চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ৬ জুলাই ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গার গহেরপুর-সাড়াবাড়িয়া সড়কে গণডাকাতির ঘটনা, ১০ জনকে আদালতে সোপর্দ

ওসি লুৎফুল কবীর বললেন, তদন্তের স্বার্থে নাম, পরিচয় গোপন রাখা হচ্ছে
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
জুলাই ৬, ২০২২ ৭:১৩ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

দর্শনা অফিস: চুয়াডাঙ্গা সদরের গহেরপুর-সাড়াবাড়িয়া সড়কে গাছ ফেলে স্মরণকালের ভয়াবহ গণডাকাতির ঘটনায় নগদ টাকা, সোনার গহনা ও মোবাইল ফোনসহ লুটকৃত প্রায় ৫০ লাখ টাকার মালামাল এখনো উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। তবে পুলিশের দফায় দফায় চিরুনি অভিযানে আটকের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪ জনে।

জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার গড়াইটুপি ইউনিয়নের গহেরপুর-সড়াবাড়িয়া সড়কের শালিকচরা মাঠ নামকস্থানে গত বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) রাত ৯টার দিকে ১৫-১৬ জনের সংঘবদ্ধ মুখোশধারী ডাকাত দল ব্যাপক তাণ্ডব চালায়। ঘণ্টাব্যাপী এ তাণ্ডবে গরু ব্যবসায়ী, ঠিকাদার ও সাধারণ মানুষকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নগদ প্রায় ৩৫ লাখ টাকা, ১০-১২ ভরি সোনার গহনা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। এসময় ডাকাতেরা বেশ কয়েকজনকে মারধরও করেছে। স্মরণকালের ভয়াবহ এ ডাকাতি ঘটনায় দর্শনা থানায় মামলা দায়ের করেন ঝিনাইদহ উপ-শহরপাড়ার মুরালি মোহন সাহার ছেলে রণি সাহা। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এএইচএম লুৎফুল কবীর। ঘটনার পর থেকেই পুলিশের গ্রেপ্তার অভিযান শুরু হলেও মালামাল উদ্ধারের কোনো কুল-কিনারা হয়নি।

এ বিষয়ে দর্শনা থানার ওসি এএইচএম লুৎফুল কবীর জানান, ঘটনার পর থেকে গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত ৫ দিনে সন্দেহজনকভাবে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ১৪ জনকে। তবে মামলার তদন্তের স্বার্থে নাম, পরিচয় ও তথ্য গোপন রাখা হয়েছে বলে জানান ওসি কবীর। আটককৃত ১৪ জনের মধ্যে তদন্তপূর্বক ৪ জনের ডাকাতির কোনো সম্পৃক্ততা না থাকায় পরিবারের হেফাজতে দেওয়া হয়েছে ও বাকি ১০ জনকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের ব্যাপক পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে কোনো তথ্য মিলেছে কিনা তাও জানাতে গড়িমশি করছে পুলিশ। তবে ১০ জনের মধ্যে ৪ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতের রিমান্ডের আবেদন করা হবে বলেও জানান ওসি কবীর।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।