চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ২ অক্টোবর ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গায় আ.লীগ মনোনীত প্রার্থীর নির্বাচনী মতবিনিময় সভায় সাধারণ সম্পাদক আজাদুল ইসলাম আজাদ

রাজনীতির অপচর্চার কারণে আমাদের মধ্যে সংকট তৈরি হয়েছে
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
অক্টোবর ২, ২০২২ ৮:২৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

আ.লীগের দলীয় প্রার্থী মনজু বললেন- আমার আফসোস, আমাদের দলের একজন নেতাই বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গায় আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহফুজুর রহমান মনজুর মোটরসাইকেল প্রতীকের নির্বাচনী মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেল পাঁচটায় জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে চুয়াডাঙ্গা কলেজ রোডের বিশ্বাস টাওয়ারে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আসাদুল হক বিশ্বাস।

সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া প্রতিনিধি জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলা হচ্ছে। ভাবতে অবাক লাগে। উপজেলা নির্বাচনেও এই কাজ করা হয়েছে। আজকে ষড়যন্ত্র করে প্রার্থী দিয়ে প্রমাণ করতে চাচ্ছে তিনি নেত্রীর থেকে বড়। যত বাধা-বিপত্তিই আসুক না কেন, আমরা স্পষ্ট করে বলে দিতে চাই আমরা সকল আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা, আওয়ামী লীগের জনপ্রতিনিধিরা আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীকেই জয়যুক্ত করব। দলের নাম ভাঙিয়ে অবৈধ টাকা কামিয়ে দলের বিপক্ষেই কেউ কেউ ব্যয় করছে। আমরা নেত্রীর সিদ্ধান্ত মাথায় রাখি। নেত্রীর মনোনীত প্রার্থীকেই জয়যুক্ত করব। মনজু ভাইয়ের মোটরসাইকেল জয়যুক্ত করব। সকল ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে মনজু ভাইকে জয়যুক্ত করব। আমরা আমাদের লক্ষ্য অর্জন করব ইনশাল্লাহ। আমরা সততা দিয়ে আমাদের প্রার্থীকে জয়যুক্ত করব।

প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদুল ইসলাম আজাদ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, রাজনীতির অপচর্চার কারণে আজকে আমাদের মধ্যে সংকট তৈরি হয়েছে। সবাই এক জায়গায় থাকলে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হারবে না। এখানে অনেক ভোটার আছে। আওয়ামী লীগের অনেক ভোটার আছে। কিছু লোকজনের চাপের কারণে আজ সব আওয়ামী লীগের ভোটার প্রকাশ্যে আসছে না।

তিনি বলেন, কেউ যদি রাজনীতিতে আদর্শ এবং নীতির বাইরে চলে যায়, তাকে ফিরিয়ে আনার দায়িত্ব আমাদের নয়। তার প্রবীণরা যদি এ রকম শিক্ষা দিতো, সে নিজেই ফিরে আসতো। এ হচ্ছে বোধ-বুদ্ধির বিষয়। আপনাদের কাছে আমি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নির্দেশনা জানাচ্ছি। অধিকাংশ মেম্বার-চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের পরিচয় দিয়ে পাশ হয়েছেন। আপনাদেরকে জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ পৌঁছে দিচ্ছি। প্রার্থী আওয়ামী লীগের, আজকে থেকে সকলকে গুছিয়ে নিয়ে ভোট পাওয়ার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করবেন। নিজেদের এলাকায় গিয়ে দলের মনোনীত প্রার্থীর হয়ে ভোট করেন। ভোটারদের কাছে ভোট চান। আমরা আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীকে জয়যুক্ত করব।

মতবিনিময় সভায় আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মাহফুজুর রহমান মনজু বলেন, ‘আমার আফসোস হয়, আমরা সবাই আওয়ামী রাজনীতির মধ্যে আছি। কিন্তু দলের সিদ্ধান্ত অনেকেই মানে না। আমাদের দলেরই একজন নেতা বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন। দলের নির্দেশ না মেনে নির্বাচন করা সুযোগ-সন্ধানী। আপনাদের এখনো সময় আছে, এই অল্প সময়ের মধ্যে দলের জন্য আপনারা ভোটারদের কাছে যাবেন। অনুরোধ করবেন।’ তিনি আরও বলেন, চুয়াডাঙ্গায় জেলা পরিষদ ছিল অনেকেই জানতেন না। আমি জেলা পরিষদে দায়িত্ব পালন করেছি। জেলা পরিষদকে মানুষের মাঝে তুলে ধরেছি। সাধারণ মানুষের সেবা করেছি। এখন দল আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে। দলের হয়ে আপনারা কাজ করবেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণবিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ডা. মাহবুব হোসেন মেহেদী বলেন, ‘আমি মনে করি মনজু শুধু আমাদের প্রার্থী নয়, সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রার্থী, আওয়ামী লীগের প্রার্থী। তাকে ভোট দেওয়া মানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভোট দেওয়া। আমরা যারা আওয়ামী লীগ করি, আমরা যারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করি, তাদের কাছে অনুরোধ ভোট দিতে হবে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে। মনে রাখবেন মনজুকে ভোট দেওয়া মানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভোট দেওয়া।
চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. শফিকুল ইসলাম শফির পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. আব্দুল মালেক, দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শহিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী কৃষক লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক জোয়ার্দ্দার, কুতুবপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান টাইগার, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য সাব্বির আহমেদ প্রমুখ। এসময় জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।