চুয়াডাঙ্গা গোপালপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাড়িঘর ভাংচুর ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জখম ১: উভয় পক্ষের মামলা দায়ের

286

নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার গোপালপুর গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাড়িঘর ভাংচুরসহ ইবাদত মন্ডল (৬০) নামের এক বৃদ্ধাকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষরা। আহত ইবাদত মন্ডল সদর উপজেলার গোপালপুর গ্রামের পুরাতন পাড়ার মৃত. খোকাই মন্ডলের ছেলে। গত ২৫ জুন চাঁদরাতে ২টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় উভয়পক্ষ থানায় মামলা দায়ের করেছে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গত ২৬ জুন চাঁদরাতে গোপালপুর গ্রামের কিছু যুবক পাশের গ্রাম পিরোজপুরে পিকনিক করছিল। হঠাৎ কোন এক বিষয় নিয়ে নিজেদের ভিতরে বাকবিতন্ডা হয়। এরই জের ধরে ওই রাতেই প্রতিপক্ষরা আরমান আলীর বাড়ি, রমজান মালিতার ছেলে মনোয়ারের বাড়ি ও জারমান আলীর ছেলে সেকেন্দারের দোকানঘর ভাংচুরসহ ইবাদত মন্ডলকে কুপিয়ে জখম করে। পরে স্থানীয়রা ইবাদত মন্ডলকে উদ্ধার করে চুয়াড্যঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।
আরমান আলী জানান, গভীর রাতে গোপালপুর গ্রামের মৃত ইব্রাহিমের ছেলে শান্তি (১৮)ও রুহুল আলী (২০), ছাত্তারের ছেলে শিমুল (১৯), ময়রুদ্দীনের ছেলে শাহজালাল (২০) ও তোতার ছেলে হৃদয় (১৯) সহ ১০/১৫ জন লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে আমার বাসায় ঢুকে আমার ছেলে শামিমের নাম ধরে ডাকাডাকি করে। পরে শামিমকে না পেয়ে বাড়ির আসবাবপত্র ভাংচুর করে চলে যায়। তিনি আরও বলেন, গোপালপুর গ্রামের ইউপি সদস্য আলম ঘটনাস্থলে ছিলেন এবং তার নেতৃত্বে ভাংচুর করা হয়।
এবিষয়ে ইউপি সদস্য আলম বলেন, আমি এ ঘটনাটি শুনেছি কিন্তু ঘটনাস্থলে আমি উপস্থিত ছিলাম না।
এবিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার এসআই সুপ্রভাত মন্ডল ঘরবাড়ি ভাংচুরের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এবিয়য়ে উভয় পক্ষ পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের করেছে। তবে আসামীদের ধরার চেষ্টা চলছে।