চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ২ জানুয়ারি ২০১৮
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাদের নিন্দা ও প্রতিবাদ : গ্রেফতার আতঙ্কে ছাত্রনেতারা

সমীকরণ প্রতিবেদন
জানুয়ারি ২, ২০১৮ ১২:৩৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

কেক কাটা, র‌্যালি ও আলোচনার সভার মধ্যদিয়ে মেহেরপুর ও ঝিনাইদসহ সারাদেশে ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত
চুয়াডাঙ্গায় পুলিশ-ছাত্রদল সংঘর্ষ : ৬ পুলিশসহ আহত অর্ধশতাধিক : ২৫০ জনের বিরুদ্ধে মামলা
ডেস্ক রিপোর্ট: নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে সোমবার সারাদেশে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে কেক কাটা, আলোচনা সভা, বর্ণাঢ্য র‌্যালি, বিচ্ছিন্ন সহিংসতা এবং পুলিশি হামলার মধ্যে ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। চুয়াডাঙ্গাতে শোভাযাত্রার প্রস্তুতিকালে ছাত্রদলের নেতাকর্মিদের উপর লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশসহ আহত হয় ছাত্রদলের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মি। মামালও হয়েছে আড়াইশো জনের বিরুদ্ধে।
আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক জানিয়েছে, চুয়াডাঙ্গায় ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শোভাযাত্রার প্রস্তুতির সময় পুলিশ লাঠিচার্জ করেছে। এসময় ছাত্রদলের জেলা আহ্বায়ক শরীফ-উর জামান সিজারসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। আহতদেরকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এসময় পুলিশের ৬ কর্মকর্তা আহত হয়েছে বলে দাবি করেন থানার ওসি। গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহরের শ্রীমন্ত টাউন হলে এই হামলার ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা জানায়, ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সোমবার সকাল থেকেই চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদলের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা শহরের শ্রীমন্ত টাউন হল চত্বরে সমাবেত হতে থাকে। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শ্রীমন্ত টাউন হল চত্বর হতে বর্ণাঢ্য র‌্যালির প্রস্তুতিকালে উস্কানিমুলকভাবে সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যবৃন্দ ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের উপর হামলা করে। এসময় জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক শরিফ উর জামান সিজার এবং বকুল হোসেনকে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়ার সময় ছাত্রদের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে ছাত্রদলের প্রতিরোধের মুখে গ্রেফতারকৃতদের ছেড়ে দিতে পুলিশ বাধ্য হয়। পরে বিনা উস্কানিতে শ্রীমন্ত টাউন হলের ভিতরে ঢুকে অবস্থানরত ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের উপর বেধড়ক লাঠিচার্জ করতে থাকে। এতে জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক শরিফ উর জামান সিজারসহ প্রায় অর্ধশতাধিক আহত হয়। আহতদেরকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এ্যাডভোকেট ওয়াহেদুজ্জামান বুলা জানান, পুলিশ শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে উস্কানিমূলক লাঠিচার্জ করে করেছে। চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির অপর যুগ্ম আহ্বায়ক মজিবুল হক মজু জানান, সরকার বিএনপিকে ভয় পাই বলে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পেটুয়া পুলিশ বাহিনী দিয়ে হামলা চালিয়েছে। হামলার পর ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভার মঞ্চও পুলিশ ভাঙচুর করে। চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক শরীফ উর জামান সিজার জানান, পুলিশ যেভাবে আমাদের উপর হামলা চালিয়েছে তা মধ্যযুগীয় বর্রবতাকেও হার মানিয়েছে। এ ব্যাপারে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তোজাম্মেল হক বলেন, গোপনে আমাদের কাছে খবর আসে যে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা শহরে শোভাযাত্রা বের করার নামে নাশকতার পরিকল্পনা ছিল। এজন্য তাদেরকে বের না হওয়ার জন্য বাধা দেয়া হয়।
