চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ১২ ডিসেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কার্পাসডাঙ্গায় কাষ্টমার ম্যানেজার সেজে প্রতারণা স্কুল ছাত্রের কাছে ৮০হাজার টাকা বিকাশে হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

সমীকরণ প্রতিবেদন
ডিসেম্বর ১২, ২০১৬ ১:৩৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

34wvts

কার্পাসডাঙ্গা অফিস: চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা মিশনপাড়ায় এক প্রতারকের খপ্পরে পড়ে ৮০হাজার টাকা বিকাশ করে পড়েছে বিপাকে। বিকাশ এজেন্ট কে টাকা না দেওয়ায় উপায়ন্তর না দেখে দোকানী টাকা আদায় করতে প্রতারিত হওয়া যুবককে ধরে কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়িতে সোর্পদ করে। জানা গেছে, কার্পাসডাঙ্গা মিশনপাড়ার সুখেন মন্ডলের ছেলে কার্পাসডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র এবারের এস.এস.সি পরীক্ষার্থী চার্জ হৃদয় মন্ডলের মোবাইল ফোনে গতকাল রবিবার সকালে গ্রামীনফোন কাষ্টমার ম্যানেজার পরিচয় দিয়ে প্রতারক ০১৭৭৬-৩৯২১৪৭ ও ০১৭০৮-৫৫২৯৫৮ নম্বর থেকে হৃদয়কে বলে আপনি সৌভাগ্যবান আপনার একটি পুরস্কার বেধেছে। তবে তা জানতে হলে আপনাকে প্রথমে ১২০ টাকা ফ্লেক্সি দিতে হবে। প্রতারকের কথামত ফ্লেক্সি করে হৃদয়। টাকা পেয়ে প্রতারক আবার ১৫শত টাকা বিকাশ করতে বলে হৃদয় কে। হৃদয় একই পাড়ার টুটুল মন্ডলের কার্পাসডাঙ্গা বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী উল্লাস মাল্টিমিডিয়ায় এসে টাকা বিকাশ করে প্রতারকের নাম্বারে। প্রতারক এবার হৃদয়কে বলে তোমার ৬লক্ষ টাকা পুরস্কার বেধেছে আর তা পেতে হলে তোমাকে ৯০ হাজার টাকা বিকাশ করতে হবে। হৃদয় প্রতারককে আমার পুরস্কারের টাকা থেকে ৯০ হাজার টাকা কেটে নেওয়ার কথা বললে প্রতারক তাকে জানায় টাকা মেসেজের মাধ্যমে বিভিন্ন সেক্টরে দিতে হবে তারপরেই তুমি টাকা পাবে। তবে বিকাশ করার কথা কাউকে জানাতে পারবেনা। হৃদয় মোট ৬টি নাম্বারে ৭৮ হাজার ২ শত ৪০টাকা বিকাশ করে। এ সময় টুটুলের ম্যানেজার রিঠু টাকা কাকে পাঠাচ্ছে জানতে চাইলে হৃদয় তাঁর দাদার নাম করে। বিকাশ করা শেষ হলে প্রতারকের সব কটি নাম্বার বন্ধ হয়ে যায় ততক্ষণে হৃদয় বুঝতে পারে সে প্রতারকের খপ্পরে পড়েছে। বিকাশ এজেন্ট তার দেওয়া ৮০ হাজার টাকা না পেয়ে হৃদয়কে আটক করে কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়িতে দেয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত প্রতারিত যুবক হৃদয়ের পরিবার ও বিকাশ এজেন্টের সমঝোতার কথা চলছিল। পরে বিকাশ এজেন্ট কে গতকাল ৩০ হাজার টাকা ও বাকি টাকা ১মাস সময়ের মধ্যে পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দিয়ে মিমাংসা করে উভয়পক্ষ। প্রতারকের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান প্রতারকের বিষয়টি গভীর ভাবে দেখা হচ্ছে। কারা এ চক্রের সাথে জড়িত তাদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।