চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ১২ ডিসেম্বর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

খামখেয়ালিতে স্কুলবঞ্চিত ২৯ লাখ শিশু

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
ডিসেম্বর ১২, ২০২১ ৩:০৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

লক্ষ্য নিরক্ষরমুক্ত বাংলা গড়ার ও এসডিজি অর্জন। এ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে দেশে ৮ থেকে ১৪ বছরের স্কুলবহির্ভূত ২৯ লাখ শিশুকে শিক্ষার আওতায় আনার উদ্যোগ নেয় উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো। তবে অভিযোগ রয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ও সচিবালয়ের কর্তাব্যক্তিদের খামখেয়ালিপনা ও উদাসীনতায় শুরু হচ্ছে না ‘আউট অব স্কুল চিলড্রেন প্রোগ্রাম’। এপিএসসি-২০১৮’র একনেকে অনুমোদন পায় মাঠ পর্যায়ের চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচির সাব-কম্পোনেন্ট ২.৫ এর আউট অব চিলড্রেন এডুকেশন প্রোগ্রাম। যাতে ৬১টি জেলার ৫৩টি এনজিওকে নির্বাচন করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ২০১৯ সালে। তবে এই প্রকল্পে শিক্ষার্থী যাচাইয়ের প্রক্রিয়ায় দীর্ঘ সূত্রতা দেখা দেয়। যা আজও আলোর মুখ দেখেনি। নির্বাচিত এনজিওগুলো ও উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো বলছে, শিক্ষার্থী, কেন্দ্র ও শিক্ষক নির্বাচন হয়েছে। এছাড়াও পাঠ্যপুস্তক সরবরাহসহ যাবতীয় কার্যক্রম প্রস্তুত রয়েছে। এনজিওগুলো বলছে জেলা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসার বরাবর ড্রপ আউট শিক্ষার্থীর তালিকা চাওয়া হলেও তা মেলেনি।
উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর মহাপরিচালক মো. আতাউর রহমান স্বাক্ষরিত একটি নির্দেশিকা ২৫শে নভেম্বর প্রেরণ করা হয়। এতে বলা হয়, চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচির সাব-কম্পোনেন্ট ২.৫ এর আউট অব স্কুল চিলড্রেন কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্যাচমেন্ট এলাকায় ৮-১৪ বছর বয়সী ঝরে পড়া ও কখনো স্কুলে যায়নি এমন শিক্ষার্থীদের জরিপ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। শিখন কেন্দ্র (এলসি) চালু করবার লক্ষ্যে চলমান কার্যক্রম দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, আউট অব স্কুল চিলড্রেন প্রোগ্রামের জন্য উপজেলা প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর পদের মৌখিক পরীক্ষার ফল হয়নি গত দুই বছরেও। চাকরি প্রত্যাশীরা বলেন, উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর কর্মসূচি বাস্তবায়নে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের তত্ত্বাবধানে উপজেলা বা আরবান প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর পদে গত ২০১৯ সালের ২৮শে অক্টোবর ৩০০ খালি পদের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। এতে যথাযথ শর্তপূরণ করে ২২ হাজার ৮৬৩ জন চাকরিপ্রার্থী আবেদন করেন। ২০২০ সালের ৩রা জানুয়ারি এর লিখিত পরীক্ষা হয়। এতে আট হাজারের বেশি পরীক্ষার্থী লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ১৩ থেকে ২৫শে জানুয়ারি পর্যন্ত হয় মৌখিক পরীক্ষা। এরপর চাকরিপ্রত্যাশীরা ফলের অপেক্ষায় প্রহর গুনছেন। কিন্তু গত ৩০শে নভেম্বর উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো একটি প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে উপজেলা বা আরবান প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর পদের মৌখিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ ছাড়াই আগামী ১৫ই ডিসেম্বর থেকে আউট অব স্কুল চিলড্রেন, পিইডিপি-৪, সাব-কম্পোনেন্ট ২.৫ প্রোগ্রামটি চালুর ঘোষণা দেয়। যা খুবই দুঃখজনক সিদ্ধান্ত। এই ফল দ্রুত বাস্তবায়নে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছেন নিয়োগপ্রত্যাশীরা। আকবর হোসেন নামে এক নিয়োগপ্রত্যাশী বলেন, নিয়োগের আশায় অপেক্ষা করছি দুই বছর ধরে। বারবার ধরনা দিয়েও কোনো উপকার হয়নি। করোনার ছুটিতে একটা স্থবিরতা এসেছিল কিন্তু এখনতো তারা উদ্যোগ নিতে পারেন। শুধু তাই নয়, এই প্রকল্প বাস্তবায়নে ইতিমধ্যে দেশের নানা প্রান্ত থেকে মিলেছে দুর্নীতির অভিযোগ। এসব দুর্নীতি রুখতে বেশ কিছু জেলায় চিঠি দিয়ে এসব অভিযোগ খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় চিঠিও দিয়েছে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোকে। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে অভিযোগ আসে যে, এই প্রকল্পে বিভিন্ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক তাদের স্বজনদের নিয়োগ দিচ্ছেন। এর বাইরে করোনায় ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রস্তুত করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। দীর্ঘদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় কতো শিক্ষার্থী ঝরে পড়েছে সেই সংখ্যা নিরূপণে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা শেষে ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের তালিকা সংগ্রহ শুরু করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।
জানা যায়, আগামী বছরের জানুয়ারি মাসে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চিঠি পাঠাবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ। চিঠিতে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ, ক্লাসে উপস্থিতি এবং অ্যাসাইনমেন্ট জমা দেওয়ার তথ্য চাওয়া হবে। মন্ত্রণালয়ের পরীক্ষা ও মূল্যায়ন বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক আমির হোসেন বলেন, স্কুল-কলেজে কতো শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে, পরীক্ষা দিয়েছে কতোজন আর বাদ পড়েছে কতোজন সেটি মূল্যায়ন করা হবে। স্কুল-কলেজে সশরীরে ক্লাস শুরু হলেও মাধ্যমিক পর্যায়ের ৫০ থেকে ৬০ শতাংশ শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। তবে মাধ্যমিক ৯৩ শতাংশ অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিয়েছে। এই পরিসংখ্যান দেখে বোঝা যাচ্ছে মাধ্যমিকে ৯৩ শতাংশ শিক্ষার্থী লেখাপড়ার মধ্যে রয়েছে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।