চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ৯ এপ্রিল ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

চুয়াডাঙ্গায় দুই পরিবারের সংঘর্ষে তিনজন জখম

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
এপ্রিল ৯, ২০২২ ১০:২৩ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক:

চুয়াডাঙ্গায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পরিবারের মধ্যে দা-বটি নিয়ে সংঘর্ষে নারীসহ তিনজন গুরুতর জখম হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে দর্শনা থানাধীন গড়াইটুপি ইউনিয়নের সড়াবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে পরিবারের সদস্যরা রক্তাক্ত জখম অবস্থায় তাঁদেরকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাপসাতালের জরুরি বিভাগে নেয়। জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তিনজনকেই তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিয়ে হাপসাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি করেন। আহতরা হলেন সড়াবাড়িয়া গ্রামের সিলিন্দপাড়ার আলী হোসেনের স্ত্রী মরিয়ম নেছা (৫০), তাঁর ছেলে বাদশা মিয়া (১৮) ও একই এলাকার চাঁন মিয়া (৪৫)।

জখম ময়িম নেছার মেয়ে আদরী খাতুন বলেন, ‘আমাদের বাড়ির পাশেই চাঁন মিয়ার বাড়ি। ওদের ব্যবহার অত্যান্ত খারাপ। সামান্য কারণেও বাজে ভাষায় গালিগালাজ করে চাঁন মিয়া। আজ সকালে ওদের বাড়ির ছাগল আমাদের বেড়ার মধ্যে এলে আমার মা ছাগল তাড়িয়ে দেয়। এসময় চাঁন মিয়া ও তার ছেলে আমার মাকে গালিগালাজ করতে থাকে। এসময় আমার ভাই বাদশা ওদেরকে গালি দিতে নিষেধ করলে ওদের হাতে থাকা দা দিয়ে আমার মা ও ভাইকে কুপিয়ে জখম করে। এসময় চাঁন মিয়ার পায়েও আঘাত লাগে। পরে গ্রামের লোকজনের সহায়তায় রক্তাক্ত অবস্থায় মা ও ভাইকে সদর হাপসাতালে ভর্তি করা হয়।’

সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. উৎপলা বিশ্বাস বলেন, সকাল সাড়ে আটটার দিকে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় এক নারীসহ একই এলাকার তিনজনকে জরুরি বিভাগে নেওয়া হয়। আহত তিনজনের শরীরের বিভিন্ন অংশে ধারালো অস্ত্রের গুরুতর জখমের চিহ্ন পাওয়া গেছে। জরুরি বিভাগ থেকে তাদেরকে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিয়ে সার্জারি বিভাগে ভর্তি রাখা হয়েছে।

দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) লুৎফুল কবির বলেন, এ ঘটনায় কোনো অভিযোগ হয়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।