এই ঘটনার পর তাৎক্ষনিকভাবে এক প্রতিবাদ কর্মসুচি পালন করে জেলা ছাত্রদল। জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম-আহ্বায়ক এম এ তালহার সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন সোহেল আহমেদ মালিক সুজনসহ ছাত্রদলের নেতা-কর্মিরা। সভায় বক্তারা জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক শরিফ উর জামান সিজারসহ অন্যান্য নেতা-কর্মিদের উপরে পুলিশের নগ্ন হামলার তীব্র নিন্দা জানান।
এদিকে, এ সংঘর্ষের ঘটনায় জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক শরীফ উর জামান সিজারসহ ২৫০ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। গতকাল সোমবার রাতে পুলিশের ওপর হামলা ও সরকারি কাজে বাধাদানের অভিযোগ এনে মামলাটি দায়ের করেন সদর থানার উপ-পরিদর্শক মিজানুর রহমান। মামলায় আহ্বায়ক সিজারের নামসহ ২৮ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। বাকীদের অজ্ঞাত দেখানো হয়েছে। মামলায় অভিযোগ আনা হয়েছে, সোমবার সকাল থেকেই ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা লাঠিসোটা নিয়ে শহরের শ্রীমন্ত টাউন হল চত্বরে সমাবেত হতে থাকে। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ২’শ থেকে ৩’শ জন নেতাকর্মী শহরে শোভাযাত্রা বের করতে চাইলে পুলিশ তাতে বাধা দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা লাঠিসোটা ও ইট পাটকেল নিয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এতে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (অপরাশেন) আমির আব্বাসসহ ৬ পুলিশ সদস্য আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে।
নিন্দা ও প্রতিবাদ: এ ঘটনায় পুলিশের ওপর হামলা ও সরকারি কাজে বাধাদানের অভিযোগ এনে দন্ডবিধির ১৪৩/৩৩২/৩৩৩/৩৫৩/৩০৭ ধারায় মামলাটি রেকর্ড করা হয়। যার নং ১। চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তোজাম্মেল হক মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, পুলিশের ওপর হামলা মামলার আসামিদের গ্রেফতার করতে শহরে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।
এদিকে ছাত্রদলের নেতা-কর্মিদের উপর পুলিশের ন্যাক্কারজনক হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছেন, জেলা বিএনপির ১নং যুগ্ম-আহ্বায়ক মাহমুদ হাসান খান বাবু, যুগ্ম-আহ্বায়ক এ্যাড. ওয়াহেদুজ্জামান বুলা, খন্দকার আব্দুল জব্বার সোনা, মজিবুল হক মালিক মজুসহ জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ।
এছাড়া ছাত্রদলের নেতা-কর্মিদের উপর পুলিশের লাঠিচার্জ ও হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছেন, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য জেলা বিএনপি নেতা শরীফুজ্জামান শরীফ।
অপরদিকে চুয়াডাঙ্গায় আলোচনা সভা ও কেক কাটার মধ্যে দিয়ে পালিত হয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ৭টার সময় চুয়াডাঙ্গা বড় বাজারস্থ রজব আলী সুপার মার্কেটে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে এ দিবসটি পালন করে চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদল। জেলা ছাত্রদলের অন্যতম সদস্য আরিফ আহমেদ শিপ্লবের সভাপত্বিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রদলের সদস্য রিন্টু মহলদার। প্রধান অতিথি তার বক্তব্য বলেন, বর্তমান ফ্যাসিবাদী সরকারের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করতে ছাত্রদলের নেতাকর্মিদের প্রস্তুত থাকতে হবে। কেন্দ্রীয় সংসদের বিপ্লবী সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসেন মিন্টুসহ সকল নেতাদের বিরুদ্ধে হামলা ও মামলা বন্ধ করে নি:শর্ত মুক্তির দাবি জানান। সেইসাথে চুয়াডাঙ্গায় শোভাযাত্রার প্রস্তুতিকালে ছাত্রদলের নেতাকর্মিদের উপর পুলিশি হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
