গোপালপুরের খালটি প্রভাবশালীদের দখলে

294

20170113_115715গোপালপুরের খালটি প্রভাবশালীদের দখলে : বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি
ভোগান্তিতে হাজারো পরিবার : খাল সংস্কারের দাবি
অঞ্জন দত্ত/রোকনুজ্জামান রোকন: দামুড়হুদা উপজেলার জুড়ানপুর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের হাজার পরিবারের পানি নিষ্কাশণের একমাত্র খালটি এখন প্রভাবশালীদের দখলে ভরাট হয়ে এখন মৃত প্রায়। খালটি প্রায় ৩ কিলোমিটার জুড়ে অবস্থিত। বিভিন্ন গাছের বাগান, যাতায়াতের রাস্তা ও দোকানঘর নির্মাণসহ বিভিন্নভাবে খালটি ভরাট করেছে। যার ফলে সামান্য বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে। আর পানি বন্দি হয়ে পড়ছে হাজারো পরিবার। সাধারণ গ্রামবাসী সাংবাদিকদের জানান, গত সরকারের আমলে খালটি খনন করা হয় কিন্তু বর্তমান সরকারের আমলে একবারো সংস্কার করা হয়নি। এছাড়া গ্রামের কিছু অসাধু ব্যাক্তিরা খালটিকে নিজেদের প্রয়োজনে ভরাট করে চলেছে। খালটি গোপালপুর গ্রামের মাঝদিয়ে বয়ে দলকা-লক্ষীপুর বিলে গিয়ে মিশেছে। আর অন্যদিকটা মিশেছে গোপালপুরসহ আশপাশের গ্রামের বিস্তৃত মাঠের সাথে। এক সময় এই খালের পানি দিয়ে গোপালপুরসহ আশপাশ গ্রামের কৃষকেরা তাদের আবাদী জমিতে পানির অভাব পুরন করতো। কিন্তু খালটি অবৈধ দখলদারদের দখলের কারনে খালটি ভরাট হয়ে যেমন কৃষকদের আবাদী জমিতে পানি শূন্যতা সৃষ্টি করেছে। ঠিক তেমনি সামান্য বর্ষায় গ্রামের পথঘাটগুলো বন্যার সৃষ্টি হয়ে ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ পথচারী এবং কৃষকেরা। আবার আরেকটা লক্ষনীয় বিষয় হলো খালের পাশদিয়ে বয়েগেছে মাঠের রাস্তা। যে রাস্তাদিয়ে কৃষকেরা তাদের ফসলাদি নিয়ে আসে বাড়িতে। সরজমিনে গিয়ে গ্রামের মেম্বার ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সাথে কথা বললে তারা জানান, খালটি দিনে দিনে ভরাট হওয়ার ফলে গ্রামের পরিবারগুলো চরম ভোগান্তিতে পড়ছে। কয়েকযুগ পার হলেও পুন:খনন না হওয়ায় ভোগান্তি বাড়ছে। আমাদের দাবি খালটি সংস্কার করা হোক। এ বিষয়ে একজন কৃষিবিদের সাথে কথা বলে জানা যায়, মাঠের সাথে খালের সংযোগ বন্ধ হওয়ার কারনে মাটির উর্বরতা শক্তি কমে যায়। যার ফলে কৃষকেরা তাদের আশানুরুপ ফসল ঘরে তুলতে পারে না। গ্রামের প্রায় হাজার খানেক পরিবারসহ এলাকাবাসীর দাবি দখলদারমুক্ত করে খালটি সংস্কার করতে কর্তৃপক্ষ যথাযথ ভূমিকা রাখবে।