চুয়াডাঙ্গায় ২৭৭ ও মেহেরপুরে ১৭৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

424

ট্রাফিক আইন মেনে চলুন, ট্রাফিক পুলিশকে সহায়তা করুন স্লোগানে অভিযান
ডেস্ক রিপোর্ট: চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরে ট্রাফিক সপ্তাহ পালনে এবার রাজপথে নামলো বিভিন্ন কলেজের রোভার স্কাউটের সদস্যরা। গতকাল মঙ্গলবার ট্রাফিক সপ্তাহ’র তৃতীয়দিনে তারা ট্রাফিক পুলিশদের সহযোগিতা করতে মাঠে নামে। শহরের বিভিন্ন সড়কের মোড়ে স্কাউটের পোষাকে তাদের এই দায়িত্ব পালন করেতে দেখা যায়। এছাড়া সকাল থেকে সড়কের বিভিন্ন মোড়ে ট্রাফিক পুলিশের ছোট ছোট অস্থায়ী বুথ দেখা যায়, যে সকল মোটরযানের ড্রাইভারদের কাগজপত্র সঠিক নয় তাদের বুথে নিয়ে কাগজপত্র কেন সঠিক নয় জিজ্ঞাসা করা হয় এবং পরামর্শ দেওয়া হয়। মোটরযানের ফিটনেস, ড্রাইভিং লাইসেন্স আছে কিনা এ বিষয়গুলো ট্রাফিক পুলিশদের সাথে দেখছে রোভার স্কাউটের সদস্যরা। তাদের মূলত কাজ হচ্ছে অটো রিক্সা, ইজিবাইক চালকদের যত্রযত্র পার্কিং করে যাত্রী না ওঠানোর জন্য বুঝানো। এছাড়াও যে সকল মোটরযানের ফিটনেস বা ড্রাইভারদের লাইসেন্স নেই তাদেরকে স্কাউটরা ট্রাফিক সার্জেন্টের কাছে নিয়ে যায়। তিনি কাগজপত্র দেখে বুঝিয়ে বলছেন এবং যাদের জরিমানা করার প্রয়োজন মনে করেন সে সকল ড্রাইভারদের জরিমানা করেন। এছাড়া মোটরবাইক চালকদের যাদের মাথায় হেলমেট নেই, তাদেরও অনুরোধ করছে হেলমেট মাথায় রাখতে। সেই সাথে ড্রাইভিং লাইসেন্স সঙ্গে রাখতেও অনুরোধ করেন স্কাউট সদস্যরা।
নিজস্ব প্রতিবেদক জানিয়েছে, চুয়াডাঙ্গায় ট্রাফিক আইন মেনে চলুন, ট্রাফিক পুলিশকে সহায়তা করুন- স্লোগানে সামনে ট্রাফিক পুলিশের উদ্যোগে ও বিভিন্ন কলেজের রোভার-স্কাউটের সদস্যদের সহযোগীতায় অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ৩১৯টি মামলা এবং ১৩টি মোটরসাইকেল আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযানে ২৭৭জন চালকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। এর আগে গত দুইদিনে ১৪২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট মৃত্যুঞ্জয় জানান, নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করার জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্সবিহীন চালকদের মামলা দেওয়ার পাশাপাশি সচেতনামূলক ও দুর্ঘটনারোধে সতর্ক করতে বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে। সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পথচারী, যানবাহন চালকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আইন মেনে চলতে ও সচেতন থাকার অনুরোধ জানান তিনি।
মেহেরপুর প্রতিনিধি জানিয়েছে, মেহেরপুরে ট্রাফিক আইন মেনে চলুন, ট্রাফিক পুলিশকে সহায়তা করুন- এই স্লোগাকে সামনে রেখে জেলায় ট্রাফিক পুলিশের উদ্যোগে ও বিভিন্ন কলেজের ২২ রোভার-স্কাউটের সদস্যদের সহযোগীতায় অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। চলমান তিনদিনে শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ১৭৩টি মোটরসাইকেল, ৫টি ট্রাক, ১টি পিকআপ ভ্যানের চালকের নামে মামলা এবং ১৮টি মোটরসাইকেল আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযানে ৬৬ জন চালকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। এর আগে গত দুইদিনে ১০৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। অভিযান চলাকালে স্কাউটের সদস্য মুনিম হোসেন জানায়, ট্রাফিক সপ্তাহে আমরা মোটরসাইকেল চালক ও ট্রাক চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স, ফিটনেসবিহীন গাড়ি, ইন্সূরেন্স কাগজপত্র যাচাই করা জন্য ট্রাফিক পুলিশের সহায়ক হিসাবে কাজ করছি।
ট্রাফিক পুলিশের টি.আই-১ ইসমাইল হোসেন জানান, সড়ক দূর্ঘটনা হ্রাস এবং নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করার জন্য সরকারের মূল উদ্দেশ্য। ড্রাইভিং লাইসেন্সবিহীন চালকদের মামলা দেওয়ার পাশাপাশি সচেতনামূলক ও দুর্ঘটনারোধে সতর্ক করতে বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে। ট্রাফিক সপ্তাহে গাড়ির চালক ও হেলপারদের নিয়ে প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা গ্রহন করেছেন সরকার। সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পথচারী, যানবাহন চালকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আইন মেনে চলতে ও সচেতন থাকার অনুরোধ জানান তিনি। এসময় ট্রাফিক পুলিশের ট্রাফিক পুলিশের টি.আই-২ মুসতবা, টি.আই-৩ মনির হোসেন, সার্জেন্ট নাজমুল হাসান, টিপু সুলতান, এটিএসআই মামুনসহ বিভিন্ন কলেজের রোভার সদস্যরা এ অভিযানে উপস্থিত ছিলেন।