অনুষ্ঠান বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আবু বকর সিদ্দিক, পৌর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি রাফাতুল্লাহ মহলদার, পৌর বিএনপির সহ-সভাপতি খাইরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম পিটু, যুগ্ম আবুল কালাম আজাদ, জেলা যুবদলের অন্যতম সদস্য মনিরুজ্জামান লিপটন, জেলা জাসাস এর সাধারণ সম্পাদক সেলিমুল হাবিব সেলিম, সুমন পারভেজ, জেলা তরুণ দলের আহ্বায়ক মাবুদ সরকার, আব্দুল হান্নান, শামসুল হক ঝন্টু। এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন শাহজামাল হোসেন, নিশান সিদ্দিক, শাহজামাল হোসেন, পিয়াস, সামিউল, লিয়ন, আরাফাত, সীমান্ত, সাহস, রাব্বি, মেজবাহ, জুনায়েদ, হৃদয়, বাবুল, শাওন, শাহরুখ, লমি, মিল্টন, নোমান, রাসেল, নাহিদ, শাওন, বিদ্যুৎ, সাকিব, সামস্, সজিব, রিয়াদ, সৈকত, শাফীন, সাব্বির, আকুল, একরামুলসহ ছাত্রদলের বিভিন্ন ইউনিটের অসংখ্যা নেতাকর্মীরা। ছাত্রদল নেতা শাহাবুদ্দিন আহমেদের সার্বিক তত্বাবধায়নে অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন জেলা ছাত্রদলের অন্যতম নেতা শাকিল আহমেদ নাঈম।
অন্যদিকে, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেছে চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদল। এ উপলক্ষে গতকাল সোমবার বিকালে চুয়াডাঙ্গা শহরের অভিজাত সানডিয়ান চাইনিজ রেস্টুরেন্টে কেক কাটা ও আলোচনার সভার আয়োজন করে। চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদলের অন্যতম সদস্য আশিকুল হক শিপলুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক তানভীর আহমেদ রাজীব। প্রধান অতিথি তার বক্তব্য অবিলম্বে বাংলামেধ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের বিপ্লবী সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসেন মিন্টুসহ সকল নেতাদের বিরুদ্ধে হামলা ও মামলা বন্ধ করে সুষ্ঠ ও গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক পরিবেশ সৃষ্টি করার জন্য বর্তমান সরকার ও প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্র্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করেন। এসময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রদলের সাবেক প্রচার সম্পাদক হামিদুল হক টুটুল, জেলা ছাত্রদলের সদস্য হামিদ উদ্দিন বাবু, গোলাম শাহরিয়ার বিপ্লব, সাবেক ছাত্রনেতা আব্দুর রশিদ, সরোয়ার হোসেন, রাকিবুল ইসলাম রাকিব, শমসের শেখ, শাকিল আহমেদ, দেলাওয়ার, তামিম, মনিরুল, বাবু, শরীফ প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ছাত্রনেতা সাকিব উর রেজা কানন।
এদিকে, চুয়াডাঙ্গায় কেক কাটা, র‌্যালি ও আলোচনার নভার মধ্যে দিয়ে ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করেছে চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদর। গতকাল সোমবার সূর্য উদয়ের সাথে সাথে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। এরপর সকাল সাড়ে ১০ টার সময় বর্ণাঢ্য র‌্যালী, ও আলোচনা সভাঅনুষ্ঠিত হয়। জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম-আহবায়ক জাহেদ মো. রাজীব খানের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা বিএনপি আহবায়ক মুহা. অহিদুল ইসলাম বিশ্বাস। বিশেষ অতিথি থেকে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য হাবিবুর রহমান হবি, সদস্য হাজী রবিউল ইসলাম বাবলু, পৌর বিএনপি সভাপতি আওরোঙ্গজেব বেল্টু, জেলা যুবদল আহবায়ক খালিদ মাহমুদ মিল্টন, সদস্য সচিব সাইফুর রশিদ ঝন্টু, জেলা ছাত্রদল সদস্য আমির হোসেন, হুমায়ন কবির আকাশ, ইকবাল হোসেন, সোহেল। ছাত্রনেতা সোহাগ, মেহেদি, সাইফুল, আরিফ, মাহবুব, আরিফুর, স্কয়ার, শাকিল, জুয়েল সহ আরো অনেকে। আরো উপস্থিত ছিলেন পদ্মবিলা ইউনিয়ন বিএনপি সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান