চুয়াডাঙ্গায় চামড়া নিয়ে হতাশা, পানির দামে বিক্রি

45

রুদ্র রাসেল:
গত বছর ঈদে দাম না পেয়ে কোরবানির পশুর চামড়া নামমাত্র দামে বিক্রি হয়েছিল। এবারের চিত্রও তার ব্যতিক্রম নয়, চামড়া নিয়ে সব মহলেই হতাশা। অভিযোগ রয়েছে, পানির চেয়ে সস্তায় বিক্রি হচ্ছে কোরবানির পশুর চামড়া। যথাযথ তদারকির অভাবে এবং সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের কারসাজিতে সারাদেশে চামড়ার বাজারে বড় ধরনের দর পতন ঘটেছে।
এদিকে, চুয়াডাঙ্গার একাডেমি মোড়, সিঅ্যান্ডবি পাড়াসহ জেলার বিভিন্ন আড়তে চলছে কোরবানির পশুর চামড়া কেনাবেচা। অভিযোগ রয়েছে নানা অজুহাত দেখিয়ে চামড়ার দাম কমিয়ে দিয়েছেন পাইকারি আড়তদাররা। ফলে বাধ্য হয়ে লোকসান দিয়ে পানির দামে চামড়া বিক্রি করছেন চামড়া ব্যবসায়ীরা। আকার ভেদে পোস্তায় প্রতি পিস গরুর চামড়া বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ৪০০ টাকায়। বুধবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত রাস্তার পাশে পড়ে ছিল শত শত পিস অবিক্রিত কোরবানির পশুর চামড়া। অবশ্য শুরুর দিকে গরুর চামড়া ৩০০ থেকে সাড়ে ৫০০ এবং ছাগলের চামড়া ৪০ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত উঠেছিল। কিন্তু সময় যত গড়িয়েছে চামড়ার দাম ততই নিম্নমুখী হয়েছে। শেষে ক্রেতা না পেয়ে গরুর চামড়া ২০০ থেকে ২৫০ এবং ছাগলের চামড়া অনেকটাই বিনামূল্যে দিতে বাধ্য হন বিক্রেতারা।