চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ২৬ মার্চ ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ক্ষমা চেয়ে ক্ষমতা ছাড়ুন: সরকারকে ফখরুল

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
মার্চ ২৬, ২০২২ ৭:১৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সরকারের প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, স্বাধীনতার আজকের শোভাযাত্রার মাধ্যমে সরকারের কাছে এই বার্তা যাচ্ছে, তোমার দিন শেষ, জনগণের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের কাছে ক্ষমতা ছাড়ো। অন্যথায় পরিণতি ভালো হবে না।

শনিবার বিএনপির নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে বিএনপি ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আয়োজিত মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বেলা পৌনে চারটার দিকে যখন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাধীনতা র‌্যালির উদ্বোধন ঘোষণা করেন তখন ফকিরাপুল, নয়াপল্টন, বিজয়নগর সড়ক নেতাকর্মীদের পদচারণায় কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়।

মির্জা ফখরুল বলেন, এখনো সময় আছে নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য নিরপেক্ষ সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করুন, অন্যথায় পালানোর পথ খুঁজে পাবেন না।

দলীয় প্রধান বেগম খালেদা জিয়াকে প্রথম নারী মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আখ্যা দিয়ে ফখরুল বলেন, ১৯৭১ সালে চট্টগ্রামে মুক্তিযোদ্ধাদের অনুপ্রাণিত করেছিলেন। নয় মাস কারাবরণ করেছেন। তিনি এর মাধ্যমে প্রথম নারী মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আমাদের কাছে চিহ্নিত হয়েছেন।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরে আজ কথা বলার অধিকার নেই, গণতান্ত্রিক অধিকার নেই, জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করার অধিকার নেই, বিদ্যুৎ-গ্যাসসহ সবকিছুর মূল্য ঊর্ধ্বগতি।

গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য রুখে দাঁড়াতে হবে উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, যদি বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হয়, তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে হয়, তাহলে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে, সব রাজনৈতিক দলকে ঐক্যবদ্ধ করে এই সরকারকে পরাজিত করতে হবে।

শোভাযাত্রা উপলক্ষে দুপুর বারোটার পর পর বিভিন্ন ওয়ার্ড, থানা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে ঢোল তবলা বাজিয়ে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে নেতাকর্মী ও সমর্থকরা নয়াপল্টনে জমায়েত হতে থাকে। নেতাকর্মীদের হাতে হাতে ছিল জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নানা ছবি সম্বলিত পোস্টার ও ব্যানার। স্বাধীনতা র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করা নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে স্লোগান দেয়।

স্বাধীনতা র‌্যালির শুরুর আগে নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ট্রাকের উপর অস্থায়ী মঞ্চে বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী ও সহ প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলীমের পরিচালনায় আরো বক্তব্য দেন স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, মহানগর দক্ষিণের আহ্বায়ক আবদুস সালাম, উত্তরের আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান, সদস্য সচিব আমিনুল হক প্রমুখ।

স্বাধীনতা র‌্যালিটি নয়াপল্টন, বিজয়নগর ,পল্টন মোড়, দৈনিক বাংলা হয়ে আবার নয়াপল্টনে এসে শেষ হয়।

এর আগে সকালে জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুস্পার্ঘ অর্পণ করে বিএনপি। স্মৃতিসৌধ থেকে ফিরে শহীদ জিয়ার মাজারে পুস্পার্ঘ অর্পণ করে।

এসব কর্মসূচিতে আরো অংশ নেন বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম খান, শাহজাহান ওমর, রুহুল কবির রিজভী, খায়রুল কবির খোকন, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, হাবিব উন নবী খান সোহেল, সরফত আলী সপু, ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, সাদেক আহমেদ, সাইফুল আলম নীরব, সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, আফরোজা আব্বাস, সুলতানা আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান, আবদুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েল, আবুল কালাম আজাদ, ফজলুর রহমান খোকন, ইকবাল হোসেন শ্যামল প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।