চুয়াডাঙ্গার দৌলতদিয়াড়ে বাস-মিনিবাস মালিক গ্রুপ ও পাখিভ্যান চালকদের দফায় দফায় সংঘর্ষ

395

বাস ভাঙচুরের অভিযোগ : দু’ঘন্টা পর যান চলাচল স্বাভাবিক
নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা দৌলতদিয়াড়ে বাস-মিনিবাস মালিক গ্রুপ ও পাখিভ্যান চালকদের দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে পাখিভ্যান চালকরা হাতিকাটার মোড়ে অবস্থান নিলে চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুরগামী বাস ও ট্রাক চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এসময় ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে একটি বাস ভাঙচুরের অভিযোগ উঠে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে উভয়পক্ষকে শান্ত করেন এবং দীর্ঘ দুই ঘন্টা পর বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়। তবে উভয়পক্ষ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছে। গতকাল বুধবার সকাল ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবত পাখিভ্যান চালক ও বাস-মিনিবাস মালিক গ্রুপের সাথে যাত্রী ওঠা নামা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে গতকাল চুয়াডাঙ্গা দৌলতদিয়াড় বাসস্ট্যান্ডের নিকট পাখিভ্যানে যাত্রী নেয়াকে কেন্দ্র করে বাস-মিনিবাস মালিক গ্রুপের কয়েকজনের সাথে তর্ক-বিতর্ক হয়। এ সময় বাস-মিনিবাস মালিক গ্রুপের কয়েকজন সদস্য পাখিভ্যান দু’জন চালককে লাঞ্ছিত করে। এরই জের ধরে গতকাল বুধবার সকাল ১২টার দিকে পাখিভ্যান চালকরা হাতিকাটার মোড়ে অবস্থান নেয় এবং লাঠিসোটা নিয়ে রাস্তা অবরোধ করে রাখে। এ সময় তারা চুয়াডাঙ্গা থেকে কোন বাস ও ট্রাক যেতে দেয়নি এবং বাস থেকে যাত্রী নামিয়ে ঘুরিয়ে দেয়। তারা মেহেরপুরের একটি যাত্রীবাহি বাস ভাঙচুর করে ও কয়েকজন বাস শ্রমিকদের মারধর করে। খবর পেয়ে মালিক গ্রুপের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উভয়পক্ষের সংঘর্ষ বাধে।পরে সদর থানার ওসি (তদন্ত) ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি শান্ত করেন। উভয়পক্ষকে নিয়ে সাময়িকভাবে বিষয়টা মিমাংশা করা হয়। এতে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।


বাস-মিনিবাস মালিক গ্রুপের সদস্য এবং ক্যাশিয়ার নাজমুল হক জানান, দীর্ঘদিন যাবত পাখি ভ্যানচালক ও আমাদের যাত্রী ওঠানামা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। তারা অবৈধভাবে রাস্তায় চলাচল করছে। এ নিয়ে তারা আমাদের শুধু অপবাদ দেয়। তারা তাদের খেয়ালখুশি মতো চলবে। আমরা তাদেরকে অনেক ছাড় দিয়েছি। তারা অবৈধভাবে চলাচল করে। কালকে তারা মেহেরপুরের একটি বাস ভাঙচুর করেছে। তবে আমরা তাদেরকে কোনভাবেই লাঞ্চিত করিনি। তিনি আরো বলেন, এই বিষয় নিয়ে পুলিশ প্রশাসন,মেম্বার ও চেয়ারম্যানকেয়ে নিয়ে সাময়িকভাবে বিষয়টা মীমাংসা করা হয়। তবে আজকে মালিক গ্রুপের সভাপতিসহ ভ্যানচালকদের প্রতিনিধিকি নিয়ে একটি আলোচনা সভা করা হবে বলে জানান তিনি।
এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর সদর থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুল খালেক বলেন, পাখিভ্যান চালক ও বাস-মিনিবাস মালিক গ্রুপের মধ্যে যাত্রী ওঠা নামাকে কেন্দ্র করে গন্ডগোল হয়। খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উভয়পক্ষকে নিয়ে সাময়িকভাবে বিষয়টি মিমাংসা করা হয়। তবে আজকে বিষয়টি মীমাংসা করার জন্য উভয়পক্ষ আলোচনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানান এই কর্মকর্তা।