চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ১৮ নভেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কালীগঞ্জে আ’লীগ নেতাকে সাদা পোশাকে তুলে নিয়ে যাওয়ার ৭ ঘন্টা পর ফেরৎ

সমীকরণ প্রতিবেদন
নভেম্বর ১৮, ২০১৬ ৬:০২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

Eঝিনাইদহ অফিস: ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও রায়গ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ইসরাইল হোসেনকে পুলিশ পরিচয়ে সাদা পোশাকে তুলে নিয়ে যাওয়া ৭ ঘন্টা পর ফেরৎ দেওয়া হয়েছে। তবে কালীগঞ্জ থানা পুলিশ ইসরাইলকে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার খবর অস্বীকার করেছে। তাদের ভাষ্য এ ঘটনার সাথে পুলিশ জড়িত নয়। অন্যদিকে ইসরাইল হোসেন অভিযোগ করেছেন, পুলিশ তাকে উঠিয়ে নিয়ে বারোবাজার হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে রাখে। সেখান থেকে তাকে রাত ২টার দিকে বাড়ি পৌছে দেওয়া হয়। পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, ইসরাইল হোসেন বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মোটর সাইকেলযোগে কালীগঞ্জ উপজেলার দুলালমুন্দিয়া বাজার থেকে নিজ গ্রাম খামারমুন্দিয়ায় ফিরছিলেন। পথের মধ্যে স্থানীয় এবতেদায়ী মাদ্রাসার কাছে সাদা পোশাকে অস্ত্রধারী কিছু লোকজন নিজেদের পুলিশ পরিচয় দিয়ে তাকে উঠিয়ে নিয়ে যায়। তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি স্থানীয় হালিমা খাতুন নামে এক ইউপি মেম্বরের বাড়িতে রেখে যায়। ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন ইসরাইলের ভাতিজা জয়নুদ্দিন ও আনিছ। তারা তার চাচাকে একটি পুলিশ পিকাপ ভ্যানে তুলতে দেখেন। ইসরাইল হোসেনের ভাই আলহাজ্ব আবুল হোসেন মাষ্টার জানান, এশার নামাজের পর তার ভাইকে কে বা করা তুলে নিয়ে যায়। কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান জানান, ইসরাইল একজন মুক্তিযোদ্ধা এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তাকে পুলিশ পরিচয়ে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার পর রাত ২টার দিকে বাড়িতে পৌছে দেয়। বিষয়টি নিয়ে ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ ঘটনার পরপরই সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন বিষয়টি আমার অজানা। তবে খোঁজ খবর নিয়ে দেখছি। এ বিষয়ে কালীগঞ্জের সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার”ল আজিম আনার বলেছিলেন, কালীগঞ্জে পুলিশ পরিচয়ে কারো উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার খবর আমার জানা নেই। এ বিষয়ে কেও আমার কাছে অভিযোগ করেনি। উল্লেখ্য ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ইদানিং পুলিশ পরিচয় দিয়ে সরকারদলীয় নেতাকর্মীদের তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে দলের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। ইতিপূর্বে মালিয়াট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান খান ও যুবলীগ নেতা ফরাশপুর গ্রামের সাঈদকে পুলিশ পরিচয়ে পুলিশ পরিচয়ে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। এরমধ্যে সাঈদকে পুলিশ স্থানীয় সংসদ সদস্য আনোয়ার”ল আজিমকে হত্যা ষড়যন্ত্র মামলায় গ্রেফতার দেখালেও আজিজুর রহমান খানের কোন হদিস মেলেনি। সেই রেশ কাটতে না কাটতে বুধবার রাতে কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও রায়গ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ইসরাইল হোসেনকে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার পর ফেরৎ দিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার দুপুরে ইসরাইল হোসেন সাংবাদিকদের জানান, পুলিশ তাকে নিয়ে গিয়েছিল। রাস্তা থেকে নিয়ে যাওয়ার পর তাকে বারোবাজার হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে রাখে। সেখান থেকেই তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।