চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ৩০ জুন ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গায় আবারও করোনার সংক্রমণ ঊর্ধ্বগতি, নমুনা পরীক্ষায় অনীহা

নতুন ১০ জন আক্রান্ত, শনাক্তের হার ৬৯.২৩ শতাংশ
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
জুন ৩০, ২০২২ ৭:১১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গায় আবার বাড়তে শুরু করেছে করোনা সংক্রমণ। গত মে মাসে এ জেলায় নতুন কেউ করোনা আক্রান্ত না হলেও গত দুইদিনে নতুন ১০ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদিকে, চুয়াডাঙ্গায় আবার সংক্রমণ বাড়তে শুরু করায় সচেতন মহলের অনেকেই ভিতির সঞ্চারের কথা জানিয়েছেন। গতকাল জেলা স্বাস্থ্যবিভাগ ১৩টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করে। যার মধ্যে ৯ জনের শরীরেই করোনা শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় করোনা সংক্রমণের হার ৬৯ দশমিক ২৩ শতাংশ।

জানা যায়, সারাদেশে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে জনসাধারণকে উদ্বুদ্ধকরণে পুনরায় পদক্ষেপ নেওয়ার সুপারিশ করেছে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। পরামর্শক কমিটির ৫৭তম সভায় এই সুপারিশ করা হয়। এদিন এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক দিনগুলোতে কোভিড-১৯ সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য জনসাধারণকে পুনরায় উদ্বুদ্ধ করতে হবে। সব ক্ষেত্রে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা, ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’ নীতি প্রয়োগ করা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও জনসমাগম বর্জন করা প্রয়োজন। ধর্মীয় প্রার্থনার স্থানগুলোতে মাস্ক পরা ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা দরকার।

সভার সিদ্ধান্তে বলা হয়- যাদের জ্বর ও সর্দি-কাঁশি হচ্ছে তারাও অনেকে কোভিড টেস্ট করাচ্ছেন না। ফলে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছে না। এ জন্য যাদের উপসর্গ দেখা দিচ্ছে এবং যারা কেভিড-১৯ আক্রান্ত মানুষের সংস্পর্শে আসছেন তাদেরও টেস্ট করানোর জন্য অনুরোধ করতে হবে।

এদিকে, দীর্ঘ কয়েক মাস জেলার মানুষ নমুনা পরীক্ষা না করানোয় জেলায় করোনা আক্রান্তের বিষয়েও নিশ্চিত করে জানা যায়নি। তবে জেলা সিভিল সার্জন অফিসের তথ্যমতে, গত এপ্রিল মাসে ২৪ তারিখ সর্বশেষ করোনা পরীক্ষার জন্য শুধুমাত্র একজন নমুনা দেন। সে নমুনা পরীক্ষার পর জানা যায় তিনি করোনা আক্রান্ত নন। এর দীর্ঘ দুই মাস পর গত সোমবার ১৬ জন করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন, তবে তাদের মধ্যেও কারো শরীরে করোনা শনাক্ত হয়নি। গত মঙ্গলবার নমুনা দেন আরও ১২ জন, এদিন ১ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। তবে গতকাল জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ১৩টি নমুনার ফলাফল প্রকাশ করে, এর মধ্যে ৯ জনের শরীরেই করোনা শনাক্ত হয়েছে।

জেলা সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে আরও জানা যায়, গতকাল পর্যন্ত এ জেলায় মোট করোনা আক্রান্ত হয়েছে ৭ হাজার ৮৭৪ জন। জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ২১০ জনের। এর মধ্যে জেলায় আক্রান্ত হয়ে জেলার হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে মৃত্যু হয়েছে ১৯০ জনের। এছাড়া চুয়াডাঙ্গায় আক্রান্ত অন্য ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে জেলার বাইরে।

করোনা মোকাবিলায় সরকারিভাবে জেলায় মোট ২৫০টি শয্যা প্রস্তুত রয়েছে। করোনা আক্রান্ত রোগীদের সেবার লক্ষে ৩০ জন সরকারি ও ১০ জন বেসরকারি চিকিৎসকসহ মোট ৪০ জন চিকিৎসক রয়েছেন, নার্স রয়েছেন ২৭ জন। জেলায় অক্সিজেন সিলিন্ডার ভর্তি (মজুদ) ১৩০টিসহ লিকুইড ট্যাঙ্ক লোড আছে। হাই ফ্লো নেজাল ক্যানোলা রয়েছে সাতটি ও অক্সিজেন কন্সেন্ট্রেটর রয়েছে ১০টি।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. সাজ্জাৎ হাসান বলেন, ‘সারা দেশে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় নমুনা পরীক্ষাও বৃদ্ধি পেয়েছে। গত দুই দিনে জেলায় ২৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে, যার মধ্যে ১০ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দিন দিন আরও বাড়বে। যার ফলে শনাক্তের হারও বাড়বে। তাই সকলকে সচেতন হতে হবে, একই সঙ্গে করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার নির্ধারিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেতে হবে।’

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।