ওয়াই-ফাই ব্যবহারে সর্তকতা

13

প্রযুক্তি প্রতবিদেন:
র্জামানরি ফডোরলে অফসি ফর রডেয়িশেন প্রোটকেশনরে এক সর্তক র্বাতায় বলা হয়ছে,ে ওয়াই-ফাইয়রে অতরিক্তি ব্যবহারে স্বাস্থ্যঝুঁকি আছ।ে এতে আরো উল্লখে করা হয়, চলমান করোনা সংকটরে মধ্যে হোম অফসি করার জন্য অনকেে ওয়াই-ফাই ব্যবহার করছনে। এতে করে অনকেকে র্দীঘ সময় অনলাইনে থাকতে হচ্ছ।ে আর এই অতরিক্তি সময়রে কারণে স্বাস্থ্যঝুঁকতিে পড়ছনে অনকে।ে এমনকি মস্তষ্কি ও স্নায়ু রোগওে আক্রান্ত হচ্ছনে কউে কউে। কন্তি স্বাস্থ্য বশিষেজ্ঞরা বলছনে ভন্নি কথা। তারা বলছনে, ইলকেট্রকি ডভিাইস থকেে দুই ধরনরে বকিরিণ হয়, আয়নাইজংি ও নন-আয়নাইজংি। প্রথমটি মাইক্রোওয়ভেরে মতো যন্ত্রে ব্যবহৃত হয়। দ্বতিীয়টি ব্যবহৃত হয় ওয়াই-ফাই ও ব্লুটুথরে ক্ষত্রে।ে সক্ষেত্রেে ওয়াই-ফাইয়রে মাধ্যমে স্বাস্থ্যরে ক্ষতি হয় না। তবে র্জামান সংগঠনটরি সর্তক র্বাতায় ওয়াই-ফাইয়রে ঝুঁকি থকেে নজিকেে সুরক্ষার জন্য কছিু পরার্মশও দয়ো হয়ছে।ে বাংলাদশে র্জানালরে পাঠকদরে জন্য সগেুলো নচিে তুলে ধরা হল- ১. ঘুমানোর সময় ওয়াই-ফাই রাউটার বন্ধ করতে হব।ে ২. কাজরে অবসরে রাউটার বা ব্লুটুথ স্পকিার বন্ধ রাখা জরুর।ি ৩. প্রয়োজন না হলে ওয়াই-ফাই রাউটার চালু করা যাবে না। ফোনরে এমবি প্যাকও চালু করা উচতি নয়। ৪. সম্ভব হল,ে ওয়াই-ফাই ব্যবহার না করে তাররে সাহায্যে ইন্টারনটে পরষিবো ব্যবহার করতে হব।ে