কন্দর্পপুরে বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী যুবতীর সন্তান প্রসব!

50

প্রতিবেদক, হাসাদাহ:
জীবননগর উপজেলার কন্দর্পপুরে ও বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক যুবতী (১৯) সন্তান প্রসব করেছেন। তবে সদ্য ভূমিষ্ট ওই শিশুর পিতৃ পরিচয় পাওয়া যায়নি। গত মঙ্গলবার সকালে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিনি এ সন্তান প্রসব করেছেন।
বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ওই যুবতীর মা সাহেরা বেগম জানান, তাঁর দুই মেয়ে ও এক ছেলে। ছেলে ছোট থাকাকালে ১৫ বছর আগে তাঁর স্বামী বাড়ি থেকে চলে যান। এখন পর্যন্ত তিনি নিখোঁজ। তিন সন্তান নিয়ে তিনি পড়েন মহাবিপদে। কোনো সময়ে মাঠে-ঘাটে, কোনো সময়ে কারো বাড়িতে কাজ করে পরিবার চালান তিনি। তাঁর ছেলে ও তিনি মাঠে কাছ করেন। মেঝ মেয়ে জন্ম থেকে বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী হওয়ায় বাড়িতে থাকতেন। কিছুদিন আগে হঠাৎ তাঁর মেয়ের শরীরে পরিবর্তন লক্ষ্য করেন প্রতিবেশী। গত মঙ্গলবার সকালে আমি মাঠে কাজে গেলে তাঁর মেয়ের প্রসব বেদনা ওঠে। পরে জীবননগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে ভর্তি করা হলে সেখানে ফুটফুটে একটি ছেলে সন্তান জন্ম হয়। পিতৃ পরিচয়হীন সন্তানকে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। পরে রাতে জীবননগর আশতলাপাড়ার তাঁর এক আত্মীয় খবর পেয়ে ছেলে সন্তানকে নিয়ে যান।’ তিনি আরও জানান, ‘আমার প্রতিবন্ধী মেয়ের এমন সর্বনাশ কে করল। এখন আমি এই কলঙ্ক নিয়ে কীভাবে বাস করব।’
এ বিষয়ে হাসাদাহ ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নম্বর ওয়ার্ড কন্দর্পপুর গ্রামের মেম্বার সোহেল রানা শ্যামল বলেন, অসহায় পরিবারের বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী যুবতীর একটি ছেলে সন্তান হয়েছে, যা পিতৃহীন। এমন একটি লজ্জাজনক কাজ যে করেছে, তাঁর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।