চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ২৫ ডিসেম্বর ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

করোনার পরিবর্তিত রূপ নিয়ে ধোঁয়াশা!

সমীকরণ প্রতিবেদন
ডিসেম্বর ২৫, ২০২০ ৫:৫২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

চুয়াডাঙ্গায় নতুন কেউ শনাক্ত নেই, দেশে ১৯ জনের মৃত্যু, সুস্থ ২,৩৪৫
সমীকরণ প্রতিবেদন:
করোনাভাইরাসের নতুন স্ট্রেইন (পরিবর্তিত রূপ) নিয়ে বিশ্বব্যাপী যখন আতঙ্ক ছড়াচ্ছে, তখন বাংলাদেশের বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ জন্ম দিয়েছে নতুন বিতর্কের। ব্রিটেনে করোনার যে নতুন স্ট্রেইনটি তোলপাড় সৃষ্টি করছে বাংলাদেশেও একই ধরনের নতুন স্ট্রেইন পাওয়া গেছে বলে বাংলাদেশ শিল্প ও গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর বা সায়েন্স ল্যাব) প্রধান বিজ্ঞানী সেলিম খানের উদ্ধৃতি দিয়ে যে নিউজ হয়েছে সে ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি জানান, এ বিষয়ে নতুন কোনো তথ্য তিনি দেননি। একটা সেমিনারে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে তিনি বলেছিলেন, আগস্ট মাসেই বলেছি যে করোনার নতুন স্ট্রেইন আসবে। কিন্তু ভুল বোঝাবুঝির কারণে নিউজ হয়েছে যে বাংলাদেশে করোনার নতুন স্ট্রেইন এসেছে যা যুক্তরাজ্যের স্ট্রেইনের সাথে মিল আছে। এটা নিয়ে দেশে ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে তার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, তিনি পরীক্ষা করেছেন নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে কিন্তু এই নমুনাগুলো সংগ্রহ করেছিলেন ২০ আগস্ট। তবে সায়েন্স ল্যাবের জিনোম পরীক্ষার ফলাফল বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মেডিক্যাল বায়োটেকনোলজি বিভাগের ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডা. মারুফুর রহমান অপু বলেন, ব্রিটেনের নতুন স্ট্রেইনের একটির সাথে এখানকার জিনোম পরীক্ষায় আংশিক মিল রয়েছে, পুরোপুরি নয়।
নতুন স্ট্রেইনটির ১৭টি মিউটেশন হয়েছে। এর অনেকগুলো মিউটেশন বিভিন্ন স্থানে পৃথক পৃথকভাবে আগেই পাওয়া গিয়েছিল। কিন্তু ব্রিটেনের মিউটেশনটি একই সাথে পাওয়া গেছে। বাংলাদেশে নভেম্বরের শুরুর দিকে সায়েন্স ল্যাব যে পাঁচটি জিনোম সিকুয়েন্স করে তাতে ব্রিটেনের ১৭টি মিউটেশনের একটির কাছাকাছি মিউটেশন পাওয়া গেছে। এই মিউটেশনটি আগে থেকেই পেরু, রাশিয়া ও অস্ট্রেলিয়াসহ কয়েকটি দেশে দেখা গিয়েছিল। ডা. মারুফুর রহমান অপু বলেন, ব্রিটেনের মিউটেশনের কাছাকাছি একটি মাত্র মিউটেশনে বাংলাদেশে কোনো প্রভাব পড়ে কি না অথবা প্রভাব ইতোমধ্যে পড়েছে কি নাÑ তা এখনো জানা যায়নি। ব্রিটেনের যে নতুন মিউটেশনটি পাওয়া গেছে বাংলাদেশে যে তা পাওয়া যায়নি এখনই তা বলা যাবে না। তবে রাতে জানা গেছে, সায়েন্স ল্যাবের প্রধান বিজ্ঞানী ড. সেলিম খানকে জরুরি ভিত্তিতে ঢাকায় তলব করা হয়েছে। তিনি সুনামগঞ্জে একটি সেমিনারে যোগ দিতে গিয়েছিলেন। আগারগাঁওয়ের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ল্যাবরেটরি মেডিসিন অ্যান্ড রেফারেল সেন্টার থেকে এই নমুনা আনা হয়েছিল। কাদের নমুনায় নতুন এই মিউটেশনটি পাওয়া গেছে তা এখনো বের করা হয়নি।
এদিকে, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১৯ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। আর সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ৩৪৫ জন। এসময় নতুন ১ হাজার ২৩৪ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা রোগী শনাক্ত হলো ৫ লাখ ৬ হাজার ১০২ জন। এখন পর্যন্ত দেশে এ ভাইরাসে মৃত্যুবরণ করেছেন সাত হাজার ৩৭৮ জন। করোনা শনাক্তের বিবেচনায় গতকাল মৃত্যুর হার ছিলো ১ দশমিক ৪৬ শতাংশ। গত ২১ ডিসেম্বর থেকে মৃত্যুর একই হার বিদ্যমান রয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতাল এবং বাসায় মিলিয়ে সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ৩৪৫ জন। দেশে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন চার লাখ ৪৬ হাজার ৬৯০ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৮ দশমিক ২৬ শতাংশ। স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ৩১ থেকে ৪০ বছরের একজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের দু’জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের দু’জন এবং ষাটোর্ধ্ব রয়েছেন ১৪ জন। মৃত্যুবরণকারীদের বিভাগভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা বিভাগে ১১ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে চারজন, খুলনা বিভাগে একজন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে তিনজন মৃত্যুবরণ করেছেন। চুয়াডাঙ্গা:
চুয়াডাঙ্গায় নতুন কারও শরীরে শনাক্ত হয়নি। এখন পর্যন্ত জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৬৩৬ জন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত আটটায় জেলা সিভিল সার্জন অফিস এ তথ্য নিশ্চিত করে। গতকাল সদর উপজেলা থেকে নতুন একজন সুস্থ হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫২৫ জন।
জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ করোনা পরীক্ষার জন্য ১৫টি নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। গতকাল উক্ত নমুনার মধ্যে ১৫টি নমুনার ফলাফলই নেগেটিভ আসে। গতকাল করোনা পরীক্ষার জন্য জেলা স্বাস্থ্যবিভাগ সদর উপজেলা থেকে ৬টি নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করেছে।
চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী জেলা থেকে এ পর্যন্ত মোট নমুনা সংগ্রহ ৭ হাজার ২৮০টি, প্রাপ্ত ফলাফল ৭ হাজার ১০৪টি, পজিটিভ ১ হাজার ৬৩৬টি, নেগেটিভ ৫ হাজার ৬৮৪টি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জেলায় হোম আইসোলেশনে ছিলেন ৩৭ জন ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে ছিলেন ৫ জন। চুয়াডাঙ্গা জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৪৩ জন। এর মধ্যে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে জেলার বাইরে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।