চুয়াডাঙ্গা মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালিত : রাজধানীর আলোচনাসভায় তথ্যমন্ত্রী যুদ্ধাপরাধী ও খুনিদের বিচার বন্ধ করাই খালেদার উদ্দেশ্য

361

সমীকরণ ডেস্ক: তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, সাংবিধানিক প্রক্রিয়া ধ্বংস করে দেশে অস্বাভাবিক সরকার প্রতিষ্ঠা করে যুদ্ধাপরাধী ও খুনিদের বিচার বন্ধ করাই খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্য। আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে খালেদা জিয়া নতুন চক্রান্তের জাল বুনছেন। তিনি অনির্দিষ্ট, অস্পষ্ট, তথাকথিত নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের প্রস্তাব দিয়ে নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করছেন। ‘সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা ও গণতন্ত্র রক্ষা দিবস’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় আজ প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে শহীদ কর্নেল তাহের মিলনায়তনে জাসদ ঢাকা মহানগর সমন্বয় কমিটির আয়োজনে আলোচনা সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। ইনু বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচন সংবিধান রক্ষা করেছে। নির্বাচন কখনোই খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্য ছিল না, এখনো নেই। সাংবিধানিক প্রক্রিয়া ধ্বংস করাই তার উদ্দেশ্য। সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে যথাসময়ে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কে অংশ নিল আর নিল না, তার উপর ভিত্তি করে গণতন্ত্রের সার্টিফিকেট হতে পারে না।
জীবননগর অফিস জানিয়েছে, সারাদেশের ন্যায় জীবননগরে ৫ই জানুয়ারী গনতন্ত্রের বিজয় দিবস উপলক্ষে এক জনসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় জীবননগর বাসষ্ট্যান্ডে বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চে জীবননগর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু মো. আ. লতিফ অমলের সভাপতিত্বে ৫ই জানুয়ারী গনতন্ত্রের বিজয় দিবস উপলক্ষে এক জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত জনসভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ হাজী আলী আজগার টগর। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন জীবননগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক ও পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, থানা আওয়ামী লীগের সিনিয়ার সহ-সভাপতি বজলুর রহমান, উথলী ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আঃ হান্নান, রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান তাহাজ্জদ মির্জা, আন্দুলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তার হোসেন, পারকৃষ্ণ মদনা ইউপি চেয়ারম্যান জাকারিয়া আলম, সীমান্ত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আঃ মালেক মোল্লা, উথলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন খান, হাসাদহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রবি বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন জালাল, যুবলীগ নেতা আঃ সালাম ঈশা, খাইরুল বাশার শিপলু, শাহ শরিফুল ইসলাম ছোটবাবু, জীবননগর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি ও প্যানেল মেয়র সোয়েব আহম্মেদ অঞ্জন, সাধারণ সম্পাদক ওয়াসিম রাজা, পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল আলম মানিক, ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসানসহ আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত সদস্য লিটন মোল্লা, আওয়ামী লীগ নেতা শাখাওয়াত হোসেন ফরজ, ইনামুল, শিক্ষক আঃ সামাদ, যুবলীগ নেতা মজিবার রহমান, ফয়সাল ইকবাল, খসরু, মহিলানেত্রী রেনুকা, চামেলী, ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী হাসান, রফিকুল ইসলাম, মিল্টন, আসাদ, মিঠু, রাজিব, আরিফসহ উপজেলার আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত করেন বাঁকা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক রাজু আহম্মেদ। উক্ত অনুষ্ঠানটি সার্বিক পরিচালনা করেন যুবলীগ নেতা আ.ফ.ম সালাউদ্দিন ও আঃ সালাম ঈশা।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সাফল্য ও সমৃদ্ধি অর্জনের ধারাবাহিকতা রক্ষা ও ৫ই জানুয়ারি গনতন্ত্র উত্তরন দিবস উপলক্ষে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আলোচনা সভার অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে পৌর কমিউনিটি হলরুমে মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক ফরহাদ হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এম.এ খালেক, সহ-সভাপতি ও পিরোজপুর ইউপি আব্দুস সামাদ বাবলু বিশ্বাস, আব্দুল হালিম, আমঝুপি ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন চুন্নু, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি এম.কে আজাদ সাগর, জেলা যুব মহিলালীগের সভানেত্রী সামিউন বাসিরা পলি, পিরোজপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুস ছালাম, রেজাউল মাস্টার প্রমূখ।
এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন জেলা জজ আদালতের পিপি অ্যাড. পল্লব ভট্টাচার্য, বুড়িপোতা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ জামান, মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিয়াউদ্দীন বিশ্বাস ও সাধারণ সম্পাদক ও মহাজনপুর ইউপি চেয়ারম্যান আমাম হোসেন মিলু, জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদিকা শামীম আরা হীরা, গাংনী উপজেলা যুব মহিলালীগের সভানেত্রী সাহানা ইসলাম সান্তনা, বারাদি ইউনিট আওয়ামী লীগের সভাপতি শামীম ফেরদৌসসহ আওয়ামী লীগের সকল ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা।
অনুষ্ঠানের সার্বিক সঞ্চালনায় ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধাররণ সম্পাদক এ্যাড. ইব্রাহীম শাহীন।
অপরদিকে, ৫জানুয়ারী ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ৩য় বর্ষপূর্তি ও গণতন্ত্রের বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে মেহেরপুরে বিজয় র‌্যালি ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ছাত্রলীগ। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে সরকারি কলেজ চত্ত্বর থেকে একটি বিজয় র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিতে নেতৃত্ব দেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কুদরত-ই খোদা রুবেল। র‌্যালিটি শহরের কলেজমোড় এলাকার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সিনিয়র সহ-সভাপতি তারিকুল ইসলাম, শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাকসেদুল হাসান মিথেন, কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুনায়েদ ইমতিয়াজ জুলফিকার, ছাত্রলীগ নেতা শোভন সরকার, সাদ্দাম, সজল, তুহিন সুমন, শাকিলসহ ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা র‌্যালি ও সমাবেশ উপস্থিত ছিলেন।
ঝিনাইদহ অফিস জানিয়েছে, ঝিনাইদহে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করেছে জেলা আওয়ামী লীগ। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে শহরের এইচএসএস সড়কের জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ্যাড. আজিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগ নেতা তৈয়ব আলী জোয়ার্দ্দার, মাসুদ আহম্মেদ সঞ্জু, অশোক ধর, আছাদুজ্জামান আছাদ, গোলাম সরওয়ার সউদ, মঞ্জুর পারভেজ তুষার, জাহাঙ্গীর হোসাইন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সরওয়ার জাহান বাদশা, আশরাফুল আলম, ছাত্রলীগ নেতা রানা হামিদ প্রমূখ। সেসময় বক্তারা বলেন, আ.লীগ সব সময় এ দেশে গণতন্ত্র রক্ষার জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করে গণতন্ত্র রক্ষা করেছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে এ দেশের আপামর জনগণ মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে এ দেশের স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণতন্ত্র রক্ষায় ৫ জানুয়ারি সংসদ নির্বাচন করে এ দেশকে জামায়াত-বিএনপি’র সন্ত্রাস বাহিনী ও নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টাকে পতিহত করে গণতন্ত্রকে রক্ষা করেছিলেন। বক্তারা আরও বলেন, জামায়াত-বিএনপি এখনো চক্রান্ত করে চলেছে, জামায়াত-বিএনপি’র এ সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যর বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতিহত করতে হবে।