চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ২ নভেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গা মেহেরপুর ও ঝিনাইদহসহ সারাদেশে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা শুরু প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়া প্রতিরোধে নেয়া হয়েছে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা : শিক্ষামন্ত্রী

সমীকরণ প্রতিবেদন
নভেম্বর ২, ২০১৬ ১২:৫৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

14956015_193283214455825_8092593585388820044_n

সমীকরণ ডেস্ক: সারাদেশে গতকাল মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা। এবার ২৪ লাখ ১২ হাজার ৭৭৫ জন শিক্ষার্থী এ পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। দেশের ২ হাজার ৭৩৪টি কেন্দ্রে আজ থেকে শুরু হওয়া জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।  প্রথম দিন জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেটে (জেএসসি) বাংলা প্রথম পত্র এবং জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেটের (জেডিসি) কুরআন মাজীদ ও তাজবিদ বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আজ পরীক্ষা শুরুর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় রাজধানীর ধানমণ্ডি সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন শিক্ষামন্ত্রী। কেন্দ্র পরিদর্শন করলেও কোনো হলে প্রবেশ করেননি নুরুল ইসলাম নাহিদ। জেএসসিতে আট বোর্ডের অধীনে এবার ২০ লাখ ৩৮ হাজার ৩০৩ জন এবং জেডিসিতে মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে ৩ লাখ ৭৪ হাজার ৪৭২ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। গত ২০১৫ সালের তুলনায় এবার পরীক্ষার্থী ৮৬ হাজার ৮৪২ জন বেড়েছে। এবার জেএসসিতে ১ লাখ তিন হাজার ৬৫৩ জন ও জেডিসিতে ১৮ হাজার ২১ হন অনিয়মিত পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। এছাড়া বিদেশের আটটি কেন্দ্রে এবারের জেএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন ৬৮১ জন শিক্ষার্থী। বাংলা দ্বিতীয় পত্র, ইংরেজি প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র ছাড়া অন্য বিষয়ের পরীক্ষা সৃজনশীল প্রশ্নে নেওয়া হবে। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে উপস্থিত হতে হবে। প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থীরা এবারও অতিরিক্ত ২০ মিনিট সময় পাবে। এছাড়া দৃষ্টি প্রতিবন্ধী, সেরিব্রাল পালসিজনিত প্রতিবন্ধী এবং যাদের হাত নেই, তারা শ্রুতিলেখক সঙ্গে নিয়ে পরীক্ষা দিতে পারবে। জেএসসি ও জেডিসিতে বহু নির্বাচনী ও সৃজনশীল প্রশ্নপত্রে দুটি বিভাগ থাকলেও দুটি অংশ মিলে ৩৩ পেলেই পাস বলে গণ্য হবে। অর্থাৎ এসএসসির মতো দুটি অংশে আলাদা পাসের প্রয়োজন নেই। এবারের জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা আগামী ১৭ নভেম্বর শেষ হবে।
আমাদের শহর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, সারাদেশের মতো চুয়াডাঙ্গাতেও একযোগে জেএসসি, জেডিসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। জেলায় এবছর ২৮টি কেন্দ্রে ১৮ হাজার ৯৭৪ পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করছে। এর মধ্যে জেএসসি পরীক্ষায় ১৬টি কেন্দ্রে ১৫ হাজার ১৮০, জেডিসি পরীক্ষায় ৫টি কেন্দ্রে ২ হাজার ৫৯ এবং কারিগরি বোর্ডের অধীনে ৭টি কেন্দ্রে ১ হাজার ৭৩৫ পরীক্ষার্থী রয়েছে। মঙ্গলবার সকালে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুস, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) আনজুমান আরা ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কেএম মামুন উজ্জামান ও চুয়াডাঙ্গা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ভি জে সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, চুয়াডাঙ্গা আলিয়া মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন।
জীবননগর অফিস জানিয়েছে, সারাদেশের ন্যায় এক সাথে জীবননগর উপজেলায় ৮টি কেন্দ্রে ও ২টি ভেন্যুতে ৩হাজার ১শ ৩৬জন ছাত্র/ছাত্রীদের নিয়ে শুরু হয়েছে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা। জানা গেছে, গতকাল সারাদেশে এক সাথে কঠোর নিরাপত্তা মধ্যে দিয়ে  জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হযেছে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা উপলক্ষে জীবননগর উপজেলার ৯টি কেন্দ্র পরিদর্শন করেন জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু মো.আ. লতিফ অমল ও জীবননগর উপজেলা কৃষি অফিসার মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ। এদিকে জীবননগর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের তথ্যনুসারে এ বছর জীবননগর উপজেলায় ৮টি কেন্দ্রে ও ২টি ভেন্যুতে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ বার মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৩হাজার ১শ ৩৬ জন যার মধ্যে জেএসসিতে অংশ গ্রহন করছে ২হাজার ৩শ২৫জন এবং অনুপস্থিত আছে ৫৭জন এবং জেডিসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করেছে ৩শ৯৬জন যার মধ্যে অনুপস্থিত আছে ১৪জন। এদিকে একই দিনে কারিগারি শাখা ভোকেশনালে নবম শ্রেণীর বোর্ড ফাইনাল পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৪শ ১৬জন অনুপস্থিত আছে ৮জন।
