চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ২৭ এপ্রিল ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, ঝিনাইদহসহ সারা দেশে ৩৩ হাজার পরিবার পেল বিনামূল্যে নতুন ঘর

প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর পেয়ে উচ্ছ্বসিত গৃহহীন পরিবারগুলো
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
এপ্রিল ২৭, ২০২২ ১:৩৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আমার সব থেকে ভালো লাগে যখন মানুষের মুখের হাসি দেখি: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

সমীকরণ প্রতিবেদন:

‘ঈদ উপহার’ হিসেবে আরও প্রায় ৩৩ হাজার পরিবারকে বিনামূল্যে নতুন ঘর প্রদানের সময় নিজস্ব ঠিকানা পাওয়া মানুষের মুখের হাসি দেখে নিজের আনন্দ অশ্রু ধরে রাখতে পারেননি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আবেগজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘আমার সব থেকে ভালো লাগে যখন ঘর পাওয়ার পর কোনো মানুষের মুখের হাসিটি দেখি। জাতির পিতা তো দুঃখী মানুষের মুখেই হাসি ফোটাতে চেয়েছিলেন। সব মানুষ যেন মানুষের মতো বাঁচতে পারে, সুন্দর জীবন পেতে পারে, সেটাই আমাদের লক্ষ্য। সে জন্য এই কাজটি আমরা করব, যাতে ক্ষুধা, দারিদ্র্যমুক্ত দেশ হিসেবে বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে চলতে পারে।

আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় তৃতীয় ধাপে গতকাল মঙ্গলবার সারা দেশে ৪৯২টি উপজেলার ৩২ হাজার ৯০৪টি গৃহহীন-ভূমিহীন পরিবারের মাঝে বিনামূল্যে নতুন ঘর বিতরণকালে সুবিধাভোগীদের উদ্দেশে বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। এতগুলো ছিন্নমূল মানুষকে ঠিকানা গড়ে দিতে পারায় আবেগাপ্লুত হয়ে বাকরুদ্ধ কণ্ঠে জাতির পিতার কন্যা বলেন, আজকে বারবার মনে পড়ছে আমার বাবার (জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু) কথা। তিনি শুধু ভাবতেন, কীভাবে দেশের মানুষ অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান পাবে। কীভাবে তাদের ভাগ্য পরিবর্তন হবে। জাতির পিতার পথ ধরে আমরা মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়েছি। এটা দেখে নিশ্চয়ই জাতির পিতার আত্মা শান্তি পাবে। তিনি দৃঢ়কণ্ঠে বলেন, বাংলাদেশে কেউ গৃহহীন, ভূমিহীন এবং ঠিকানাবিহীন থাকবে না। আমরা সেই লক্ষ্য বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছি। তার সরকার একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার মাধ্যমে জাতির পিতার লালিত স্বপ্ন পূরণে সবার মুখে হাসি ফোটাতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাক, বাংলাদেশ উন্নত হোক- যারা স্বাধীনতাকে ব্যর্থ করতে চেয়েছিল, তারা এখনও রয়ে গেছে, যারা কখনও এটা চাইবে না। কিন্তু সকল বাধা অতিক্রম করেই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে এবং আমরা এগিয়ে যাব।

এদিকে, সারা দেশের ন্যায় চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে একযোগে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সারা দেশে একযোগে ঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। পরে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর মাঝে ঘরের চাবি ও জমির দলিল হস্তান্তর করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা:

প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার হিসেবে চুয়াডাঙ্গায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে ১৫১টি ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঈদ উপহার হিসেবে জমির দলিলসহ গৃহ প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এ প্রান্তে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের সম্মলেনকক্ষে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত থেকে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগর। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম, পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু তারেক, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুল হক বিশ্বাস, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম ভুঁইয়া ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সী আলমগীর হান্নান প্রমুখ। ৩য় পর্যায়ে ৩১৭টি ঘরের মধ্যে ১৫১টি গৃহ হস্তান্তর করা হয়। এর মধ্যে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলায় ৪৯টি, আলমডাঙ্গায় ৪৩টি, দামুড়হুদায় ২৩টি ও জীবননগরে ৩৬টি।

আলমডাঙ্গা:

আলমডাঙ্গায় প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার পেল ১৭টি পরিবার। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলা পরিষদের হলরুমে ঈদ উপহার গৃহ হস্তান্তর অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার রনি আলম নূর। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আরাফাত রহমান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আইয়ুব হোসেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মারজাহান নিতু, আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী। কলেজিয়েট স্কুলের উপাধ্যক্ষ শামিম রেজার উপস্থাপনায় স্বাগত বক্তব্য দেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রেজওয়ানা নাহিদ। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মইনদ্দিন, সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গোলাম সরোয়ার, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আব্দুল্লাহিল কাফি, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সোহেল রানা, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা দেওয়ান নজরুল জাহাঙ্গীর, প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ আলম মণ্টু, সাধারণ সম্পাদক খ. হামিদুল ইসলাম প্রমুখ। সভা শেষে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারা দেশের ন্যায় আলমডাঙ্গায় মোট ১৭টি অসহায় পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘরের দলিল ও চাবি তুলে দেন।

