চুয়াডাঙ্গায় দুই গৃহবধূকে ধর্ষণ, দুজন গ্রেপ্তার!

432

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার গাড়াবাড়ীয়া ও আলুকদিয়া মনিরামপুরের দুই গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে সদর থানার পুলিশ। ধর্ষণের শিকার ওই নারীরা সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে পৃথক দুটি মামলা করলে গতকাল বুধবার তাঁদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- গাড়াবাড়ীয়া গ্রামের ছাগলাপাড়ার মৃত ঠান্ডু মণ্ডলের ছেলে হাসান আলী (২৬) ও আলুকদিয়া মনিরামপুর গ্রামের ভাদু মণ্ডলের ছেলে রফিকুল ইসলাম ওরফে রফি (৫০)।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার গাড়াবাড়ীয়া ছাগলাপাড়ার হাসান আলী একই এলাকার ২০ বছর বয়সী এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী গৃহবধুকে রাস্তার ওপর জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছেন বলে অভিযোগ করেন ওই বুদ্ধি প্রতিবন্ধীর স্বামী। ধর্ষণের শিকার বুদ্ধি প্রতিবন্ধীর স্বামী রকি হোসেন তাঁর অভিযোগে আরও বলেন, গত সোমবার সন্ধ্যারাতের পর ফাঁকা রাস্তার ওপর ওই বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে একা পেয়ে তাঁকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। অপর দিকে, আলুকদিয়া মনিরামপুরে ধর্ষণের শিকার ১৯ বছল বয়সী এক অন্তসত্বা গৃহবধুর শ্বশুরের দায়ের করা অভিযোগে উল্লেখ করেন- মঙ্গলবার দিবাগত মধ্যরাতে অন্তসত্বা ওই গৃহবধুর স্বামীর বন্ধু আকাশের পিতা রফিকুল ইসলাম ঘরের জানালা দিয়ে অন্তসত্বা ওই গৃহবধুর ঘরে ঢুকে তাঁকে ধর্ষণ করেন। গৃহবধু প্রথমে অনুমান করে ধর্ষণকারী তাঁর পাশে শুয়ে থাকা তাঁর স্বামী আশিকুর রহমান। কিছুক্ষণ পর ধর্ষককে চিনে ফেলে চিৎকার চেঁচামেচি করলে পাশে শুয়ে থাকা নদীর স্বামীও ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে তাঁকে চিনে ফেলে। স্থানীয়দের সহায়তায় রাতেই সদর থানায় অভিযোগ করলে সাথে সাথে সদর থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে রফিকুল ইসলাম ওরফে রফিকে গ্রেপ্তার করে।
গাড়াবাড়ীয়া ও মনিরামপুরের পৃথক দুটি ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত দুজনের গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ খান বলেন, ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধুদের পরিবারের পক্ষ থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে দুটি অভিযোগ হলে সদর থানার পুলিশ সাথে সাথে অভিযান চালিয়ে তাঁদের গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে।