চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদ কর্তৃক গরিব মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষা বৃত্তি চেক প্রদান অনুষ্ঠানে হুইপ ছেলুন এমপি

909

porisod porisod (2) jela porisodনিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদ কর্তৃক গরিব মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে শিক্ষা বৃত্তি চেক প্রদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সকাল সাড়ে ১০টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদ চত্বরে পরিষদের প্রশাসক মাহফুজুর রহমান মঞ্জুর সভাপতিত্বে শিক্ষা বৃত্তি চেক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের মাননীয় হুইপ ও চুয়াডাঙ্গা গণমানুষের বীরমুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, শিক্ষার্থী, অভিভাবক শিক্ষকদের উদ্দ্যেশে বলেন আওয়ামীলীগ সরকার শিক্ষা বান্ধব সরকার। তিনি বলেন ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করার পর দেশরতœ শেখ হাসিনা এসএসসি/মেট্রিক পর্যন্ত পড়াশোনা ফ্রি করেছিলো এবং বইও ফ্রি দিয়েছিলো। কারণ বাংলাদেশের ছেলে-মেয়েরা শিক্ষিত হয়ে বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা গড়ার কারিগর হতে পারে। ২০০৮ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করে প্রায় পাচ হাজার রেজিষ্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করেন। আলমডাঙ্গা পাইলট বিদ্যালয়কে ইতোমধ্যে সরকারি করণের ঘোষণা হয়েছে। মেধাবী গরীব শিক্ষার্থীদের হাতে কলমে শিক্ষা দেওয়ার জন্য যুব উন্নয়ন ও টেকনিকাল টের্নিং সেন্টার স্থাপন করেছে বর্তমান সরকার। চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, ঝিনাইদহ, কুস্টিয়া ও যশোরসহ খুলনা বিভাগের যারা মেধাবী শিক্ষার্থীরা হয়েও বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাচ্ছে না তাদের কথা ভেবে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই বিভাগে প্রথম পূর্ণাঙ্গ বে-সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ঋরৎংঃ ঈধঢ়রঃধষ টহরাবৎংরঃু এর অনুমোদন দেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী হামীম হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুস, চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান, সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম নওশের ও সাবেক অধ্যক্ষ সিদ্দিকুর রহমান। চুয়াডাঙ্গা জেলার প্রত্যেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেম্বারবৃন্দ এই শিক্ষা বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। অতিথিদের বক্তব্য শেষে ২৫০জন গরিব মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের উদ্দ্যেগে শিক্ষা বৃত্তি চেক প্রদান করেন আমন্ত্রিত অতিথিরা। অনুষ্ঠানটি সনঞ্চালনা করেন অধ্যাপক মুন্সী আবু সাইফ।