চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ২৬ জুলাই ২০১৭

কালীগঞ্জে চার শিক্ষকের দুই প্রতিষ্ঠানে চাকরী : টক অব দি টাউন

সমীকরণ প্রতিবেদন
জুলাই ২৬, ২০১৭ ৫:০৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ঝিনাইদহ অফিস: কালীগঞ্জের চার শিক্ষক অনৈতিকভাবে এক সাথে দুই কলেজে চাকরীর খবর বিভিন্ন দৈনিকে প্রকাশিত হওয়ায় দিনভর খবরটি টক অব দি টাউনে পরিণত হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আগে ভাগেই খবরটি চলে আসায় ভোর সকাল থেকে পত্রিকা সংগ্রহের জন্য মানুষ অপেক্ষায় ছিল। চুয়াডাঙ্গা থেকে প্রকাশিত দৈনিক সময়ের সমীকরণে খবরটি প্রকাশিত হলে কপি সংগ্রহ করে একে অন্যের কাছ থেকে কাড়াকাড়ি করে পাঠকরা তথ্যভিত্তিক এই খবরটি পড়েন। পাঠকের চাহিদা পুরণ করতে কেও কেও ফটোকপি করে বিক্রি করতে দেখা গেছে। এদিকে এক সাথে চার শিক্ষকের দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চাকরী ও সেটি ওয়েব সাইটে প্রকাশের ফলে মহা জালিয়াতির এই তথ্যটি দুই কলেজের অধ্যক্ষ আড়াল করতে পারেননি। কালীগঞ্জের শহীদ নুর আলী কলেজ ও মাহতাব উদ্দীন ডিগ্রী কলেজের রেকর্ডে জালিয়াতির এই তথ্যটি প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেছে। ফলে দুই প্রতিষ্ঠান প্রধান ও চার শিক্ষককে অনেক জটিল পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হতে পারে এমন কথা শোনা যাচ্ছে। যশোর শিক্ষা বোর্ডের একটি সুত্র জানায়, শহীদ নুর আলী কলেজের বাংলার শিক্ষক সুব্রত কুমার নন্দী, রসায়নের শিক্ষক অমিত কুমার সেন ও বাংলার শিক্ষক ফাতেমা আক্তার মাহতাব উদ্দীন ডিগ্রী কলেজেও নিয়োগপ্রাপ্ত। ওই তিন শিক্ষক নিয়মিতভাবে শহীদ নুর আলী থেকে বেতন ভাতা গ্রহন করছেন। অন্যদিকে একই সাথে তারা ২০১৫ সালের ২০ এপ্রিল মাহতাব উদ্দীন ডিগ্রী কলেজে যোগদান করেছেন। এখন মাহতাব উদ্দীন ডিগ্রী কলেজ সরকারী করণের পর ওই সব শিক্ষকদের বেতন ভাতা ছাড় হলে তারা কিভাবে এবং কোন প্রক্রিয়ায় শহীদ নুর আলী কলেজ থেকে রিজাইন লেটার নিবেন সে সব বিষয় এখন আলোচিত হচ্ছে। উল্লেখ্য শহীদ নুর আলী কলেজের বাংলার শিক্ষক সুব্রত কুমার নন্দী, রসায়নের শিক্ষক অমিত কুমার সেন ও ইতিহাসের শিক্ষক ফাতেমা আক্তার তথ্য গোপন করে মাসের পর মাস চাকরী করে যাচ্ছেন। অন্যদিকে কালীগঞ্জ পৌরসভাধীন আদর্শ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক মিতা বিশ্বাস সরকারী চাকরী করা অবস্থায় ২০১৫ সালের ২০ এপ্রিল মাহতাব উদ্দীন ডিগ্রী কলেজে যোগদান করেন। দীর্ঘদিন অনুসন্ধান চালিয়ে জাল জোচ্চুরির এই তথ্য ভিত্তিক খবরটি মঙ্গলবার দৈনিক সময়ের সমীকরণ এর শেষ পাতায় প্রকাশিত হয়।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।