চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ৯ এপ্রিল ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

গাংনীতে পাওনা টাকা চাওয়ায় বাদীকে মারধর!

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
এপ্রিল ৯, ২০২২ ১০:০৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

প্রতিবেদক, গাংনী:

মেহেরপুরের গাংনী পৌরসভার পশ্চিম মালসাদহ গ্রামে পাওনা টাকা চাওয়ায় প্রতিপক্ষ দালালদের বিরুদ্ধে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান ও মারধরের অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে নানা হয়রানির শিকার জয়নাল আবেদীন (৩৫) সুবিচার পেতে গাংনী থানায় অভিযোগ দিয়ে এখন বেকায়দায়। গতকাল শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে মামলা তুলে নিতে বাদী জয়নাল আবেদীনকে কিল-ঘুষিসহ বেধড়ক মারপিট করে প্রতিপক্ষ মিনারুল ইসলাম ও রবিউল ইসলাম নামের দুজন দালালচক্র। স্থানীয়রা মারাত্মক আহত জয়নাল আবেদীন (৪৫) উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, পৌরসভার পশ্চিম মালসাদহ গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তার সেখের সম্পত্তি ওয়ারিশ সূত্রে তাঁর ছেলে-মেয়েরা মালিক। বাবার ২৭ শতক জমি ভুলক্রমে জয়নাল আবেদীনের বোনের নামে রেকর্ড হয়ে যায়। উক্ত জমি জয়নাল আবেদীন তার বোনের কাছে ফেরত চাইলে বোন ফেরত দিতে রাজি হয়। সে মোতাবেক সাব রেজিস্ট্রি অফিসে এসে দলিল সম্পাদন হওয়ার কথা। কিন্তু গ্রামের কতিপয় দালাল চক্র মসলেম আলীর ছেলে মিনারুল ইসলাম ও মজির উদ্দীনের ছেলে রবিউল ইসলাম ষড়যন্ত্র করে বোনকে ম্যানেজ করার কথা বলে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি জয়নাল আবেদীনের নিকট থেকে ১ লাখ টাকা নিয়ে জমি ফেরত দেওয়ার কথা। কিন্তু দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও সেই টাকা ফেরত দিতে গড়িমসি করছে। টাকা না পেয়ে গাংনী থানায় অভিযোগ করেন জয়নাল আবেদীন। গতকাল শুক্রবার থানায় সালিশ মীমাংসার মাধ্যমে টাকা ফেরত দেওয়ার কথা ছিল। এদিকে মিনারুল ইসলাম ও রবিউল ইসলাম থানায় যাওয়ার আগেই জয়নাল আবেদীনের বাড়ি থেকে টেনে বের করে বেধড়ক মারপিট করে এবং মামলা তুলে নিতে হুমকি দেয়।

এ ব্যাপারে মিনারুল ইসলাম ও রবিউল ইসলাম জানান, ‘আমাদের বিরুদ্ধে যে কয়টা মামলা করতে চাই করুক। দরকার হলে জেল খাটব।’ তারা ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে আরও জানান, ‘আমরা টাকা নিইনি। টাকা লেনদেনের কোনো সাক্ষী নেই।’

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।