিষ্কার রাখা জরুরী
Jhor Jhap Poriskar DCনিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর মহাসড়কের আলুকদিয়া ইউনিয়নাধীন সড়কের দু’পাশের ঝোপ-ঝাড় পরিষ্কার কার্যক্রমে জনপ্রতিনিধি, সেচ্ছাসেবক, ছাত্র সংগঠন ও সাধারণ মানুষের সাথে অংশ নিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী জেলার সকল সড়কের আশ পাশের অপ্রয়োজনীয় জংগল কেটে পরিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেয় জেলা আইন শৃঙ্খলা বাস্তবায়ন কমিটি। এর আগে পর্যায়ক্রমে চুয়াডাঙ্গা-জীবননগর, চুয়াডাঙ্গা-আলমডাঙ্গা-কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ মহাসড়কের দু’ধারের ঝোপ-ঝাড় কেটে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে গতকাল মঙ্গলবার চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর মহাসড়কের আলুকদিয়া এলাকার রাস্তায় এ কার্যক্রমে সকলকে অংশ নিতে আহ্বান জানান জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ। বেলা সাড়ে ১০টা থেকে দীর্ঘ সময় ধরে এ কাজ চলে।
তিনি বলেন, গত ১মাস যাবত জেলাব্যাপী এ কার্যক্রম শুরু করেছি। ইতিমধ্যে ৭০ শতাংশ রাস্তার ধারে ঝোপ-ঝাড় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হয়েছে। শুধু পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করার জন্যই এ কাজ করা হচ্ছে। পাশাপাশি নিরাপত্তা ও আইনশৃঙ্খলার কিছু বিষয় জড়িত আছে। বিভিন্ন সময় ডাকাতি, সন্ত্রাসীসহ বিভিন্ন অপ্রিতিকর কর্মকান্ড সংঘটিত করার পর তারা এ সমস্ত ঝোপ-ঝাড়ের মধ্যে লুকিয়ে থাকে বলে পুলিশ সূত্রে শোনা যায়। সেই প্রেক্ষিতেই রাস্তার দু’ধারের অপ্রয়োজনীয় ঝোপ-ঝাড় কেটে পরিষ্কার করা হচ্ছে। সকলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ঝোপ-ঝাড় পরিষ্কার রাখা জরুরী।
জেলা প্রশাসক বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করলে অনেকে এগিয়ে এসেছেন। এক সময় এটি সরকারি কাজের অংশ হলেও বর্তমানে সামাজিক আন্দোলনে রূপ নিয়েছে। দলমত নির্বিশেষে তারা এই কাজ করছেন। আরো অনেকে এ কাজে সম্পৃক্ত হওয়ার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তারা স্থানীয় প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করে যে কোন জায়গাতেই কাজটা করতে পারেন, তবে সরকারি মূল্যবান গাছের ক্ষতি না করে।
জেলা প্রশাসকের আহ্বানে সাড়া দিয়ে ঝোপ-ঝাড় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন কাজে অংশ নেন পৌর মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপু, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও ডিডিএলজি আনজুমান আরা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুর রাজ্জাক, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুল হক বিশ্বাস, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৃণাল কান্তি দে, আলুকদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. ইসলাম। এছাড়াও জেলা প্রশাসকের দেওয়া ফেসবুক বার্তায় সাড়া দিয়ে সেচ্ছাশ্রমে এ কাজে অংশ নেয় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শরীফ হোসেন দুদু, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মো. জানিফ, যুগ্ম সম্পাদক জ্যাকী, পৌর ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাফিজুর রহমান মাফিসহ ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। পরে পুলিশ সুপার নিজাম উদ্দীন পরিদর্শনে যান।