আবুতাহের, খাদিমপুর ইউনিয়ন বিএনপি সভাপতি শেরেকুল, কুতুবপুর ইউনিয়ন বিএনপি সভাপতি একরামুল হক, আলুকদিয়া ইউনিয়ন বিএনপি সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান। জেলা সেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক হাজী মান্নান, জেলা তরুন দলের যুগ্ম-আহবায়ক সাইদুর রহমান, পৌর যুবদল যুগ্ম আহবায়ক আজিজুল হক, সালমান হক উজ্জ্বল, ছাত্রদল নেতা মাসুম খান, মিশা, রকিবসহ আরো অনেকে। প্রধান অতিথি তাহার বক্তব্যে বলেন ছাত্রদলের আছে গৌরবময় অতীত। কর্মমুখর বর্তমান ও পরিকল্পিত ভবিষ্যত ছাত্রদলই বেগম জিয়ার মনোবল তারেক রহমানের বাহুবল রাজপথে আন্দোলনের জন্য উপযুক্ত দল। তাই তোমাদেরকেই দায়িত্ব নিতে হবে আন্দোলনের। আন্দোলন ছাড়া বিকল্প কোন রাস্তা নেই। তাই তিনি ছাত্রদলকে আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত হতে হবে।
দামুড়হুদা প্রতিনিধি জানিয়েছে, দামুড়হুদা উপজেলা ছাত্রদলের আয়োজনে ছাত্রদলের ৩৯ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে। সকাল সাড়ে ১০ টায় দামুড়হুদা হাসপাতাল সড়কে বিএনপি’র দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কার্যাক্রম শুরু হয়। পতাকা উত্তোলন শেষে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা একটি র‌্যালী বের করেন। র‌্যালী শেষে দলীয় কার্যালয়ে ছাত্রদলের ৩৯ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটা হয়। পরে সেখানে উপজেলা ছাত্রদলের অন্যতম নেতা মাহফুজুর রহমান মিল্টনের সভাপতিত্বে ও আরিফুল ইসলাম আরিফের সঞ্চালনায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল হাসান তনু। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা দলের সভানেত্রী ও দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছালমা জাহান পারুল, দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আব্দুর রহমান মালিথা, হাউলী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াহেদ। এছাড়া আরও বক্তব্য রাখেন ছাত্রনেতা জাহিদুল ইসলাম, কবির, জনি, সবুজ, ইজাজুল, ডলার, রানা প্রমুখ।
দর্শনা অফিস জানিয়েছে, ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে দর্শনায় পৌর ও কলেজ ছাত্রদল। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে দর্শনা রেলবাজার পৌর বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা ছাত্রদলের নির্বাহী সদস্য নাশির উদ্দিন খাঁন হাসুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন দর্শনা পৌর বিএনপির সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান বুলেট, সাবেক কাউন্সিলর ফারুক হোসেন। প্রধান অতিথি বক্তব্যে বলেন, দেখতে দেখতে ছাত্রদলের গৌরবোজ্জল পথচলার ৩৯বছর পেরিয়ে গেল। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে দর্শনা পৌর ও কলেজ ছাত্রদলের ডাকে আজ যেমন আপনারা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একত্রিত হয়েছেন ঠিক তেমনি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার হাতকে শক্তিশালী করতে আপনারা সকলে আন্তরিকতার সাথে কাজ করে যাবেন। এছাড়া অনুষ্ঠানে দর্শনা পৌর বিএনপির পক্ষে উপস্থিত ছিলেন মমিনুল ইসলাম, লুৎফর রহমান। যুবদলের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন জালাল উদ্দিন লিটন, সরোয়ার। ছাত্রদলের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন তরিকুল, আকাশ, সুজন, হুসাইন, সাইফুল, স্বপন, মোমিন, নিশান, নাদিম, হারুন, জাকারিয়া বিদ্যুৎ, রাব্বি, শান্ত প্রমুখ। আলোচনা সভার পর নেতৃবৃন্দরা কেক কেটে অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠিনকতা শেষ করেন। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন জাহান আলী।
