চুয়াডাঙ্গায় জনগল্প ৭১-এর প্রচার সভা অনুষ্ঠিত

177

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গায় জনগল্প ৭১-এর প্রচার সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টায় চুয়াডাঙ্গা মালোপাড়াস্থ ওয়েভ ফাউন্ডেশনের প্রশিক্ষণ সেন্টারের মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান, লেখক ও গবেষক অধ্যাপক আব্দুল মুহিতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জনগল্প ৭১ গ্রন্থের সম্পাদক সাংবাদিক নিশাত জাহান রানা।
এ সময় নিশাত জাহান রানা বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধকালে যাঁদের বয়স অন্ততপক্ষে পাঁচ বছরের ঊর্ধ্বে ছিল, তাঁদের অভিজ্ঞতা দেশব্যাপী অনুসন্ধান ও লিপিবদ্ধ করা এবং মুক্তিযুদ্ধ-পরবর্তী প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেওয়াই জনগল্প ৭১-এর লক্ষ্য। আমাদের স্বাধীনতার ইতিহাস বোঝার ক্ষেত্রে এ প্রয়াস অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। দেশব্যাপী চলমান এ কর্মকা-ের মাধ্যমে বিভিন্ন ব্যক্তির যুদ্ধকালীন অভিজ্ঞতা সংগ্রহের পর ২৬টি বাস্তব গল্পের সমন্বয়ে জনগল্প ৭১-এর প্রথমখ- প্রকাশিত হয়েছে। সংগৃহীত অভিজ্ঞতাগুলো পরবর্তীতে ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করার পরিকল্পনা রয়েছে।’
তিনি আরও বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংগ্রহের চলমান এ গবেষণা ও তথ্যায়ন উদ্যোগের প্রথমখ-টির প্রকাশ এবং কার্যক্রম সবার সামনে আনার লক্ষ্যে আমরা বিভিন্ন জেলায় এ ধরনের সভা করছি। এ সভার মাধ্যমে আমরা জানাতে চাই, জনগল্প ৭১-এ যেন আমরা লেখা দিই।’
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বর্ষিয়ান সাংবাদিক মাহাতাব উদ্দীন ও চুয়াডাঙ্গা সাহিত্য পরিষদের সভাপতি অধ্যক্ষ হামিদুল হক মুন্সী।
অনুষ্ঠানের শুরুতেই বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী চুয়াডাঙ্গা জেলা সংসদের শিল্পীরা গান এবং আবৃত্তি পর্ষদের শিশুশিল্পীরা আবৃত্তি করে। স্বাগত বক্তব্য দেন রিসোর নির্বাহী পরিচালক জাহিদুুল হাসান। জনগল্প ৭১-এর একটি গল্প পাঠ করেন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক মরিয়ম শেলী।
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্য উপস্থিত ছিলেন দৈনিক সময়ের সমীকরণ-এর প্রধান সম্পাদক নাজমুল হক স্বপন, সিনিয়র সাংবাদিক অ্যাড. মানিক আকবর, চুয়াডাঙ্গা পৌর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ শাহজাহান আলী, জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান নাবিলা রুকসানা ছন্দা, জেলা পরিষদের সদস্য নুরুন্নাহার কাকলী, লেখক কোরবান আলী ম-ল, মালেকা হক মাখন প্রমুখ।
উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে সাধারণ মানুষেরা যুদ্ধকালীন যে প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন, তাঁদের অভিজ্ঞতা অনুসন্ধান ও লিপিবদ্ধ করে চলেছে শিক্ষা ও সংস্কৃতিবিষয়ক সংগঠন যুক্ত। সংগঠনটি ধারাবাহিক প্রকাশনার মাধ্যমে পরবর্তী প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের অভিজ্ঞতা তুলে ধরার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। ধারাবাহিক এই প্রয়াসের শিরোনাম জনগল্প ৭১।