কারাগারেই বসবে আদালত : রাম রহিমের সাজা ঘোষণা আজ

328

বিশ্ব ডেস্ক: ধর্ষণের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত ভারতের বিতর্কিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিংয়ে সাজা ঘোষণায় আদালত বসবে কারাগারে। ভারতের হরিয়ানা ও পাঞ্জাব হাইকোর্ট রোহতক জেলার সুনারিয়ায় জেলা কারাগার কর্তৃপক্ষকে আদালত বসানোর যাবতীয় আয়োজন করতে শনিবার এই নির্দেশ দিয়েছে। এই কারাগারে রাখা হয়েছে রাম রহিমকে। এ ছাড়া বিচারিক কর্মকর্তাদের আকাশপথে কারাগারে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করতেও নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আজ সোমবার তার সাজা ঘোষণা হবে। কারাগারে বসানো আদালতে ৫০ বছর বয়সী সঘোষিত এই ধর্মগুরুর সাজা ঘোষণা করবেন বিচারক জগদীপ সিং। সংবাদসূত্র : টাইমস অব ইনডিয়া, এনডিটিভি, জি-নিউজ
গত শুক্রবার হরিয়ানার পাঁচকুলার আদালতে ধর্ষণ মামলায় দোষী সাব্যস্ত হন রাম রহিম। ১৯৯৯ সালে নিজ আশ্রমে দুই নারী অনুসারীকে ধর্ষণ করার অপরাধে তাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। ওই রায়ের পরই তার ভক্ত-অনুগামীরা পাঞ্জাব ও হরিয়ানা রাজ্যে সহিংস তান্ডব শুরু করে। অগ্নিসংযোগ, ভাংচুরসহ বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চালায়। গাড়ি, রেলস্টেশন, টেলিফোন এক্সচেঞ্জে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে তারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশকে গুলি চালাতে হয়। এতে নিহত হয় ৩৬ জন। আর আহত হয় ২৬৯ জন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বিভিন্ন জায়গায় সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। দুই রাজ্যের ডজনখানেক জেলায় কারফিউ জারি করা হয়েছে। এদিকে, ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে হরিয়ানা। শনিবার থেকে রাজ্যটিতে রেল ও বাস পরিষেবা চালু হয়েছে।
এদিকে, ধর্ষণ মামলায় দোষী সাব্যস্ত ডেরা সাচ্চা সওদার প্রধান গুরমিত রাম রহিম সিংকে যে কারাগারে রাখা হয়েছে, সেই রোহতক কারাগারের চারদিকে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। গত শুক্রবারের ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়েই সোমবার বাড়তি সতর্কতা নিচ্ছে পুলিশ প্রশাসন। এছাড়া গুরমিত রাম রহিম সিং দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি রোববার তার মাসিক রেডিও অনুষ্ঠান ‘মন কি বাত’-এ বলেছেন সহিংসতা কোনোভাবেই সমর্থনযোগ্য নয়। দোষীদের কোনো ছাড় দেয়া হবে না।
অন্যদিকে, ভারতের বিতর্কিত ধর্মগুরু গুরমিত সিং রাম রহিমকে গত শুক্রবার আদালত থেকে কারাগারে নেয়া হয় যে হেলিকপ্টারে, সেটা মাঝেমধ্যেই ব্যবহার করেন নরেন্দ্র মোদি। আর হেলিকপ্টারটি ছিল অগাস্টা ওয়েস্টল্যান্ড কোম্পানির। আর তা দুজনই যে একই হেলিকপ্টার ব্যবহার করেছেন, সেই ছবি রোববার ভাইরাল হয়েছে নেট দুনিয়ায়। একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, হেলিকপ্টারে বসে রাম রহিম সিং। পরনে সাদা পায়জামা-পাঞ্জাবি। পায়ে সাদা জুতা। মুখে হাত দিয়ে বসে আছেন। যে হেলিকপ্টারে তিনি বসে আছেন তার গায়ে লেখা ‘এডাবিস্নউ১৩৯’। আরেকটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, হেলিকপ্টার থেকে নামছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তার গায়েও লেখা ওই ‘এডাবিস্নউ১৩৯’। এই ছবিটি অবশ্য এক বছর পুরনো।
উল্লেখ্য, এই কপ্টারের মালিক প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঘনিষ্ঠ শিল্পপতি আদানি। এই হেলিকপ্টারেই মোদিকে মাঝেমধ্যেই চড়তে দেখা যায়। সেই হেলিকপ্টারেই কিনা ধর্ষণের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত এক অপরাধীকে উড়িয়ে কেন জেলে নিয়ে যাওয়া হলো, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে।