চুয়াডাঙ্গায় অসহায় নারীর বাড়ির প্রাচীর ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ

28

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গায় স্বামীহারা অসহায় নারগিস পারভিনের শেষ সম্বল ৬ শতক জমির প্রাচীর জোরপূর্বক ভেঙে দিয়ে রাস্তা তৈরির অভিযোগ উঠেছে প্রিন্স প্লাজার ফ্যাশান পরিবার ব্যবসায়ী ফারুক হোসেনের বিরুদ্ধে। গতকাল সোমবার রাতে পুরাতন ঝিনাইদহ বাস স্ট্যান্ড এলাকার নারগিস পারভিনের ওই জমির প্রাচীর লোকজন নিয়ে গিয়ে ভেঙে দেন ফারুক। খবর পেয়ে সদর থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। প্রিন্স প্লাজার ফ্যাশান পরিবার ব্যবসায়ী ফারুক হোসেন দিগড়ি গ্রামের আলী আহম্মদের ছেলে। বর্তমানে পুরাতন ঝিনাইদহ বাসস্ট্যান্ড এলাকার বাসিন্দা।
নারগিস পারভিনসহ ওই পরিবারের লোকজন অভিযোগ করে বলেন, ৫-৬ বছর পূর্বে বিভিন্ন কৌশলে মৃত হাফিজুর রহমানের স্ত্রী ফারহানা পারভিন লিলির কাছ থেকে তাঁদের জমি কেনেন ফারুক। পরে ওই জমিতে ঘর তুলে বসবাস করছে তিনি। ফারুকের জমির রাস্তা না থাকা সত্ত্বেও এতদিন অন্যের জমি ব্যবহার করে চলাচল করছিলেন। বর্তমানে ওই জমির বাকি পাঁচজন অংশীদার জমি পরিমাপ করে একটি নির্দিষ্ট রাস্তা তৈরি করেন। রাস্তার জমি ফারুকের পছন্দ না হওয়ায় স্বামীহারা নারগিস পারভিনের জমির প্রাচীর ভেঙে ওই জমি দিয়ে রাস্তা তৈরির পায়তারা করছেন বলে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেন।
নারগিস পারভিনের মেয়ে ওয়াহিদা আশরাফি অভিযোগ করে বলেন, ‘আমিন এনে জমিটি পরিমাপ করে যেভাবে রাস্তা তৈরি করা হয়েছে, তাতে ফারুকসহ ওই জমির বাকি পাঁচজন রাস্তার সুবিধা পাবে। এতে ফারুকের রাস্তাটির কিছু অংশ পুকুরের মধ্যে হওয়ায় সে জোরপূর্বক আমাদের জমির প্রাচীর ভেঙে রাস্তা নিতে চাই। এ নিয়ে বিভিন্ন সময় হুমকি-ধামকি দিলেও গতকাল রাতে লোকজন নিয়ে প্রাচীর ভেঙে দিয়েছে।’ পিতাহারা ওয়াহিদা আরও বলেন, প্রাচীরটা যে পুনরায় আবার গাঁথা হবে, সেই আর্থিক অবস্থাও তাদের নেই।
এ বিষয়ে সদর থানা পুলিশের অফিসার ইনজার্চ (ওসি) আবু জিহাদ খান বলেন, খবর পেয়ে সদর থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। একই সাথে ভুক্তভোগী পরিবারটি যদি লিখিত অভিযোগ করে, তাহলে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।