চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
আজকের সর্বশেষ সবখবর

গ্রন্থাগারে এসে বই পড়ে জীবনকে আলোকিত করা সম্ভব

সমীকরণ প্রতিবেদন
ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৯ ১১:২৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস পালিত : চুয়াডাঙ্গায় ডিসি গোপাল চন্দ্র দাস
সমীকরণ প্রতিবেদন: ‘গ্রন্থাগারে বই পড়ি, আলোকিত মানুষ গড়ি’ প্রতিপাদ্যে সারাদেশে পালিত হয়েছে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস। এ উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগার এ কর্মসূচির আয়োজন করে।
চুয়াডাঙ্গা: বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভার মাধ্যমে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস-২০১৯ উদ্যাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদিক্ষণ শেষে চুয়াডাঙ্গা সরকারি গণগ্রন্থাগার মিলনায়তনে এসে শেষ হয়। পরে সেখানে চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ইয়াহ্ ইয়া খানের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক মুন্সি আবু সাইফের উপস্থাপনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পড়ালেখা সাধারণত বিষয়ভিত্তিক সিলেবাস কিংবা গবেষণা নির্ভর হয়ে থাকে, কিন্তু গ্রন্থাগারে জ্ঞানান্বেষণের ব্যাপ্তি সীমাহীন। সে বিষয়টির প্রতি গুর”ত্ব দিয়েই পাবলিক লাইব্রেরির প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। দিনে একবার হলেও গ্রন্থাগারে আসা প্রয়োজন। এখানে আছে জ্ঞানের ভান্ডার। গ্রন্থাগারে এসে বই পড়ে জীবনকে আলোকিত করা সম্ভব। এ সময় তিনি আরো বলেন, গ্রন্থাগার হচ্ছে জ্ঞানভাণ্ডার আর বই হলো ইতিহাসের আঁকর। জ্ঞান অন্বেষণের জন্য যেমন বই দরকার। তেমনি বই রাখার জায়গা হচ্ছে গ্রন্থাগার। দুটি মিলেই আমাদের জ্ঞান তৃষ্ণা নিবারণ করে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. কামর”জ্জামান, চুয়াডাঙ্গা সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আজিজুর রহমান, চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. কলিমুল্লাহ, চুয়াডাঙ্গা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নিখিল রঞ্জন চক্রবর্তী, চুয়াডাঙ্গা সরকারি গণগ্রন্থাগারের জুনিয়র লাইব্রেরিয়ান জিয়াউল ইসলাম।


মেহেরপুর: জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস-২০১৯ উপলক্ষে মেহেরপুরে আলোচনা সভা ও আনন্দ র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়েছে। মেহেরপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগারের আয়োজনে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস পালনে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে জেলা প্রশাসক আতাউল গনির নেতৃত্বে সরকারি গণগ্রন্থাগারের সামনে থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি কলেজ মোড় প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালিতে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষসহ স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহন করে। র‌্যালি শেষে মেহেরপুর জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগারের হলর”মে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক আতাউল গনি। প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, বই পড়লে শুধু জ্ঞানই বাড়ে না পৃথিবী সম্পর্কে অনেক বেশি জানা যায়। তিনি বলেন, ডিজিটাল যুগে মানুষ বই পড়ার প্রতি কেন জানি আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে, যা আমাদের জন্য দুঃখজনক। মেহেরপুর জেলা সাহিত্য পরিষদের সভাপতি নুর”ল আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর সরকারি মহিলা কলেজের উপাধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম, প্যানেল মেয়র শাহীনুর রহমান রিটন, সহকারি শিক্ষক শাশ্বত নিপ্পন চক্রবর্তী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা সরকারি গ্রন্থাগারের জুনিয়র লাইব্রেরীয়ান জুলফিকার মতিন।


ঝিনাইদহ: ‘গ্রন্থাগারে বই পড়ি, আলোকিত মানুষ গড়ি’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ঝিনাইদহে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস পালিত হয়েছে। জেলা প্রশাসনের আয়োজনে গতকাল মঙ্গলবার সকালে কালেক্টরেট চত্বর থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ, স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক সাইফুর রহমান খান, সহকারী পুলিশ সুপার (সদর) আল মামুন, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাজিয়া আক্তার চৌধুরী, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা আইয়ুব আলী, ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরীর ইনচার্জ আলমগীর হোসেন। বক্তারা, আলোকিত মানুষ গড়তে সকলকে বই পড়তে উৎসাহিত করার আহ্বান জানান। আলোচনা সভা শেষে ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরীর শ্রেষ্ঠ পাঠকদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।