চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ১ জুন ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস পালন

২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
জুন ১, ২০২২ ১০:১৪ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ প্রতিবেদন:  চুয়াডাঙ্গা ও ঝিনাইদহের বিভিন্ন স্থানে নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার পৃথক আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ছিল ‘তামাকমুক্ত পরিবেশ, সুস্বাস্থ্যের বাংলাদেশ’।

চুয়াডাঙ্গা:

চুয়াডাঙ্গায় ‘তামাকমুক্ত পরিবেশ, সুস্বাস্থ্যের বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্যে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস-২০২২ উদ্যাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদিক্ষণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান বলেন, ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার যে প্রত্যয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ব্যক্ত করেছেন, সে লক্ষ্যে কাজ করতে হবে। সিভিল সার্জন সাজ্জাৎ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাত রহমান, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আওলিয়ার রহমান, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর সিদ্দিকুর রহমান ও জেলা শিক্ষা অফিসার আতাউর রহমান।

দামুড়হুদা:

‘তামাকমুক্ত পরিবেশ, সুস্বাস্থ্যর বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্যে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস পালন করেছে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টায় দিকে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে একটি র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি হাসপাতালের গেট সংলগ্ন সড়ক ঘুরে হাসপাতালের ভেতর এসে শেষ হয়। পরে হাসপাতালের কনফারেন্স রুমে এক আলেচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবু হেনা জামাল শুভ ও দামুড়হুদা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুদীপ্ত সিংহ রায়। দামুড়হুদা স্যানেটারি ইনসপেক্টর মো. জামাত আলী, ডা. রোকনুরুজ্জামান, সাংবাদিক তৌহিদ তুহিনসহ প্রমুখ।

জীবননগর:

জীবননগরে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে একটি র‌্যালি বের হয়। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সভাকক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজি হাফিজুর রহমান।

বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তিথি মিত্র, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ইশা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকী, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার জাকির হোসেন মোড়ল, উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার সৈয়দ আব্দুল জব্বার, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্যানেটারি ইন্সপেক্টর আনিসুর রহমান, জীবননগর সাংবাদিক সমিতির সভাপতি জি.এ জাহিদুল ইসলাম জাহিদ বাবু ও সাংবাদিক সালাউদ্দীন কাজল। এসময় উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, জীবননগর শাপলাকলি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।

মেহেরপুর:

‘তামাকমুক্ত পরিবেশ, সুস্বাস্থ্যের বাংলাদেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে প্রধানমন্ত্রীর ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মেহেরপুরে র‌্যালি ও আলোচনা সভার মধ্যদিয়ে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস পালিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে মেহেরপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মেহেরপুর জেলা প্রশাসক ড. মোহাম্মদ মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন পিপি পল্লব ভট্টাচার্য, উপজেলা নির্বাহী অফিসা আসাদুজ্জামান রিপন, মেহেরপুর জেলার ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. অলোক কুমার দাস, মেহেরপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আরএমও মকলেছুর রহমান, মেহেরপুর জেলা শিক্ষা অফিসার মাহফুজুল হোসেন, জেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা কাজী কাদের মোহাম্মদ ফজলে রাব্বী, মইনুল আলম প্রমুখ।

আলোচনার সভার আগে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আসরাফুজ্জান ভুঁইয়ার নেতৃত্বে মেহেরপুর সদর উপজেলা পরিষদ থেকে একটি র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মেহেরপুর জেলা প্রশাসককের কার্যালয় চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।

 

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।