চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ৭ জুলাই ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গায় নতুন করে পাঁচজন আক্রান্ত

২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় ৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৭২৮
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
জুলাই ৭, ২০২২ ৩:৫৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

Girl in a jacket

সমীকরণ প্রতিবেদক:  সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত চার জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২৯ হাজার ১৮৫ জনে। গতকাল দেশে নতুন করে ১ হাজার ৭২৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৮৪ হাজার ৭০০ জনে। গতকাল বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৫২৬ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৯ হাজার ৭৯৯ জন। এসময় ১০ হাজার ১৭৫টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ১০ হাজার ২৩৩টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৮৯ শতাংশ। করোনা মহামারির শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৭৭ শতাংশ।

Girl in a jacket

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে তিনজন ঢাকা বিভাগের ও একজন চট্টগ্রামের। মারা যাওয়া চারজনের মধ্যে দুজন পুরুষ ও দুজন নারী।
২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। ২০২১ সালের ৫ ও ১০ আগস্ট দুদিন সর্বাধিক ২৬৪ জন করে মারা যান।

চুয়াডাঙ্গা:
চুয়াডাঙ্গায় নতুন করে পাঁচজনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এনিয়ে জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দ্াড়িয়েছে ৭ হাজার ৮৮৭ জন। গতকাল বুধবার জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা যায়। গতকাল জেলা স্বাস্থ্যবিভাগ করোনা পরীক্ষার ২৩টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করে। এর মধ্যে পাঁচটি নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে। বাকী ১৮টি নমুনার পলাফল নেগিটিভ আসে। নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৭৪ শতাংশ।
চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী জেলায় এ পর্যন্ত মোট করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৮৮৭ জন। জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ২১০ জনের। এর মধ্যে জেলায় আক্রান্ত হয়ে জেলার হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে মৃত্যু হয়েছে ১৯০ জনের। এছাড়া চুয়াডাঙ্গায় আক্রান্ত অন্য ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে জেলার বাইরে।
করোনা মোকাবেলায় সরকারিভাবে জেলায় মোট ২৫০টি শয্যা প্রস্তুত রয়েছে। করোনা আক্রান্ত রোগীদের সেবার লক্ষে ৩০ জন সরকারি ও ১০ জন বেসরকারি চিকিৎসকসহ মোট ৪০ জন চিকিৎসক রয়েছেন, নার্স রয়েছেন ২৭ জন। জেলায় অক্সিজেন সিলিন্ডার ভর্তি (মজুদ) ১৩০টিসহ লিকুইড ট্যাঙ্ক লোড আছে। হাই ফ্লো নেজাল ক্যানোলা রয়েছে সাতটি ও অক্সিজেন কন্সেন্ট্রেটর রয়েছে দশটি।

Girl in a jacket

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।