চুয়াডাঙ্গার গোরস্তানপাড়ায় স্কুলছাত্রী শিশু রুবিনা হত্যা মামলা শুকুর আলীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী

279

নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গার গোরস্তানপাড়ায় স্কুলছাত্রী রুবিনা হত্যার ঘটনায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে শুকুর আলী। গতকাল বুধবার চুয়াডাঙ্গার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুস্তাফিজুর রহমানের কাছে এ জবানবন্দী প্রদান করে সে। পরে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। গত পরশু মঙ্গলবার রাতে নিজবাড়ি থেকে শুকুর আলীকে গ্রেফতার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।
জানা যায়, চলতি বছরের গত ২ ফেব্রুয়ারি দুপুরে চুয়াডাঙ্গা শহরের গোরস্থানপাড়ার দরিদ্র রবিউল ইসলামের মেয়ে রুবিনাকে কাজের কথা বলে প্রতিবেশী হুমায়ন বাঙাল ধর্ষণ করে। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে পরিবারের অন্য সদস্যরা ধর্ষিতা স্কুলছাত্রীকে হত্যা করে লাশ গাছে ঝুলিয়ে রাখে। এ ঘটনার পাঁচদিন পর নিহতের মা চায়না খাতুন বাদী হয়ে হুমায়ন বাঙালসহ ৫ জনকে আসামি করে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। স্কুলছাত্রী রুবিনা হত্যার প্রতিবাদ ও জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে ফুঁসে ওঠে এলাকাবাসী। একই দাবিতে স্থানীয়রা এবং রুবিনার সহপাঠিরা বেশ কয়েকবার বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন এবং সংবাদ সম্মেলন করে।
নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়েরের পর রাতেই প্রধান আসামি হুমায়ন কবির ওরফে হুমায়ন বাঙালের স্ত্রী এই মামলার অন্যতম আসামী আরজিনাকে গ্রেফতার করে সদর থানা পুলিশ। এদিকে, গত পরশু মঙ্গলবার রাতে রুবিনা হত্যা মামলায় শুকুর আলী নামের আরও একজনকে গ্রেফতার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।
চুয়াডাঙ্গা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আশরাফ আলী জানান, মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে শুকুর আলীকে গ্রেফতার করে বুধবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। চুয়াডাঙ্গার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুস্তাফিজুর রহমানের কাছে স্কুলছাত্রী রুবিনাকে হত্যার ঘটনা স্বীকার করে জবানবন্দী প্রদান করে শুকুর। পরে বিচারকের নির্দেশে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।