চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ২৯ আগস্ট ২০১৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কুষ্টিয়ার মসজিদের ইমাম চুয়াডাঙ্গা বেলগাছীর মাওলানা উসমান গ্রেফতার

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ২৯, ২০১৭ ৯:০৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

দামুড়হুদার উজিরপুরে ভুট্টা ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে পাঁচলাখ টাকা ছিনতাই মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদার উজিরপুরে মাইক্রোবাস থামিয়ে ভুট্টা ব্যবসায়ী বাচ্চুকে অপহরণ করে নগদ পাঁচলাখ টাকা ছিনতাই মামলায় কুষ্টিয়ার বড় আইলচারা মসজিদের ইমাম এবং চুয়াডাঙ্গার বেলগাছী গ্রামের মৃত আক্কাচের আলীর ছেলে মাওলানা উসমানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসা চাঞ্চল্যকর তথ্য পেয়ে পুলিশও বিস্মিত! একটি বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনাকে কেন্দ্র করে একজন মসজিদের ইমাম হয়েও দীর্ঘ ৮ বছর ধরে মোবাইল ফোনে চাঁদাবাজী, কাফনের কাপর পাঠিয়ে হত্যার হুমকি দিয়ে ৮ লাখ টাকার চাঁদাদাবী করে আসছে সে। সর্বশেষ অভিনব কায়দায় অপহরণ করে ৫ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনাও ঘটিয়েছে সে। আর সবই ছিল উসমানের নিজস্ব পরিকল্পনা মাফিক। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে এমন তথ্য দিয়েছে মাওলানা উসমান।
দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি আবু জিহাদ ফকরুল খান জানান, গতকাল সন্ধ্যার পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কুষ্টিয়ার বড় আইলচারা মজিদের সামনে থেকে দামুড়হুদা থানার ৫ লাখ টাকা ছিনতাই মামলায় উসমানকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর উসমানকে দামুড়হুদা থানায় এনে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে স্বীকার করে, গত ২৪ আগষ্ট উজিরপুরে পুলিশ পরিচয়ে মোটর সাইকেলের কাগজ দেখার নাম করে দামুড়হুদার জামাত আলীর ছেলে এবং তার দুম্পর্কের চাচাতো ভাই বাচ্চুকে অপহরণ করে ৫ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনার সাথে তার সম্পৃক্ততা রয়েছে।
এছাড়া উসমান আরো জানিয়েছে, ২০০৯ সাল থেকে বাচ্চুদের সাথে তার বিরোধ শুরু হয় উসমানের বড়বোন রিক্তার বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনাকে কেন্দ্র করে। দামুড়হুদার কোমরপুরে রিক্তার বিবাহ হলে সেখান থেকে রিক্তার ডিভোর্সের বিষয়ে জামাত আলী অর্থাত বাচ্চুর বাবার যোগসাজোস আছে। এই বিশ্বাসের উপর ভিত্তি করে উসমান তার বোনের বিবাহ বিচ্ছেদের প্রতিশোধমূলক বাচ্চুদেরকে মোবাইল ফোনে নানাভাবে মোটা অংকের চাঁদা দাবীসহ ২০১৬ সালের দিকে বাচ্চুদের বাড়ী কাফনের কাপড় পাঠিয়ে হত্যার হুমকিসহ ৮ লাখ টাকার চাঁদা দাবী করে। সর্বশেষ উজিরপুর থেকে ৫ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা। এছাড়া, একই ব্যক্তির নামে ইতিপূর্বে বাচ্চুর পরিবারের পক্ষ থেকে চাঁদাদাবী ও হত্যার হুমকির বিষয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে। তার সূত্র ধরে মোবাইল ফোন ট্রাকিং করে পুলিশ উসমানকে আটক করতে স্বক্ষম হয়েছে।
তবে, পুলিশ মনে করছে উসমান বড় ধরণের সঙ্ঘবদ্ধ চাঁদাবাজ চক্রের সাথে জড়িত রয়েছে। তার জিজ্ঞাসাবাদে চাঁদাবাজীসহ আরো চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে আসবে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।