দর্শনা অফিস জানিয়েছে, সারাদেশের সাথে গতকাল দর্শনায় শান্তিপূর্ণভাবে জেএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। দর্শনা মেমনগর বিডি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও দর্শনা বালিকা বিদ্যালয়ে জেএসসি বাংলা ১ম পত্র পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ বছর দর্শনার দুইটি কেন্দ্রে ৮৩৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৮২১ পরীক্ষার্থী বাংলা ১ম পত্র পরীক্ষায় অংশ নিলেও ১৫ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দেওয়া থেকে বিরত ছিল। মেমনগর বিডি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দর্শনা বালিকা বিদ্যালয়, কামারপাড় মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বড় বলদিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৪৩১জন ছাত্র/ছাত্রী এবং দর্শনা বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে  ৪০৫জন পরীক্ষায় অংশ নেয়। এদের মধ্যে ছাত্রী সংখ্যা ৪৪২জন এবং ৩৯৪জন ছাত্র রয়েছে। এদের মধ্যে ১৫জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দেওয়া থেকে বিরত ছিল। সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ পরিবেশে এ জেএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় বলে প্রধান শিক্ষক নাসীর উদ্দিন ও হুমায়ন কবির জানান।
মেহেরপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, সারা দেশের ন্যায় মেহেরপুরেও জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট ( জেডিসি) পরীক্ষা শুরু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার পরীক্ষার প্রথমদিনে রুটিন অনুযায়ী শিক্ষার্থীরা বাংলা পরীক্ষা দেয়। এবছর জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট  (জেএসসি) পরীক্ষায় মেহেরপুর জেলার বিভিন্ন স্কুলের ৯ হাজার ৯শত ২১ শিক্ষার্থী ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষায় ৮ শ ৪০ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহন করেছিল। এদিকে মেহেরপুর জেলা প্রশাশক পরিমল সিংহ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) শেখ ফরিদ আহমেদ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) শুভ্রা দাস বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। পরীক্ষায় মেহেরপুর সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের অধিনে কবি নজরুল শিক্ষা মঞ্জিল ও জিনিয়াস ল্যাবরেটরি স্কুল ও কলেজে ১ হাজার ৬ শ ৫৪ জন, মেহেরপুর সরকারী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় এর অধিনে মাধ্যমিক বালিক্ াবিদ্যালয়ে ১ হাজার ১শ ১২ জন, আমঝুপি মাধ্যমিক ও বালিকা বিদ্যালয়ে ১ হাজার ২শ ৫০ জন, গাংনী পাইলট বিদ্যালয়ে ৮শ ৯৮ জন, গাংনী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৮শ ৩০ জন, বামুন্দি নিশিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বামুন্দি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১ হাজার ৭শ ৭২ জন, জুগিরগোফা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ও মানিকনগর ডিএসএ আলিম মাদ্রাসায় ১ হাজার ৫শ ৩১ জন এবং সাহেবনগনর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ২শ ৯ জন শিক্ষার্র্থী অংশ গ্রহন করেছে।
গাংনী অফিস জানিয়েছে, মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার সারাদেশের ন্যায় অনুষ্ঠিত জেএসি পরীক্ষার উপজেলার বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন মেহেরপুর জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ ও গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফ-উজ-জামান। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে প্রথমে গাংনী পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মনিরুল ইসলাম, কেন্দ্র সচিব আশরাফুজামান লালু ও হল সুপার মিজানুর রহমান। পরে গাংনী পাইলট স্কুল এন্ড কলেজ ও মাদ্রাসা পরিদর্শন করেন। এদিকে গাংনী উপজেলা সব কয়টি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফ-উজ-জামান। তিনি জুগিরগোফা, গাংনীর দুটি ও বামন্দী কেন্দ্র পরিদর্র্শন করেন। গাংনীতে কোন ধরনের অপ্রতিকর ঘটনা ছাড়াই গতকালের পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।