দামুড়হুদা:

প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার হিসেবে ভূমিহীন ও গৃহহীন ৮টি পরিবারের মাঝে ঘরের চাবি, দলিল ও খতিয়ান হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাসলিমা আক্তারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে  উপস্থিত থেকে ঘর হস্তান্তর করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সাদিয়া আফরিন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলী মুনছুর বাবু, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুদীপ্ত কুমার সিংহ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহফুজুর রহমান মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সহিদা খাতুন, সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হযরত আলী, প্রেসক্লাবের সভাপতি এম. নুরুন্নবী, উপজেলার বিভিন্ন কর্মকর্তা, বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষক, অন্যান্য সাংবাদিকদবৃন্দসহ সকল ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তাগণ।

জানা যায়, ‘আশ্রয়ণের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার’ এই স্লোগানে দামুড়হুদা উপজেলায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের অধীনে ১ম পর্যায়ে ৩০টি, ২য় পর্যায়ে ৩২টি ও ৩য় পর্যায়ে ৬২টিসহ মোট ১২৩টি গৃহ নির্মাণ করা হয়।

জীবননগর:

পবিত্র ঈদুল ফিতরের বাকি আর মাত্র কয়েকদিন। উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে মানুষের মাঝে। সাধারণ মানুষের মাঝে চলছে পছন্দের জামা-কাপড়সহ যাবতীয় কেনাকাটা। তবে এবার সাধারণ মানুষের চেয়ে জীবননগর উপজেলায় এবার ভিন্ন হচ্ছে গৃহহীন ও ভূমিহীন ২৪টি পরিবারের ঈদ আনন্দ। ভিন্ন রকম এক ঈদ আনন্দে মাতবেন এই পরিবারগুলোর সদস্যরা। গতকাল মঙ্গলবার জীবননগর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদের হলরুমে বেলা সাড়ে ১১টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জীবননগর উপজেলার ২৪টি গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারের হাতে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

জীবননগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শারমিন আক্তার, জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজি হাফিজুর রহমান, জীবননগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম, সাবেক সভাপতি গোলাম মোর্তুজা, সাধারণ সম্পাদক আবু মো. আব্দুল লতিফ অমল, জীবননগর প্রেসক্লাবের সভাপতি এম আর বাবু, জীবননগর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আ. সালাম ঈশা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েসা সুলতানা লাকীসহ উপকারভোগী, সুধী ও সাংবাদিকগণ।

মুজিবনগর:

মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার ১১টি পরিবারের মাঝে জমির দলিল ও নির্মাণাধীন ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে একটি ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সারাদেশে একযোগে তৃতীয় পর্যায়ের জমি দলিল ও নির্মাণকৃত গৃহ প্রদানের উদ্বোধন করেন। মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজন সরকারের সভাপতিত্বে এ প্রান্তে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জিয়াউদ্দিন বিশ্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান আফরোজা খাতুন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য রফিকুল ইসলাম তোতা, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আব্দুর রব, উপজেলা মৎস্য অফিসার শহিদুল ইসলাম, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও শিমুল বিশ্বাস, বাগোয়ান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আয়ূব হোসেন, দারিয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান রবি, মোনাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজুর রহমান মাফিজসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক, উপজেলা বিভিন্ন কর্মকর্তা ও গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারের ভুক্তভোগীগণ।

গাংনী:

মেহেরপরের গাংনীতে ভূমিহীন ও গৃহহীন ২৮ পরিবার পেল জমি ও ঘর। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে মাথাগোজার ঠাঁই পেলেন তারা। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা পরিষদের সম্মেলনকক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে জমি ও ঘরের মালিকানা বুঝিয়ে দেওয়া হয়। ঘর-বাড়ি পেয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন উপকারভোগীরা। ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই উদ্যোগ বিশ্বের মধ্যে একটি দৃষ্টান্ত বলে মন্তব্য করেন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীরা। প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় তৃতীয় পর্যায়ে গাংনী উপজেলায় প্রাপ্ত ঘর ৩৯টি। এর মধ্যে মটমুড়া ইউপিতে ৬টি, তেঁতুলবাড়ীয়া ইউপিতে ৯টি ও ধানখোলা ইউপিতে ৪টি। দুই শতক জমি ও দুইকক্ষ বিশিষ্ট সেমি পাকা ঘরের সাথে রয়েছে রান্নাঘর, টয়লেট ও বারান্দা।

