চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ২৫ জুন ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গায় কলেজছাত্রের মর্মান্তিক মৃত্যু

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
জুন ২৫, ২০২২ ৮:২২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা পৌর শহরের একাডেমি মোড়ে দ্রুতগতির মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে ধাক্কা লেগে রোমান মল্লিক (১৮) নামের এক কলেজছাত্রের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। একই দুর্ঘটনায় গুরুতর জখম হয়েছে রোমানের বন্ধু মোটরসাইকেলের চালক রিয়ন (১৮)। গতকাল শুক্রবার বেলা দুইটার দিকে পৌর শহরের একাডেমি মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয় ব্যক্তিরা তাদেরকে দ্রুত উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক রোমান মল্লিককে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য রেফার্ড করলে বিকেল পাঁচটার দিকে পথের মধ্যে তার মৃত্যু হয়। নিহত রোমান মল্লিক চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার খাসকররা গ্রামের মৃত খসরু মল্লিকের ছেলে ও চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র। মায়ের সঙ্গে সে চুয়াডাঙ্গা দক্ষিণ হাসপাতালপাড়ার একটি বাড়িতে ভাড়া থাকত। আহত রিয়ন পৌর এলাকার সিনেমা হল পাড়ার ঠিকাদার আরেফিন আলম রঞ্জুর ছেলে।

জানা যায়, গতকাল দুপুরে জুমার নামাজ পড়ার জন্য বাড়ি থেকে নিজ মোটরসাইকেলযোগে বের হয় রিয়ন। নামাজ শেষে বন্ধু রোমানকে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে ঘুরতে বের হয় সে। এসময় চুয়াডাঙ্গা পৌর শহরের একাডেমি মোড়ে পৌঁছালে একটি ইজিবাইককে দ্রুতগতিতে ওভারটেক করার চেষ্টা করে রিয়ন। ঠিক সে সময় রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাক দেখে মোটরসাইকেলের গতিরোধ করতে হার্ড ব্রেক করে। এতে মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারালে পেছনের ছিট থেকে ছিটকে যেয়ে ট্রাকের সঙ্গে রোমানের ধাক্কা লাগে। এসময় মোটরসাইকলের চালক রিয়নও গুরুতর জখম হয়। পরে স্থানীয় ব্যক্তিরা তাদেরকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে জরুরি বিভাগে নেয়। পরে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক রোমানকে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স ও হাসপাতাল রেফার্ড করেন এবং আহত রিয়নকে হাসপাতালে ভর্তি রাখেন।

গতকাল দুপুরেই পরিবারের সদস্যরা রোমানের উন্নত চিকিৎসার জন্য অ্যাম্বুলেন্সযোগে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স ও হাসপাতালের উদ্দেশ্যে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল ত্যাগ করে। অ্যাম্বুলেন্সটি কুষ্টিয়া জেলার পোড়াদহ বল্লভপুর মোড় এলাকায় পৌঁছালে রোমানের মৃত্যু হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. খালিদ হাসান বলেন, দুপুরে স্থানীয় ব্যক্তিরা গুরুতর জখম অবস্থায় দুই যুবককে জরুরি বিভাগে নেয়। দুজনেই সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয়েছিল বলে জানতে পারি। তাদের মধ্যে রোমানের মাথার আঘাত গুরুতর ছিল। তার শরীর থেকে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় তার মাথা ও পাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখমের চিহ্ন পাওয়া যায়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় জরুরি বিভাগ থেকে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স ও হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। অপর যুবককে জরুরি বিভাগ থেকে চিকিৎসা দিয়ে সার্জারি বিভাগে ভর্তি রাখা হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহাবুবুর রহমান বলেন, চুয়াডাঙ্গা সদর থানাধীন একাডেমি মোড়ে মোটরসাইকেলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে ধাক্কা দিলে দুই যুবক গুরুতর জখম হয়। এর মধ্যে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেওয়ার পথে রোমান নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তবে এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের সদস্যদের কোনো অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়ায় লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

এদিকে, গতকাল বিকেলেই রোমানের মরদেহ চুয়াডাঙ্গা দক্ষিণ হাসপাতালপাড়ায় নেওয়া হয়। এসময় রোমানের বন্ধু, আত্মীয়-পরিজনসহ শত শত মানুষ রোমানের মরদেহ দেখতে সেখানে ভিড় করে। গতকাল বাদ এশা জানাজা নামাজ শেষে চুয়াডাঙ্গা জান্নাতুল মাওলা কবরস্থানে রোমানের দাফনকার্য সম্পন্ন করা হয়।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।