চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ১ জুলাই ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

গহেরপুর-সড়াবাড়িয়া সড়কে  সন্ধ্যারাতে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে স্বর্ণালঙ্কারসহ প্রায় অর্ধকোটি টাকা লুট

গাছ ফেলে মুখোশধারী ডাকাত দলের ঘণ্টাব্যাপী তাণ্ডব
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
জুলাই ১, ২০২২ ৮:৫৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

প্রতিবেদক, তিতুদহ: চুয়াডাঙ্গার সদর উপজেলার গহেরপুর-সড়াবাড়িয়া সড়কে সন্ধ্যারাতে গাছ ফেলে অবরোধ করে গণডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এসময় ওই সড়ক দিয়ে যাতায়াতকারী প্রাইভেটকার, অটো, আলমসাধু, পাখিভ্যান ও মোটরসাইকেল আটকে অন্তত ২ শ মানুষকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ১৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কারসহ প্রায় অর্ধকোটি টাকা লুট করে মুখোশধারী ডাকাত দল। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ৯টা থেকে গড়াইটুপি ইউনিয়নের গহেরপুর-সড়াবাড়িয়া সড়কের শালিকচড়া মাঠের সড়কে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী তাণ্ডব চালায় ডাকাত দল। এসময় কয়েকজনকে মারধরও করে ডাকাত দলের সদস্যরা।

এদিকে, এ ঘটনার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু তারেক, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা সার্কেল) মুন্না বিশ্বাস, দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) লুৎফুল কবিরসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

জানা যায়, গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যরাতে ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক বিশ্বজিৎ সাহা মিথুন, ঝিনাইদহের স্যানেটারি ব্যবসায়ী মিলন, রনি সাহা ও এম এম এন্টারপ্রাইজের মালিক ঠিকাদার রাজু জীবননগর থেকে প্রাইভেটকারযোগে ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন। তারা আন্দুলবাড়ীয়ার মধ্যদিয়ে খাড়াগোদা বাজার দিকে যাওয়ার সময় ডাকাতের কবলে পড়ে। এসময় ডাকাত দেখে তারা গাড়ি পিছিয়ে নিতে গেলে গাড়িটি খাদে পড়ে। পরে ডাকাত দলের সদস্যরা সবার কাছ থেকে ৮টি স্বর্ণের আংটি, ১টি চেইন, ১টি ব্রেসলেটসহ মোট আনুমানিক ১৫ ভরি স্বর্ণ ও নগদ ৫১ হাজার টাকা লুট করে নেয়। এছাড়া গড়াইটুপি গ্রামের খোকনের কাছ থেকে নগদ ৫ হাজার টাকা, তেঘরী গ্রামের তৈমুরের কাছ থেকে ২ হাজার টাকা, সড়াবাড়িয়ার বিশারত ও মণ্টুর কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা, সুজায়েতপুর গ্রামের ডাক্তার মিলন হোসেনের কাছ থেকে ২ হাজার টাকা, বাটিকাডাঙ্গা গ্রামের শ্যামল ও কামাল কাছ থেকে ২ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। অনেকে ডাকাতির দৃশ্য দেখে দূর থেকে দৌঁড় দিয়ে পালিয়ে যায় এবং চিৎকার দেয়। পরে স্থানীয়রা ছুটে এলে ডাকাত দল পালিয়ে যায়। এসময় মাঠের মধ্যে থেকে একটি মালিকবিহীন পাখিভ্যান উদ্ধার করে স্থানীয়রা।
ডাকাতির কবলে পড়া শাহাজালাল নামের এক ভুক্তভোগী বলেন, ‘আমরা নিজের কাজ শেষ করে তিন বন্ধু মোটরসাইকেলযোগে বাড়ি ফিরছিলাম। এসময় ১৫-১৬ জন মুখোশধারী ডাকাত আমাদের মোটরসাইকেল গতিরোধ করে। আমাদের দুজনের মোবাইল ও আরেকজনের কাছ থেকে ৮ হাজার টাকা নিয়ে নেয়। পরে আমাদের মোবাইল ফোন ফেরত দিয়ে দেয়। এসময় সড়কে আসা একটি আম বোঝায় ইঞ্জিনচালিত আলমসাধু চালকের টাকা লুট করে নেয় তারা। মোবাইল চাইলে না দেয়ায় তাকে রামদা’র উল্টো দিক দিয়ে শরীরে বিভিন্নস্থানে আঘাত করে। পরে আমাদেরকে ছেড়ে দেয়।’

স্থানীয় একজন জানান, স্থানীয় ইটভাটার মালিক ওয়াদেহের নিকট থেকে ৯ লাখ টাকা লুট করে ডাকাত দল। এবং ইটভাটার পাশে একটি চায়ের দোকানি বেশকিছু সিগারেট নিয়ে বাসাই যাচ্ছিল। তার কাছ থেকে সিগারেটও নিয়ে নেয় ডাকাতরা।

আলমডাঙ্গা উপজেলার জোড়গাছা গ্রামের শহিদুল হকের ছেলে গরু ব্যবসায়ী আব্দুল হক আজাদ বলেন, ‘আমরা শিয়ালমারি পশুহাট থেকে মোটরসাইকেলযোগে ফেরার সময় সড়াবাড়ীয়া মাঠের মধ্যে পৌঁছালে আমার কাছে ব্যাগে থাকা ১৪ লাখ টাকা রামদা দেখিয়ে লুট করে ডাকাতরা।’

স্থানীয়রা জানান, মূলত সামনে ঈদ। গতকাল ছিল জীবননগর উপজেলায় শিয়ালমারির পশুর হাট। হাট শেষে বাড়ি ফেরার পথে গরু ব্যবসায়ীরা ডাকাতির কবলে পড়ে।
এবিষয়ে দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এএইচএম লুৎফুল কবীর বলেন, প্রায় ১৫-২০ মিনিট সড়কে গাছ ফেলে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে বলে শুনেছি। খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে এসেছি। কেউ বলছে ১২ লাখ, আবার বলছে ৯ লাখ, অন্যজন বলছে ১০ লাখ, আবার বলছে ৬ লাখ টাকা নিয়েছে। তবে কী পরিমাণ টাকা নিয়েছে, এখনই বলা সম্ভব হচ্ছে না। ডাকাতির ঘটনায় অভিযুক্তদের ধরতে ইতঃমধ্যে আমাদের টিম কাজ শুরু করছে। আশা করি খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে ডাকাত দলকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হবো।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।