চুয়াডাঙ্গার হাতিকাটা মোড়ে তুচ্ছ ঘটনায় দোকান ভাঙচুর

216

নিজস্ব প্রতিবেদক:
দোকানের সামনের রাস্তায় মোটরসাইকেল রাখাকে কেন্দ্র করে চুয়াডাঙ্গা শহরতলীর হাতিকাটা মোড়ে চায়ের হাট নামক একটি দোকান ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় কয়েক দফা হাতাহাতি ও উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। গতকাল শুক্রবার রাত আটটার দিকে এ অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় লোকজন জানান, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার হাতিকাটা মোড়ে রয়েছে চায়ের হাট নামের একটি প্রসিদ্ধ চায়ের দোকান। প্রতিদিন জেলা শহরসহ বিভিন্ন স্থান থেকে লোকজন দোকানটিতে চা খেতে যান। গতকাল শুক্রবার রাতেও প্রায় অর্ধশত লোকজন চা খেতে দোকানটিতে অবস্থান করছিলেন। এ সময় চায়ের দোকানের সামনের রাস্তায় মোটরসাইকেল রাখা নিয়ে চুয়াডাঙ্গার কয়েক যুবকের সঙ্গে স্থানীয় কয়েকজনের বিরোধ তৈরি হয়। একপর্যায়ে দুই পক্ষই জড়িয়ে পড়ে হাতাহাতিতে। পরে হাতিকাটার স্থানীয় কয়েকজন সংঘবদ্ধ হয়ে লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা চালান চুয়াডাঙ্গার ওই যুবকদের ওপর। এ সময় বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি খারাপ দেখে চুয়াডাঙ্গার যুবকেরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করলে উত্তেজিত কয়েকজন হামলা চালান চায়ের হাট নামক ওই দোকানটিতে। এ সময় ভাঙচুর করা হয় দোকানটির কয়েকটি চেয়ার ও টেবিল। খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) লুৎফুল কবির ও ইন্সপেক্টর (অপারেশন) মাসুদুর রহমান ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক দফায় পুলিশ উদ্যোগ গ্রহণ করলে হাতিকাটার উত্তেজিত যুবকেরা পুলিশের ওপরও চড়াও হন। এ সময় পুলিশ লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। পরে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান ও স্থানীয় আলুকদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইসলাম উদ্দীন ঘটনাস্থলে পৌঁছিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন। সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এ ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি।