চুয়াডাঙ্গায় সোনা পাচার মামলায় দুজনের যাবজ্জীবন!

258

বিশেষ প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গায় সোনা পাচার মামলায় দুই জনকে যাবজ্জীবন কারাদ- দিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার বিকেলে চুয়াডাঙ্গা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহা. রবিউল ইসলাম আসামিদের উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর দুজনকে পুলিশ প্রহরায় চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারে নেওয়া হয়। সাজাপ্রাপ্তরা হলেন ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার কান্দামাত্রা গ্রামের মৃত খোকাই ম-লের ছেলে দ্বিপক ম-ল ও একই গ্রামের মৃত জোগেশ মল্লিকের ছেলে প্রভাত মল্লিক।
মামলার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, ভারতে সোনা পাচার হচ্ছে, এমন সংবাদেরভিত্তিতে ২০১৮ সালের ১১ জুলাই দুপুরে চুয়াডাঙ্গার দর্শনা জয়নগর চেকপোস্টে বেনাপোল শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত সার্কেলের একটি দল অবস্থান নেয়। এ সময় দুই জন বাংলাদেশি নাগরিক ভারতে যাওয়ার জন্য জয়নগর চেকপোস্টে আসেন। শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত সার্কেলের দলটি দ্বিপক ম-ল প্রভাত মল্লিককে আটক করে। পরে তাঁদের দেহ তল্লাশি করে অভিনব কৌশলে লুকিয়ে রাখা ২ কেজি ৫৯৮ গ্রাম ওজনের ৮টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত সার্কেলের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা সাজিবুল ইসলাম বাদী হয়ে দামুড়হুদা থানায় দুজনকে আসামি করে একটি মামলা করেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দামুড়হুদা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আমজাদ হোসেন ২০১৮ সালের ২৯ আগস্ট দুজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক উক্ত মামলার ১২ জন সাক্ষীর মধ্যে ৯ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে সোমবার বিকেলে আসামিদের উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। রায়ে আসামিদের যাবজ্জীবন কারাদ- প্রদান করা হয়।