গাংনী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস (পিআইও) আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমি খানম। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক ড. মুনসুর আলম খান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ খালেক, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাজমুল আলম, গাংনী পৌর মেয়র আহম্মেদ আলী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন ও গাংনী রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক। এছাড়াও বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগণসহ বিভিন্ন সরকারি কর্মকর্তাগণ ও উপকারভোগী জমি ও ঘর পাওয়া পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। পিআইও অফিস সূত্রে জানা গেছে, কার্য সম্পাদন সাপেক্ষে ২৮টি ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে।

ঝিনাইদহ:

ঝিনাইদহে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার হিসেবে ৩৬৬টি পরিবারের মাঝে জমিসহ ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তায়নে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সদর উপজেলা প্রশাসন। এতে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য খালেদা খানম, জেলা প্রশাসক মনিরা বেগম, পুলিশ সুপার মুনতাসিরুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম শাহীনসহ উপকারভোগীরা উপস্থিত ছিলেন। সারাদেশে একযোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঈদ উপহার জমিসহ ঘর হস্তান্তর অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করার পর ঝিনাইদহে উপকারভোগীদের হাতে জমির দলিল ও কাজপত্র তুলে  দেওয়া হয়। এ জেলায় জমিসহ গৃহ পাওয়ার তালিকায় রয়েছে- ভিক্ষুক, বেদে সম্প্রদায়ের লোক, প্রতিবন্ধী, ভ্যানচালক, বিধবার, স্বামী পরিত্যাক্তা, ষাটোর্ধ্ব প্রবীণসহ অন্যান্য ভূমিহীনরা।

হরিণাকু-ু:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঈদ উপহার হিসেবে ঝিনাইদহের হরিণাকু-ু উপজেলার ২৬টি পরিবার পেল পাকা ঘর। গতকাল মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সারা দেশে একযোগে তৃতীয় পর্যায়ের জমির দলিল ও নির্মাণকৃত ঘরের চাবি প্রদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। মঙ্গলবার বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদের মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ২৬টি ঘরের চাবি তুলে দেওয়া হয় পরিবারগুলোর মধ্যে। প্রতিটি ঘর তৈরিতে খরচ করা হয়েছে ২ লাখ ৫৯ হাজার ৫শ টাকা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসাইন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুস্মিতা সাহা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সেলিম আহম্মেদ, মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা মুন্সী ফিরোজা, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা বেল্লাল হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম বাবু মিয়া, নাজমুল হুদা তুষার, প্রেসক্লাবের সভাপতি এম সাইফুজ্জামান তাজুসহ বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানগন সহ ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।

পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুস্মিতা সাহা জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ঈদ উপহার হিসেবে উপজেলার গৃহহীন ও ভূমিহীন ২৬টি পরিবারের মাঝে ঘর দেওয়া হয়। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মফিজ হাসান জানান, প্রতিটি পরিবারকে ২ শতক জমির ওপর ২ কক্ষবিশিষ্ট ঘর ও বাথরুম করে দেওয়া হয়েছে। দেওয়া হয়েছে বিদ্যুত সংযোগ, টিউবওয়েল। তিনি জানান, এই ঘরগুলো নির্মাণে সার্বিক খোঁজখবর নিয়েছেন ইউএনও সুস্মিতা সাহা।

মহেশপুর:

ঝিনাইদহের মহেশপুরে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার হিসেবে ৭০টি ভূমিহীন অহসায় পরিবার পেল মাথা গোজার ঠাই। সেই সাথে ৭০টি ভূমিহীন অহসায় পরিবারকে দেওয়া হলো জমির দলিলও। গতকাল মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারা দেশে ভূমিহীন অহসায় পরিবারের মধ্যে ঈদ উপহার হিসেবে জমির দলিল ও ঘর বিতরণ করেন। মহেশপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নয়ন কুমার রাজবংশীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন ঝিনাইদহ-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শফিকুল আজম খাঁন চঞ্চল।

বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ময়জদ্দীন হামিদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাজ্জাদুল ইসলাম সাজ্জাদ, সাধারণ সম্পাদক সীর সুলতানুজ্জামান লিটন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আজিজুল হক আজা, মহেশপুর থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) সেলিম মিয়া, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেহেরুননেছা, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা জুলফিকার আলী, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আবু তালেব, ডেপুটি কমান্ডার রবিউল আওয়াল, পৌর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কাজি আব্দুস সাত্তার প্রমুখ।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।