চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ১০ জুলাই ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গার মডেল মসজিদে জুমার নামাজে ছিল স্বাস্থ্যবিধি

সমীকরণ প্রতিবেদন
জুলাই ১০, ২০২১ ৮:৫১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গা জেলা মডেল মসজিদে স্বাস্থ্যবিধি মেনে জুমার নামাজ আদায় করেছে আগত মুসল্লিরা। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে জেলার সব মসজিদে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে নামাজ আদায় করার চিঠিও দেওয়া হয়েছে। জেলা মডেল মসজিদে ৩ ফুট দূরত্বে দাঁড়ানোর জন্য হলুদ ও লাল টেপ দিয়ে স্থান চিহ্নিত করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবারও স্বাস্থ্যবিধি মেনে জুমার নামাজসহ প্রতি ওয়াক্তের নামাজ নিয়মিত আদায় করা হয়েছে।
জানা গেছে, করোনা সংক্রমণরোধে গত ৩০ জুন ধর্ম মন্ত্রণালয় একটি নির্দেশনা দেয়। নির্দেশনায় রয়েছে, মসজিদের প্রবেশদ্বারে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা হাত ধোয়ার ব্যবস্থাসহ সাবান-পানি রাখা, মুসল্লিদের অবশ্যই মাস্ক পরে মসজিদে আসা, প্রত্যেককে নিজ নিজ বাসা থেকে অজু করে এবং সুন্নত নামাজ ঘরে আদায় করে মসজিদে আসতে হবে। অজুর সময় কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিতে হবে। মসজিদে কার্পেট বিছানো যাবে না। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের আগে সম্পূর্ণ মসজিদ জীবাণুনাশক দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে। মুসল্লিদের জায়নামাজ নিয়ে যেতে হবে। কাতারে নামাজে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে হবে। শিশু, বয়োবৃদ্ধ, যেকোনো অসুস্থ ব্যক্তি এবং অসুস্থদের সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি জামায়াতে অংশগ্রহণ করা হতে বিরত থাকবেন।
এছাড়া মসজিদের অজুখানায় সাবান বা হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে। মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার করা যাবে না। সর্বসাধারণের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, স্থানীয় প্রশাসন এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নির্দেশনা অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে। আর করোনাভাইরাস মহামারি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য নামাজ শেষে মহান রাব্বুল আলামিনের দরবারে দোয়া করার নির্দেশনাও রয়েছে জরুরি এই বিজ্ঞপ্তিতে। মসজিদের খতিব, ইমাম ও মসজিদ পরিচালনা কমিটি বিষয়গুলোর বাস্তবায়ন নিশ্চিত করবে।
চুয়াডাঙ্গা ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক এবিএম রবিউল ইসলাম মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা সকল মসজিদে পাঠানো এবং জেলা মসজিদে তা বাস্তবায়ন করার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সামনে কোরবানী। কোরবানী করার পর পশুর বর্জ্য যাতে নির্দিষ্ট স্থানে ফেলা হয়, সে বিষয়ে খুৎবা দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে দেওয়া নির্ধারিত খুৎবাও দেওয়া হচ্ছে। করোনাকালীন সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপপরিচালক এবিএম রবিউল ইসলাম।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।