অপরদিকে, সারা দেশের ন্যায় দর্শনায় ছাত্রদলের ৩৯ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় দর্শনা রেলবাজারে অস্থায়ী কার্যালয়ে কেক কাটার মধ্য দিয়ে এ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়। জেলা ছাত্রদলের সদস্য রকিবুল হাসান ব্রাইটের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থেকে বক্তব্য রাখেন ছাত্রদল নেতা আব্দুল মান্নান, প্রধান বক্তা হিসাবে বক্তব্য রাখেন যুবদলের অন্যতম সদস্য জালাল উদ্দিন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন আরিফ, মামুন, সবুজ, মুফা, শাওন, সাজু, স্বজল, অমিও, মিরাজ, সালেহ, সজিব, রাকিবুল প্রমুখ।
জীবননগর অফিস জানিয়েছে, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেছে জীবননগর উপজেলা ছাত্রদল। গতকাল সোমবার বিকাল ৩টার সময় জীবননগর উপজেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে পৌর কলেজ শাখার পক্ষ থেকে কেক কাটার মধ্য দিয়ে এ দিবসটি পালিত হয়েছে। ছাত্রদল নেতা হাসানুজ্জামানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাহতাব উদ্দীন চুন্নু। প্রধান অতিথি বলেন, বর্তমান এ ফ্যাসিবাদী সরকারকে পতনের জন্য ছাত্রদলকে বড় ভূমিকা নিতে হবে। সামনে আসছে গণতন্ত্র পুনঃ উদ্ধারের আন্দোলন সংগ্রামে ছাত্রদলকে সুসংগঠিত হওয়ার আহ্বান জানান তিনি। এতে তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের সমালোচনা করে বলেন, গণতন্ত্র ধংস করে সরকার লুটতারাজে ব্যস্ত। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম অসহনীয় পর্যায়ে বলে উল্লেখ করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তাজুল ইসলাম, পৌর কাউন্সিলর হযরত আলী। আরও উপস্থিত ছিলেন সাবেক ছাত্র নেতা রাজা মালিতা, ছাত্রদল নেতা কাজী সুমেনুন শান্ত, ভূট্টো, হাসান, মামুন, জিহাদ, তুষার, জুয়েল, মুরাদ, আল-ফায়েদ, রুবেল, সাজ্জাদ, হাবিবুর, নাহিদ, নাজমুল, ফিরোজ, বাপ্পা, শামীম, মেহেদী সহ আরও অনেকে। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ছাত্রদল নেতা রয়েল।
মেহেরপুর প্রতিনিধি জানিয়েছে, আলোচনা সভা ও কেক কাটার মধ্য দিয়ে মেহেরপুরে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ৩৯ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করা হয়েছে। গতকাল সোমবার বিকালে জেলা বিএনপি’র দলীয় কার্যালয়ে জেলা ছাত্রদলের নেতা আহম্মেদ রাজিবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. মারুফ আহম্মদ বিজন। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি শেখ সাঈদ আহম্মেদ, বিএনপি’র সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ^াস, জেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক রোমানা আহম্মেদ, মুজিবনগর উপজেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রশিদ। এ ছাড়া অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রদল নেতা নাজমুল হোসেন, রজিব শেখ, শিমূল বিশ^াস,মোনায়েম খান, রাজন, সুজন, মাবুদ, রনি, সোহাগ, তপু, রাজন, রফিক সহ ছাত্রদলের নেতা-কর্মিরা।
ঝিনাইদহ অফিস জানিয়েছে, ঝিনাইদহ কোটচাঁদপুর পৌরশাখা ছাত্রদলের আয়োজনে অত্যন্ত আননদঘন পরিবেশে কোটচাঁদপুর বাজারচত্বর প্রধান কার্যলয়ে ছাত্রদলের ৩৯ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা সাতটা সময় ছাত্রদলের কার্যলয়ে কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এই সময় পৌর ছাত্রদলের সভাপতি বাঁধন রাজবীর নিশুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও ঝিনাইদহ-৩ আসনের মনোয়ন প্রত্যাশী আমিরুজ্জামান খাঁন শিমুল, সাবেক পৌর মেয়র ও পৌর বিএনপি সভাপতি এস,কে,এম সালাহ্উদ্দীন বুলবুল সিডল, পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন খোকন, থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুকুল আলম শিখা। এছাও উপস্থিত ছিলেন পৌরশাখা ছাত্রদলের ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মির্জা টিপু, সাধারণ সম্পাদক রকিব উদ্দীন, থানা ছাত্রদলের নেতা হূমায়ুন কবির ভূঁইয়া হীরা, মুকুল, পৌর ছাত্রদলের নেতা করিম, শাওন হোসেন কালু, মো. আকিমুল ইসলাম, সম্রাটসহ অংঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।