চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ১৩ এপ্রিল ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কুষ্টিয়ায় ত্রাণের চাল লুট করলো ক্ষুধার্ত জনগণ

সমীকরণ প্রতিবেদন
এপ্রিল ১৩, ২০২০ ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

Girl in a jacket

সমীকরণ প্রতিবেদন:
কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলার পল্লীতে ক্ষুধার জ্বালা সহ্য করতে না পেরে চেয়াম্যানের রিলিফের ২৬ বস্তা চাল লুট করেছে প্রকৃত দুস্থরা। চেয়ারম্যান যখন নিজের পছন্দের সামার্থ্যবান লোকজনকে রিলিফের চাল দিচ্ছিল ঠিক সেই মুহূর্তে বিক্ষুব্ধ দুস্থ্য জনগণ এই কাজটি করেছে। লুট হওয়া ত্রাণের সেই ২৬ বস্তা চাল প্রশাসন এখনও উদ্ধার করতে পারেনি। তবে ত্রাণ বন্টন নিয়ে গ্রামবাসী ও ইউপি চেয়ারম্যান পরস্পরবিরোধী কথা বলছেন।
জানা গেছে, করোনাভাইরাসের কারণে কুষ্টিয়ার খোকসার ওসমানপুর ইউনিয়নের ঘরবন্দি দুস্থদের জন্য বরাদ্দকৃত সরকারি ত্রাণের চাল ভুক্তভোগীদের ঘরে পৌঁছে দেয়ার সময় লুটের ঘটনা ঘটে। ওই ইউনিয়নে এই প্রথম জিআর প্রকল্পের আওয়তায় ৪৫০ পরিবারের জন্য সাড়ে চার মেট্রিক টন চালসহ খাদ্য সামগ্রী বরাদ্দ দেয়া হয়। গত শনিবার ইউএনওর প্রতিনিধি উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মমিনুল হক ও সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মেম্বারের উপস্থিতিতে চেয়ারম্যানের প্রতিনিধিরা ওসমানপুর ইউনিয়নে রিলিফের এ চাল পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম শুরু করেন। কিন্তু বিকেলে ২ নম্বর ওয়ার্ডের খানপুর গ্রামে চাল বিতরণের শেষ দিকে ২৬ বস্তা চাল লুট করে নেন ক্ষুধার্ত গ্রামবাসী। এ ঘটনার পর খোকসা থানা পুলিশের একটি দল ত্রাণের চাল উদ্ধারে অভিযানে নামে।
গ্রামবাসী ত্রাণের দাবিতে পুলিশ সদস্যদের রাত পর্যন্ত ঘেরাও করে রাখেন। এ সময় পুলিশ সদস্যরা দুস্থদের ত্রাণ সহায়তা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। তারা গ্রামের বিধবা ও অসহায়দের একটি তালিকা তৈরি করে থানায় ফিরে যান। গ্রামবাসী জানান, চেয়ারম্যান গ্রামের ধনী ও সরকারি রাজনৈতিক দলের নেতাদের নামে রিলিফ দিয়েছে। তাই প্রকৃত দুস্থরা ত্রাণের চাল ছিনিয়ে নিতে বাধ্য হয়েছে।
গ্রামবাসীর সাথে একমত পোষণ করে ২ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার মঞ্জুরুল হক জানান, চেয়ারম্যান তার দলীয় ও পছন্দের ধনী মানুষের নামে ত্রাণ দিয়েছেন। প্রকৃত দুস্থরা ত্রাণ পাননি। তারাই রিলিফের চাল লুট করেছেন।
চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান জানান, মেম্বার তার লোকদের দিয়ে ত্রাণের ২৬ বস্তা চালসহ খাদ্য সামগ্রী লুট করেছে। খোকসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবুর রহমান জানান, প্রকৃত দুস্থ যারা তারা রিলিফ লুট করে নিয়ে গেছেন। স্বচ্ছল লোকেরাই ত্রাণ পেয়েছে কিন্তু খেটে খাওয়া দুস্থ মানুষের নাম ওই তালিকায় ছিল না।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতিনিধি প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মমিনুল হক এ বিষয়ে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

Girl in a jacket

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।